অসমাপ্ত পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে রাবি উপাচার্য বরাবর লিখিত আবেদন

রাবি প্রতিনিধিঃ

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে গত ১৮ মার্চ থেকে বন্ধ ঘোষণা করা হয় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি)। ফলে দুই একটি কোর্স বাকি থাকতেই স্থগিত হয়ে যায় বিভিন্ন বর্ষে চলমান ফাইনাল পরীক্ষা। এতে সেশনজট আর চাকরির বাজারে পিছিয়ে পড়ার শঙ্কায় ভুগছেন বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

এরই প্রেক্ষিতে অসমাপ্ত পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম. আব্দুস সোবহান বরাবর লিখিত আবেদন জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সোমবার (১৯ অক্টোবর) দুপুরে আইন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীরা এ আবেদন জানান।

আবেদনপত্রে শিক্ষার্থীরা উল্লেখ করেন, ‘আমরা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের এলএলবি (সম্মান) পার্ট-৪ এর শিক্ষার্থী। গত ৫ মার্চ তারিখে আমাদের পরীক্ষা শুরু হয় যা শেষ হওয়ার সম্ভব্য তারিখ ছিলো ২ এপ্রিল। কিন্তু ৮ মার্চ বাংলাদেশে করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ায় সরকার গত ১৮ মার্চ থেকে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেন, যা এখনো চলমান। ফলে আমাদের ৫ টি কোর্সের পরীক্ষা অসমাপ্ত থেকে যায়। ফলে আমাদের সনদপ্রাপ্তির সময়কাল অনিদিষ্ট কালের জন্য দীর্ঘায়িত হচ্ছে।

এতে আরও উল্লেখ করা হয়, পরীক্ষা অসমাপ্ত থাকার ফলে আমাদের বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হওয়ার সম্ভবনা আছে বলে মনে করি। বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশন কর্তৃক ১৩ তম জুডিশিয়ারি নিয়োগ পরীক্ষার মৌখিক অংশের সময়সূচি প্রকাশিত হয়েছে। পূর্ববর্তী পরীক্ষা থেকে জানা যায় মৌখিক পরীক্ষার পরপর দ্রুত সময়ে পরবর্তী নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়।

আমরা আশঙ্কা করছি, পরবর্তী বিচারক নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবো না। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ সরকারী বেসরকারী চাকরিসমূহের বয়সসীমা সুনির্দিষ্ট হওয়ায় চাকরি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগও কমে যাচ্ছে।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী জান্নাতুন নাইম মিতু, রুবাইয়া এলিন সুধা, মাহমুদুল হাসান, ইমরান ভূঁইয়া, আব্দুল আলীম, মাসরুখ হোসাইন প্রমুখ।

লিখিত আবেদন গ্রহণের বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এম আবদুস সোবহানের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

সময় নিউজ২৪.কম/এমএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *