কচুয়ার সাচার গ্রামে আজ থেকে রথযাত্রার উৎসব

কচুয়া প্রতিনিধি :
কচুয়া উপজেলার সাচার গ্রামে যথাযোগ্য মর্যাদায় সনাতনধর্মালম্বিদের রথযাত্রা উৎসব পালন করা হবে। এ উৎসবকে ঘিরে শহরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোড়দার করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন সনাতনধর্মালম্বি নেতৃবৃন্দ। আজ ৪ জুলাই বৃহস্পতিবার তিথী অনুযায়ী পালন করবেন এই রথ যাত্রা উৎসব। জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ ও পুরাণবাজার জগন্নাথ মন্দির কমিটির সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায় জানান, ৪ জুলাই রথযাত্রা উৎসবকে ঘিরে সপ্তাহব্যাপী নানা কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ১ম দিন আজ রথ পুরান বাজার জগন্নাথ মন্দির থেকে নতুন বাজার কালী মন্দিরে এনে রাখা হবে।

এ দিনে বিকাল ৫ টায় রথ যাত্রা উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান। এসময় পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির সহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন। সুভাষ চন্দ্র রায় আরো জানান, ৪ জুলাই ১ম দিনে সকাল ৯ টায় অগ্নিহোত্র যজ্ঞ, দুপুর ১২টায় ভোগ আরতি, দুপুর ১টায় ভাগবত পাঠ করবেন ঝিনাইদহের প্রসিত কৃষ্ণ দাস, দুপুর ২টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান রয়েছে।

পরদিন ৫ জুলাই শুক্রবার সকাল ১০টায় ভজন কীর্তন, হরিনাম ও পাঠকীর্তন, দুপুর ১২টায় ভোগ আরতি, দুপুর ১টায় জগন্নাথ লীলা মৃত পাঠ করবেন ঠাঁকুর গায়ের সুষান্ত গৌর দাস। একই ভাবে ৮ জুলাই সোমবার পর্যন্ত পূর্বের একই নিয়মে অনুষ্ঠানমালা চলতে থাকবে। ৯ জুলাই মঙ্গলবার দুপুর ১টায় জগন্নাথ লীলামৃত পাঠ করবেন প্রসিৎ কৃষ্ণ দাস, বিকেল ৪টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করবেন বেতার ও বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের শিল্পীবৃন্দ।

এদিকে জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি অ্যাড. বিনয় ভূষণ মজুমদার ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. রনজিত রায় চৌধুরী এ উৎসবের ব্যপারে জানান, চাঁদপুরে ৪ জুলাই বৃহস্পতিবার একই দিনে শহরের বেশ কয়েক জায়গা থেকে রথ বের করা হবে। ওই দিন বিকেলে চাঁদপুর শহরের নতুন বাজার গোপাল জিউর আখড়া থেকেও ১টি রথ বের করা হবে। যা শহরের মেথারোডস্থ সার্বজনীন দূর্গা মন্দিরে এনে রাখা হবে।এছাড়াও পুরাণবাজারের ঘোষপাড়া থেকে আরও ১টি রথ যাত্রা বের করা হবে। যা শহরের নতুন বাজারের ঘোষপাড়া দূর্গা মন্দিরে এনে রাখা হবে। তারা আরো জানান, রথ যাত্রা উৎসব কে ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোড়দার করা হচ্ছে। সপ্তাহব্যাপী এই উৎসবে সকল পর্যায়ের সনাতনধর্মালম্বি ভক্তববৃন্দকে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানান তারা।

এদিকে কচুয়া উপজেলার সাচার গ্রামে রয়েছে ভারতীয় উপমহাদেশের হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম দ্বিতীয় বৃহত্তম ঐতিহ্যবাহী রথ ও জগন্নাথ ধাম, যা ‘সাচারের’ রথ নামে দেশের সর্বত্র পরিচিত। আজ ৪ জুলাই বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে ১৫২ তম রথযাত্রার উৎসব। রথযাত্রার উৎসবকে কেন্দ্র করে সাচার এলাকায় বিরাজ করছে ব্যাপক আনন্দ উল্লাস। জগন্নাথ ধাম, রথ ও জগন্নাথ ধাম এলাকাকে বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে। জগন্নাথ ধাম প্রাঙ্গণ থেকে রথটি টেনে আনা হবে ৫০০ গজ দুরে সাচার বাজারে। সপ্তাহ পর পালন করা হবে ফেরত রথযাত্রার উৎসব। টানা ও ফেরত রথযাত্রার উৎসবে হাজার-হাজার হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন অংশ নিবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

এছাড়া রথযাত্রার উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে যোগদিচ্ছেন, বিভিন্ন দলের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সহ কচুয়া উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ। রথযাত্রার উৎসব উপলক্ষে এ বছরও কুঠিরজাত শিল্প সহ বিভিন্ন পণ্য সামগ্রীর মেলা বসছে। সাচার জগন্নাথধাম ও পূজা সাংস্কৃতিক সংঘের পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক বটু কৃষ্ণ বসু জানান- প্রতি বছরের মত এবারও মেলায় স্থান পেয়েছে ৫ শতাধিক ষ্টল। মেলার একটি বিশেষ বৈশিষ্ট হচ্ছে- হরেক রকমের ফার্ণিচারের মেলা। যা আলাদাভাবে বসেছে জগন্নাথ ধামের দক্ষিণ পার্শ্বে বিশাল পরিসরে। এটি চলবে মাস ব্যাপি। ফার্ণিচার সমূহ দেশীয় বাঁশ-বেত সহ সেগুন, মেহগণি, আকাশী, নিম ইত্যাদি মূল্যবান কাঠের তৈরী। তাছাড়াও ফার্নিচার তৈরীতে অত্যাধুনিক আকর্ষণীয় নানা নকশা নমূনা করা হয়েছে। ফলে এসব ফার্ণিচার ক্রয়ে ক্রেতা সাধারণের মধ্যে যথেষ্ট আগ্রহ পরিলক্ষিত হচ্ছে। সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে রথযাত্রার উৎসব পালনে সকল প্রকার প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। কচুয়া থানার ওসি মোঃ ওয়ালী উল্যাহ জানান- রথযাত্রা উৎসব শান্তিপূর্ণ ভাবে পালনে সকল প্রকার নিরাপত্তার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

সময় নিউজ২৪.কম/এএসআর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *