কিশোরগঞ্জ পৌর মেয়র প্রার্থী বকুলের বিশাল শোডাউন

রাজিবুল হক সিদ্দিকী, কিশোরগঞ্জ
রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দ আশরাফুল ইসলামসহ বহু গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির নিজ শহর কিশোরগঞ্জ। তাই কিশোরগঞ্জকে বলা হয় ‘ভিআইপি পৌরসভা’। এ পৌরসভার নির্বাচনের দিকে অনেকেরই দৃষ্টি থাকে। প্রতিদ্বন্দ্বিতায়ও নামতে আগ্রহী বহু লোক।
নির্বাচনী প্রচারণায়  গণসংযোগের পাশাপাশি কিশোরগঞ্জ জেলা জুড়ে মিছিল-স্লোগানে ব্যাপক শোডাউন করেছে কিশোরগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, যুবলীগ কিশোরগঞ্জ জেলা শাখার সাবেক আহবায়ক, কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বকুল। তিনি এবারের কিশোরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রার্থী ।
কয়েক হাজার নেতাকর্মী আর সমর্থক নিয়ে অভূতপূর্ব জনস্রোত নিয়ে উন্নত কিশোরগঞ্জ  গড়তে কাজ করার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।
শনিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ পুরাতন স্টেডিয়াম এলাকা থেকে মিছিল এবং শোডাউন শুরু করেন নৌকা মার্কার মনোনয়ন প্রত্যাশি আমিনুল ইসলাম বকুল। এ সময় তার সঙ্গে হাজার হাজার নেতাকর্মী-সমর্থক অংশ নেন। গানের তালে-নৃত্যে-স্লোগানে নৌকার পক্ষে ভোট চান তারা।
আওয়ামী লীগের বাইরেও দলটির বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের ভিড়ে একপাশের সড়ক তখন জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে। আগে থেকেই দুটি খোলা ট্রাক একত্র করে অস্থায়ী মঞ্চ তৈরি করা হয়েছিল।
কিশোরগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কিশোরগঞ্জের বিশিষ্ট সমাজসেবক, বিনোদন বাংলা টিভির চেয়ারম্যান এড. হামিদুল আলম চৌধুরী নিউটনের সভাপতিত্বে এবং কিশোরগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ নেতা আজিজুল হাকিম রাফির নেতৃত্বে বিশাল মিছিল এসে জড়ো হয় শোভাযাত্রায়। দুপুর ১ টায় শোভাযাত্রা শুরু হওয়ার আগেই সমাবেশস্থল রূপ নেয় জনসমুদ্রে। পরে মিছিলটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আঠারবাড়ি কাচারিতে গিয়ে শেষ হয়। এসময় নেতাকর্মীরা মেয়র পদে কাকে ভাই সেতো মোদের  বকুল ভাই স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে তোলে আশপাশের এলাকা।
পৌর নির্বাচনের এখনও সময় অনেক বাকি। তবে প্রাথমিক প্রচার ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে। কিশোরগঞ্জ পৌরসভার বর্তমান নির্বাচিত প্রতিনিধিদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ফেব্রুয়ারিতে। এর আগেই এখানে নির্বাচন হওয়ার কথা। গত ঈদুল আজহা থেকেই মেয়র প্রার্থীদের সরব প্রচার চলছে।
সম্প্রতি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা শহরে রং-বেরংয়ের ফেস্টুন-ব্যানার টানিয়ে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করছেন। পাশাপাশি ভোটারদের সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎসহ নানা কর্মসূচিতে উপস্থিত হয়ে নিজেদের অবস্থান জানান দিচ্ছেন। জানা গেছে, আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাইবেন দলের অন্তত ১২ নেতা।
গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে মেয়র নির্বাচিত হন  মাহমুদ পারভেজ। ভোটারদের আশা ছিল, পারভেজ পৌরসভায় বড় ধরনের পরিবর্তন আনবেন। তার সাফল্য-ব্যর্থতা নিয়ে ভোটারদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া রয়েছে। পৌরবাসীর একটি অংশ মনে করেন, তিনি মেয়র হওয়ার পর শহরের সার্বিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড গতি পেয়েছে। তবে কাউন্সিলরদের অসহযোগিতার কারণে তিনি কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন করতে পারেননি। আরেক অংশ মনে করেন, তিনি পৌরসভার উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য তেমন চোখে পরার মত ভূমিকা রাখতে ব্যর্থ হয়েছেন।
আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা এবার পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হওয়ার আকাঙ্ক্ষা জানিয়ে সারা শহরে ফেস্টুন-পোস্টার সেঁটেছেন। বর্তমান মেয়র পারভেজও আগামী নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চাইবেন।
আওয়ামী লীগের দলীয় মনোয়ন প্রত্যাশি কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বকুল বলেন দীর্ঘদিন রাজপথে রাজনীতি করেছি অনেকসময় আওয়ামীলীগের স্বার্থে প্রিয় নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য কারাবরণ করেছি এতে আমার বিন্দুমাত্র দুঃখ নেই। যা করেছি আওয়ামীলীগ কে এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ভালোবেসে করেছি। নেত্রীর পদতলে থেকে বাকিটা জীবন রাজনীতিতেই কাটাতে চাই। তিনি আরো বলেন আমি নৌকা মার্কা পেলে এবং জনগনের রায়ে মেয়র নির্বাচিত হতে পারলে, আধুনিক কিশোরগঞ্জ গড়ে তুলবো, শহরকে যানযট মুক্ত করবে, ময়লা আবর্জনা রাস্তায় পরে থাকবেনা তাছাড়া আরো মাদক সন্ত্রাস ইভটিজিং রোধে তিনি কাজ করে যাবেন, এবং কিশোরগঞ্জ পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে ফ্রি ওয়াইফাই জোন গড়ে তুলবেন।
এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কিশোরগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক, বিনোদন বাংলা টিভির চেয়ারম্যান এড. হামিদুল আলম চৌধুরী বলেন বকুল কারানির্যাতিত রাজপথ কাপানো নেতা। রাজপথেই তার ঠিকানা আমার সহযোদ্ধা বকুলকে আমি ছোটবেলা থেকেই চিনি, আমি চাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তার রাজপথে ঘামের মূল্যায়ন করবেন এবং সেই সাথে তাকে মেয়র পদে আওয়ামীলীগের  দলীয় মনোয়ন দিয়ে জনগনের সেবা করার সুযোগ দিবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *