অল্প শ্রমে অধিক লাভ হওয়ায় নওগাঁয় আদা চাষে ঝুঁকেছে কৃষক

মো.আককাস আলী নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি :-

অল্প শ্রমে অধিক লাভ হওয়ায় নওগাঁয় আদা চাষে ঝুঁকেছে কৃষক। জেলায় এবার আদার ফলন ভালো হয়েছে। দামও ভালো। প্রতি কেজি আদা ১৯০থেকে ১৫০ টাকা দরে বিক্রি করে কৃষক ধানের চেয়ে ১০ গুণ বেশি লাভের মুখ দেখছেন। জেলার আদাইপুর গ্রামের কৃষক অলম বম্মন,গোপালপুর গ্রামের কৃষক মাসুদ রানা জানান, এবার ‘আদা চাষ করে কপাল খুলি দিয়েছে। প্রতি বিঘা জমিতে ৩০ থেকে ৩৫মন আদা উৎপাদন হয়। এখন প্রতি মন আদার মূল্য প্রায় সাড়ে ৫হাজার টাকা। এক বিঘা জমিতে প্রায় দেড় লাখ টাকার আদা বিক্রি হয় এবং প্রতি বিঘা জমিতে খরচ হয় ২০ হাজার টাকার মত।
আদা গুণের দিক থেকে যেমন এর জুড়ি মেলা ভার, তেমনই ব্যবসায়িক দিক থেকেও এটির চাষ বেশ লাভজনক। অনেক মশলার মাঝে আদা গুরুত্বপূর্ণ মসলা। আদার গুণাগুণ- আদার ভেষজ গুণ অগণিত। জিঙ্ক, লবণ, ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম প্রভৃতি বিভিন্ন উপাদানে ভরপুর আদা আমাদের শরীরের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। খাদ্যে মশলা হিসেবে হোক বা পানীয়তে অথবা ওষুধ বা সুগন্ধি তৈরি, বিভিন্ন কাজে লাগে এই আদা। গ্যাস্ট্রিক-এর সমস্যা কমাতে হোক বা ব্যাথা কমাতে আদা অনেকেই খেয়ে থাকেন।

আদায় উপস্থিত অ্যান্টি-ব্যাকটিরিয়াল উপাদান শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। আদাতে শরীরে রক্তপ্রবাহের মাত্রা ঠিক থাকে। খিদে বাড়াতে এবং বমি বমি ভাব কমাতে আদার গুরুত্ব অপরসিম। সর্দি-কাশি কমাতেও আদার টুকরো মুখে রাখলে বেশ কাজ হয়। এছাড়া, বদহজম, আমাশয়, পেট ফাঁপার মতো অসুবিধাও দূর করে এবং পেট পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে আদা। অনেকেই গলা পরিষ্কার রাখতে আদাজল বা আদার টুকরো খান। নিয়মিত আদা খেলে ত্বক, চুলের ঔজ্জ্বল্য বাড়ে। গুণে সমৃদ্ধ আদা আমাদের সঙ্গে ওতোপ্রোতভাবে জড়িয়ে। তাই লকডাউনে ইচ্ছে হলে বাড়িতেই চাষ করতে পারেন আদা। জেলা কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, জেলায় সাড়ে ৭ হাজার একর জমিতে আদার চাষ হয়েছে।

সময় নিউজ২৪.কম/এমএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *