কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে শুক্রবার থেকে শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত গোলাপি টেস্ট ম্যাচ

 
Your personal, business or professional blog website is just a click away!

অনলাইন ডেস্কঃ

কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে শুক্রবার থেকে শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত গোলাপি টেস্ট ম্যাচ। ঐতিহাসিক এই টেস্টে গোলাপি বলে ফ্লাড লাইটে খেলাটা ব্যাটসম্যানদের জন্য অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং হবে বলে মনে করেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের স্পিন পরামর্শক ড্যানিয়েল ভেট্টোরি। তবে দিনের আলোতে বলের রঙ স্বাভাবিক থাকবে বলে মনে করেন তিনি।

বাংলাদেশের স্পিন পরামর্শক ভেট্টোরি মনে করেন, অত্যন্ত কঠিন সময়ে ব্যাটসম্যানদের অনেক বেশি সর্তক থাকতে হবে। কলকাতার ইডেন গার্ডেনে বাংলাদেশের প্রথম অনুশীলন সেশনে তিনি বলেন, ‘গোলাপি বলটি দিনের আলোতে স্বাভাবিক থাকবে। ফ্লাইড লাইটের আলোতে টেস্ট ম্যাচটি অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং হবে।’

ভেট্টোরি বলেন, ‘এখানে তাড়াতাড়ি অস্ত যায়। এ সময়ে গোলাপি বলে খেলা দেখবো। আমার অভিজ্ঞতা শুধুমাত্র টিভিতে দেখেই। সন্ধ্যা বেলায় বলে আরও বেশি ময়লা জড়াবে। সুতরাং আমি মনে করছি টেস্ট ম্যাচের এটাই হবে উত্তেজনাকর মুহূর্ত।’

ভেট্টোরি মতে, রাতের অংশে দলগুলোর কৌশল গুরুত্বপূর্ণ হবে। তিনি বলেন, ‘রাতের আলোয় দলগুলো ভিন্ন পরিকল্পনা করতে পারে।’

গোলাপি বলে বাংলাদেশ একটি ম্যাচ খেলেছে, সেটি ঘরোয়া আসরে ২০১৩ সালে। তবে ওই ম্যাচের কোন কিছুই মনে নেই খেলোয়াড়দের।
বাংলাদেশ-ভারত, দু’দলের জন্যই প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্ট এটি। বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত গোলাপি বলে তিনটি সেশন অনুশীলন করেছে। তবে ফ্লাইড লাইটের নিচে মাত্র একটি সেশন অনুশীলন করেছে। সেটি আবার ইন্দোরে।

সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টকে সামনে আজ বৃহস্পতিবার ফ্লাইড লাইটের নিচে শেষ বারের মত অনুশীলন করবে বাংলাদেশ।
গোলাপি বলে তিনটি সেশন অনুশীলন করে পেসাররা অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী এবং ভালো খেলার ব্যাপারে আশাবাদি।

ভেট্টোরি বলেন, ‘আমাদের চার পেসার সকলেই অনেক বেশি উত্তেজিত। এটি দুর্দান্ত একটি ব্যাপার। তবে বাংলাদেশের পেসাররা উত্তেজিত হওয়ার সুযোগ খুব বেশি পায় না। আমার মনে হয়, তাদের বলটি ভালো করে গ্রিপ করতে হবে। এসজি গোলাপি বল কিছুটা ভিন্ন ধরনের। অধিকাংশ খেলোয়াড়ের কোকাবুড়া বলের অভিজ্ঞতা রয়েছে। তবে আমি মনে করি,বিষয়টি নিয়ে দারুন উত্তেজনা আছে ।প্রচুর দর্শক এবং অনেক বেশি আগ্রহ। সুতরাং দল হিসেবে এখানে এটা আমাদের উপভোগ করতে হবে।’

বল আসবে আকাশ থেকে
ইডেনের উপরে উড়বে হিলিয়াম বেলুন। থাকবে বিশেষ দুটি মাসকট ‘পিংকু-টিংকু’। মজার বিষয় হলো টেস্ট শুরুর আগে বল আসবে আকাশ থেকে। ভারতীয় বিমান বাহিনীর আটজন প্যারাট্রুপার আটটি গোলাপি বল নিয়ে নামবে। তারা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে হস্তান্তর করবেন গোলাপি বল। এছাড়াও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী দুই দলের অধিনায়ককে গোলাপি বল হস্তান্তর করবেন। টসের সোনার তৈরি বিশেষ কয়েন ম্যাচ রেফারির হাতে তুলে  দেবেন দুই বাংলার দুই প্রধানমন্ত্রী। আর শুরুতেই দুই দেশের জাতীয় সংগীত বাজাবে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। শেখ হাসিনা ও মমতা ব্যানার্জি বাজাবেন ইডেনের ঘণ্টা।


Your personal, business or professional blog website is just a click away!

সময় নিউজ২৪.কম/এমএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *