কেরুজ স্যানিটাইজার উৎপাদন বন্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

আকিমুল ইসলাম চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ 
 বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাবে যখন সবার কপালে ভাঁজ পড়েছে, ঠিক তখন দর্শনা কেরুজ চিনিকল কর্তৃপক্ষ মানবসেবায় শুরু করেছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদন। কেরুজ চিনিকলের হ্যান্ড স্যানিটাইজার নিয়ে রীতিমতো হইচই পড়ে যায় দেশব্যাপী।
চাহিদা মোতাবেক মালামাল সরবরাহ করতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হচ্ছে কর্তৃপক্ষকে। মুনাফা অর্জন নয়, সামাজিক দায়বদ্ধতা এবং মানবতার সেবায় চিনিকল কর্তৃপক্ষ এ উদ্যোগ গ্রহণ করে। এই যখন অবস্থা, ঠিক তখনই যেভাবে ষড়যন্ত্র করে চিনিকলের ওষুধ বিভাগটা বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল, একইভাবে এই পণ্যটিও বন্ধ করার ষড়যন্ত্রে নেমেছে দেশের কিছু নামী-দামি ওষুধ কোম্পানি। গুণগত মান এবং বাজারমূল্য তুলনামূলক কম হওয়ায় ওষুধ কোম্পানিগুলোর গাত্রদাহ শুরু হয়ে গেছে।
তবে কেরুজ চিনকল কর্তৃপক্ষ জানায়, মানুষের কল্যাণে যেটা একবার শুরু হয়েছে, সেটা যেন কোনো ক্রমেই কুচক্রীমহল বন্ধ করতে না পারে। এ জন্য তারা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট জোরালো আবেদন জানিয়েছেন, শুধু দেশের স্বার্থে এ উদ্যোগ যেন চালু রাখা হয়।
দর্শনা কেরুজ চিনিকলটি জেলার একমাত্র অর্থনৈতিক চালিকাশক্তি হিসেবে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে ৮২ বছর ধরে। রাষ্ট্রায়ত্ত যত চিনি শিল্পকারখানা আছে তার মধ্যে ‘দর্শনা কেরুজ চিনিকল’ অন্যতম একটি প্রতিষ্ঠন; যা বাংলাদেশ কেরু অ্যান্ড কোম্পানি নামে পরিচালিত। বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্যশিল্প করপোরেশনের আওতায় এটি পরিচালিত হয়ে থাকে। এখানে চিনি উৎপাদনের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্রান্ডের অ্যালকোহল তৈরি হয়; যা দেশ ও দেশের বাইরে বেশ সমাদৃত।
বর্তমানে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্ব করোনাভাইরাসের জীবাণু ধ্বংসে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে। ঘনঘন সাবান বা হ্যান্ড ওয়াশ দিয়ে হাত ধোয়া কিংবা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করার ব্যাপারে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে; যা ব্যবহার করে হাত ও মুখ নিরাপদ রাখার মাধ্যমে এই ভাইরাসের আক্রমণ ঠেকানো যায়। বর্তমান প্রেক্ষাপট উপলব্ধি করে দর্শনা কেরুজ চিনিকল কর্তৃপক্ষ এই মহতি উদ্যোগ গ্রহণ করে। কয়েক দিনের নিজস্ব গবেষণায় নিজেদের উৎপাদিত ইথাইনল এবং ডিস্টিল ওয়াটার ও গ্লিসারিন এবং রং ব্যবহার করে হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদনের পরিকল্পনা গ্রহণ করেন তারা। পরিকল্পনা অনুযায়ী ৯৯ ভাগ জীবাণুমুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরিও করছে কর্তৃপক্ষ। যার মধ্যে ৭০ ভাগ ইথাইনাল, ২৫ ভাগ ডিস্টিল ওয়ার্টার, ২ ভাগ হাইড্রোজেন-পার-অক্সাইড আর ৩ ভাগ রয়েছে রঙ, গ্লিসারিন ও ফ্লেবার। এটি সবার ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে রাখতে ১০০ মিলি বোতল ৬০ টাকা খুচরা মূল্য এবং ৫০ টাকা পাইকারি মূল্য নির্ধারণ করে দেয়া হয়।
একটি সূত্র জানায়, দর্শনা কেরুজ চিনিকলে একসময় উৎপাদিত হতো কয়েক প্রকার ওষুধ। যার মান ও কার্যকারিতা ছিল দেশ সেরা এবং মূল্যও ছিল খুব কম। কেরুজ চিনিকলের উৎপাদিত ওষুধের চাহিদা বাজারে দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ায়, এর পেছনে লাগে দেশের ওষুধ প্রশাসনসহ নামী-দামি ওষুধ কোম্পানি। ষড়যন্ত্রে সফলতাও মেলে।
ওষুধ প্রশাসনের অনুমতি না মেলায় ২০০৩ সালে বাধ্য হয়ে ওষুধ বিভাগটি বন্ধ করে দিতে হয় চিনিকল কর্তৃপক্ষকে। এখানে প্রায় ১২০ প্রকার বিভিন্ন ধরনের ওষুধ উৎপাদিত হতো। তারই ধারাবাহিকতায় বর্তমানে চিনিকলের উৎপাদিত হ্যান্ড স্যানিটাইজার বাজার দখল করে ফেলেতে পারে, এ আশঙ্কায় নামী-দামী ওষুধ কোম্পানিগুলো দেশের ওষুধ প্রশাসনের কানে নানা মন্ত্র দিতে শুরু করেছে; যাতে করে ওষুধের মতো আইনের মারপ্যাঁচে ফেলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদনও বন্ধ করে দেয়া যায়।
ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে বর্তমান বাজারে বিক্রি হওয়া হ্যান্ড স্যানিটাইজারের মধ্যে আছে মেসার্স এসকেএফ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড ৫০ মিলি বোতলের মূল্য ৪০ টাকা, মেসার্স অ্যাডভান্স কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ৫০ মিলি বোতলের মূল্য ১০০ টাকা, মেসার্স ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৫০ মিলির মূল্য ৪০ টাকা, মেসার্স জেনারেল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৫০ মিলি বোতলের মূল্য ৪০ টাকা, গ্রিনল্যান্ড ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৫০ মিলি বোতলের মূল্য ৪০ টাকা, স্কায়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড ৫০ মিলি বোতলের মূল্য ৪০ টাকা ও অপসোনিন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড ৫০ গ্রাম বোতলের মূল্য ৩১.২২ টাকা। সে হিসাবে কেরুজ ১০০ মিলি হ্যান্ড স্যানিটাইজারের পাইকারি মূল্য ৫০ টাকা।
বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্যশিল্প করপোরেশনের সচিব (চলতি দায়িত্ব) আবদুল ওয়াহাব বলেন, হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদন কেউ ষড়যন্ত্র করে বন্ধ করতে পারবে না। বিষয়টি রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ মহল পর্যন্ত তদারকি করছে।
চিনিকলের নবাগত ব্যাবস্থাপনা পরিচালক আবু সাঈদ বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতা এবং মানব কল্যাণে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করা হচ্ছে। ভালো কিছুর পেছনে যে কারো ষড়যন্ত্র থাকতে পারে। তাই বলে ষড়যন্ত্রের কাছে কল্যাণকর কাজ বন্ধ হতে পারে না।
সময়নিউজ২৪.কম/ বি এম এম 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *