ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের উদ্যোগে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আধুনিক টয়লেট নির্মাণ

পবা প্রতিনিধিঃ
ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ পবা এরিয়া প্রোগ্ৰামের আয়োজনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আধুনিক শৌচাগারের উদ্বোধন করা হয়েছে। বুধবার (১৯ জানুয়ারি) বেলা ১২টায় নওহাটা পৌর এলাকার চৌবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আধুনিক শৌচাগারের উদ্বোধন করা হয়েছে।উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউএনও লসমী চাকমা।
চৌবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. এরশাদ আলীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পবা উপজেলার সহকারী শিক্ষা অফিসার রোজী খন্দকার, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের প্লেইনল্যান্ড ক্লাস্টার, ফিল্ড প্রোগ্ৰাম অপারেশন, ডেপুটি ডিরেক্টর জেনী মিলড্রেড ডি. ক্রুশ, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের রাজশাহী এসিও সিনিয়র ম্যানেজার সেবাষ্টিয়ান পিউরীফিকেশন।এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন, চৌবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খালেদা বানু, চৌবাড়িয়া গ্ৰাম উন্নয়ন কমিটির সভাপতি মো. আবুল কাশেম, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের প্রোগ্ৰাম অফিসার গ্ৰেস রোজী, পলাশ হিউবাট বিশ্বাস।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইউএনও লসমী চাকমা বলেন, বিদ্যালয়ের পরিবেশের উপর ছাত্র-ছাত্রীদের লেখা-পড়ার মান নির্ভরশীল। তাই বিদ্যালয়ের সুস্থ পরিবেশ অভিভাবক ও বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটিকে নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি ছাত্র-ছাত্রীদের টয়লেট পরিষ্কার রাখার জন্য প্রয়োজনীয় জ্ঞান দিতে হবে। এছাড়াও বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে ক্লাশ পরিচালনা করা আহবান জানান তিনি। সেই সাথে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের এই ধরনের মহতী উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান ইউএনও লসমী চাকমা।ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের পক্ষ থেকে জেনী মিলড্রেড ডি. ক্রুশ জানান, একটি গ্ৰামের উন্নয়ন নির্ভর করে বিদ্যালয়ের উপর। তাই এলাকার উন্নয়নে স্বার্থে ও করোনা প্রতিরোধে বিদ্যালয়কে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। এটা পরিষ্কার রাখার জন্য বিদ্যালয়ের কতৃপক্ষকে অনুরোধ জানান।
চৌবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. এরশাদ আলী জানান, আমাদের বিদ্যালয়ে মোট শতাধিক ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য দুইটি টয়লেট যথেষ্ট ছিল না। ছাত্র-ছাত্রীদের করোনাকালিন সময়ে হাত ধূয়ার জন্য ওয়াশ ব্লক ও টয়লেট দিয়েছেন। মানবিক সহায়তায় এগিয়ে আসার জন্য ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।প্রধান শিক্ষক খালেদা বানু বলেন, ‘আগে আমাদের বিদ্যালয়ে টয়লেট (শৌচাগার) ভালো না থাকার কারণে ছাত্র-ছাত্রীদের অনেক সমস্যা হতো। শিশুদের পাশাপাশি আমরা চরম কষ্টে ছিলাম।’ বিদ্যালয়ের জরাজীর্ণ শৌচাগারের জায়গায় ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের সহযোগিতায় নতুন শৌচাগার পেয়ে আমরা অনেক আনন্দিত।
উক্ত বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র আকাশ জানান, আমাদের বিদ্যালয়ে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ ওয়াশ ব্লক ও টয়লেট দিয়েছে। এটা খুবই সুন্দর ও আমাদের জন্য খুবই উপকারী। এটা পেয়ে আমরা খুবই আনন্দিত। এটা দেওয়ার জন্য শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশকে ধন্যবাদ জানাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *