কমলগঞ্জে গণধর্ষনে শিকার ২ নারী ; সিএনজিসহ আটক-৭

শাহীন আহমেদ, কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার):

মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার রহিমপুর ইউনিয়নের দেওরাছড়া চা বাগান এলাকার নির্জন স্থানে গণধর্ষনের শিকার হলেন সিএনজি যাত্রী ২ নারী। ২০ ডিসেম্বর শুক্রবার রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ সাড়াশি অভিযান চালিয়ে মূল হোতা সিএনজি অটোরিক্সা চালক ইউসুফসহ ৭ জনকে আটক করেছে। ধর্ষিতরা মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। সেখানে তাদের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

কমলগঞ্জ থানা পুলিশ ও ধর্ষনের শিকার দুই নারী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার রাত সাড়ে ৭ টার দিকে দুই নারী ৩ বছরের একটি শিশুসহ মৌলভীবাজার শহরের পৌর পার্ক এলাকা থেকে কমলগঞ্জের মুন্সীবাজার ইউনিয়নের বিক্রমকলস গ্রামের বাড়িতে যাবার উদ্দেশ্যে সিএনজি অটোরিক্সা ভাড়া নেন। সিএনজিটি কালেঙ্গা বাজার এলাকা অতিক্রম করার পর চালক ১ জন যাত্রী তুলে। তখন নারীরা বাঁধা দিলে চালক জানায়, সে তার পরিচিত। সামনে নেমে যাবে। এক পর্যায় চালক সিএনজি সঠিক রাস্তায় না এনে নারীদের ভয় দেখিয়ে উল্টো পথে নিয়ে দেওরাছড়া চা বাগানের ৩১ নং সেকশন এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে পূর্ব থেকে ওত পেতে থাকা আরো ৬/৭ জন তাদেরকে সিএনজি থেকে নামিয়ে সন্তানের সামনে মাসহ দুই নারী যাত্রীকে জোরপূর্Ÿক ধর্ষণ করে।

আক্রান্তরা জানান, ধর্ষণ শেষ হলে তারা কৌশল করে চালককে বলেন, যা হবার হয়েছে এখন তাদের গন্তব্যে পৌছে দিতে। এতে চালক তাদেরকে নিয়ে মুন্সিবাজারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হলে বাবুর বাজার এলাকায় সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ খানের দোকানের পাশাপাশি পৌছার আগে এক নারী চালককে বলেন দোকানে তার জরুরী কাজ আছে। একটু থামতে হবে। তখন চালক দোকানের সামনে গাড়ী থামালে নারীরা চিৎকার শুরু করলে চালক সিএনজি রেখে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ এসে তাদেরকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য রাত ১১টার দিকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। রহিমপুর ইউপির সাবেক সদস্য আব্দুল মজিদ খান বলেন, আক্রান্তরা তার দোকানে প্রবেশ করে ঘটনাটি জানালে চালক পালিয়ে যায়। পরে তিনি ঘটনাটি কমলগঞ্জ থানা পুলিশকে জানান।

 

কমলগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত সুধীন চন্দ্র দাস জানান, এ ঘটনায় মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ পিপিএম(বার) এর নির্দেশে শ্রীমঙ্গল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জামান, কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান এর নেতৃত্বে পুলিশ শুক্রবার রাত থেকে শনিবার দুপুর পর্যন্ত কমলগঞ্জ ও মৌলভীবাজার সদরে অভিযান চালিয়ে মৌলভীবাজার-থ ১১-৮৫০৭ নাম্বার সহ দুটি সিএনজি এবং ৭ জনকে আটক করে।

 

আটককৃতরা হলো- মৌলভীবাজার সদর উপজেলার গোবিন্দশ্রী গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলাম এর ছেলে আলমগীর হোসেন (২৫), নিতেশ্বর গ্রামের আকলু মিয়ার ছেলে রুবেল মিয়া (২৭), গোবিন্দশ্রী গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিন এর ছেলে সিএনজি চালক ইউসুফ আলী (৩৫), নিতেশ্বর গ্রামের কমরু মিয়ার ছেলে মোঃ সলিম মিয়া (২৬), কমলগঞ্জ উপজেলার দেওরাছড়া বাগানের গুঙ্গিবিল লাইনের সবুজ উড়াং এর ছেলে রবিলাল উরাং (২০), রাশিটিলার নিতাই মুন্ডার ছেলে বিকাশ মুন্ডা (২৩) এবং কুরবান আলীর ছেলে আবু সুফিয়ান বাবুল (৪৫)। ওসি তদন্ত সুধীন চন্দ্র দাস আরও জানান, এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানায় একজন ধর্ষিতার স্বামী আল আমিন বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং -১৪। তারিখ ২১-১২-২০১৯ খ্রিঃ। আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরন করা হয়েছে।

সময় নিউজ২৪.কম/এএসআর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *