কি অপরাধ গণমাধ্যমকর্মীদের?

মীর মারুফ তাসিন:

গত কয়েকদিন ধরে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে দেখতে পাচ্ছি যে গণমাধ্যমকর্মীদের ছাঁটাই করা হবে। কি অপরাধ গণমাধ্যমকর্মীদের! কেন তাঁদের ছাঁটাই করার কথা চিন্তা করছে গণমাধ্যম হাউজগুলো। এই মহামারি করোনাভাইরাসের সময়েও গণমাধ্যমকর্মীরা দিনের পর দিন ঝুঁকি নিয়ে তথ্য সংগ্রহ করে গণমাধ্যমে প্রচারিত করছে।তাঁদের অপরাধ হলো কি এই যে তাঁরা কেন এ মহান পেশা বেছে নিল!

দেশের প্রথম সারির কিছু টেলিভিশন চ্যানেল ও পত্রিকা কয়েকজনকে ছাঁটাই করেছে এবং আরো ছাঁটাই করার তালিকা করছে বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে শুনছি।

আমি মনে করি,আপনারদের প্রতিষ্ঠানে যারা কর্মরত আছে তাঁদেরকে অবশ্যই বেতন দিয়ে থাকেন। মহামারি কোভিড ১৯ কারণে তিন মাস সাধারণ ছুটি থাকার কারণে একটু ক্ষতি হতে পারে এটা স্বাভাবিক। তাই বলে এর কারণে আপনারা আপনারদের প্রতিষ্ঠান থেকে গণমাধ্যমকর্মী ছাঁটাই করবেন এটা হতে পারে না। এই মহামারি সময় তাঁদেরকে ছাঁটাই না করে তাঁদের পাশে থাকা উচিত বলে আমি মনে করি।

একজন গণমাধ্যমকর্মী আপনার প্রতিষ্ঠানে কাজ করে। তার বেতন না দিতে পারলে তাঁকে ছাঁটাই করে দিবেন এটা হতে পারে না। আপনার এই প্রতিষ্ঠানে মাধ্যমে আপনার পরিবার চলে ঠিক যেমনি মনে রাখা উচিত এই পেশা মাধ্যমে এক গণমাধ্যমকর্মী তাঁর পরিবারকে চালাতে হয়।

এই ছাঁটাই প্রতিবাদে সোশ্যাল মিডিয়াতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষকগণ তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন এবং অবিলম্বে এই ছাঁটাই বন্ধ করা আহবান জানান।তাই একটি কথা বলে শেষ করতে চাই,সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা। এই পেশা মাধ্যমে জনগনের কাছে সকল তথ্য পৌঁছে দেওয়া হয়। আপনারা ছাঁটাই না করে অন্য বিকল্প চিন্তা করুন।

প্রয়োজনে বেতনসহ সকল সুযোগ সুবিধা আস্তে আস্তে প্রদান করুন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে দাবি জানান যেন আপনারদের জন্য একটা প্রণোদনা ব্যবস্থা করে দিলে আপনার গণমাধ্যম হাউজের জন্য অনেক উপকার হবে এবং আপনাদের কর্মরত যারা আছে তাদেরও ভালো হবে বলে আমি মনে করি। তাই সাংবাদিকতা শিক্ষার্থী হিসেবে গণমাধ্যমকর্মী ছাঁটাই বন্ধ জোর দাবি জানাই।

লেখক:

মীর মারুফ তাসিন
মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি
জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগ।

সময়নিউজ২৪.কম/ বি এম এম 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *