গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে জমিজমা সংক্রান্ত জের ধরে দফায় দফায় সংঘর্ষ।। নারীপুরুষসহ আহত ২২

Search and buy domains from Namecheap
https://www.namecheap.com/domains/domain-name-search.aspx

সরকার লুৎফর রহমান,গাইবান্ধা 
গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার মহদীপুর ইউনিয়নের দূর্গাপুর গ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত জের ধরে উভয় পক্ষের সংঘর্ষে আহত নারী-পুরুষসহ ২২ জন।
জানা যায়, আনোয়ারুল ইসলাম ও বাবুল হোসেন ওরফে শুকুর আলী গং এর সাথে এক একর পঁচাত্তর শতাংশ জমি নিয়ে একটি মামলা সংক্রান্তের জের ধরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। দিনব্যাপী কয়েকবার সংঘর্ষের খবর পাওয়া যায়। 

১৩ আগষ্ট মঙ্গলবার সকালে আনোয়ারু ইসলাম তাঁর লোকজন নিয়ে চলমান মামলার জমিতে ধান রোপন করতে গেলে শুকুর আলী গং বাধা দেওয়া ফলে এ সংঘর্ষ বাঁধে। 

এ সংঘর্ষে আহতরা হলেন, শুকুল আলী (৬০) পিতা আজিজার রহমান, সৈয়দ আলী (৫৩)পিতা আহম্মদ আলী, সাহেব মিয়া (৭২) পিতা মফিজ উদ্দিন, রেজাউল মিয়া (২৮) পিতা সাহেব মিয়া, মিজানুর রহমান (৩০) পিতা সাহেব আলী, শরিফুল ইসলাম (৩৫) পিতা সাহেব মিয়া, অন্তর মিয়া (২৫) পিতা শুকুর আলী, মোছা : পারভিন নেগম (২৫) স্বামী জাকিরুল ইসলাম, ফিরোজা (৫৫) স্বামী হোসেন আলী, গোলাপি বেগম (৩০) স্বামী শুকুর আলী, সাবিয়া আক্তার (১৮) পিতা শুকুর আলী।

অপরদিকে আনোয়ারুল ইসলাম (৩৫) পিতা মৃত জসিমউদ্দিন, মোশারফ মিয়া  (২৪) পিতা মতিন, সাগর (২৪) পিতা শাহ আলম, রুবেল (৩৫) গোলা মন্ডল, ফারুক মন্ডল পিতা শহিদুল, ফরহাদ পিতা শহিদুল, লাভলি বেগম (৩৪) স্বামী হারুন,ফেন্সি বেগম স্বামী আশরাফুল আহত। 

এ ঘটনায় শুকুর আলী গং এর মোট ১০ জন নারী পুরুষ পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি চিকিৎসা নিচ্ছেন। অনোয়ারুল গং হাসপাতালে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

আনোয়ারুল গংরা জমি সংক্রান্ত এ মামলায় একটি রায় পাওয়ার পর এ বিষয়ে একাধীকবার হামলা ও পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটেছে ইতিপূর্বে।

এ বিষয়ে স্থানিয়ভাবে একাধীকবার মিটিং দরবার হয়েছে এবং আগামী ২০ আগষ্ট পলাশবাড়ী থানায় দু-পক্ষের একটি আলোচনা হওয়ার কথা আছে বলে জানা যায়। এমন আলেচনার আগেই কেনো জমিতে উভয় পক্ষ কেনো সংঘর্ষে লিপ্ত হলেন।সংঘর্ষের খবর পেয়ে পলাশবাড়ী থানা পুলিশের এসআই সঞ্জয় কুমার ও তার নেতৃত্বে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। 

এ ঘটনার জের ধরে শুকুর আলী গং এর জামাই মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা আমজাদ হোসেনের বাড়ীতে হামলা ও ইট পাটকেল নিক্ষেপেরর ঘটনা ঘটে এবং পরিরটিকে কোনঠাসা করে রাখে। এ সময় আঁখী আক্তার (২৫) আহত হয়।

সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর এমন হামলা কেনো? আবু হানিফ ঢাকায় চাকুরীরত আছেন পুরুষশুন্য এ বাড়ীতে হামলা করেছে সন্ত্রাসীরা। আমরা বাধ্য হয়ে কয়েকজন মেয়ে কোনার একটি ঘরে অবস্থান নিয়েছিলাম।

আমরা মুক্তিযোদ্ধা পরিবারটি এ হামলার বিচার চাচ্ছি বলেন,সুরভী আকতার। তিনি জানান, হামলাকারীরা হলেন, ফিরোজ মন্ডল (৩৮) পিতা গোলা, মজনু মিয়া (৫৫) পিতা গোলা, মকছুদুল হক পিতা খোকা মন্ডল, তুহিন মন্ডল পিতা তাঁরা মন্ডল আনোয়ারুল ইসলাম পিতা জসিমুদ্দিন, মনছুর আলী পিতা করিম উদ্দিন এ বাড়ীতে হামলা করেছে।

সকালের এ সংঘর্ষে আহত রুবেল মিয়ার (৪৪) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার খবরে পেয়ে তাঁর মেয়ে জামাই আলমগির হোসেন (৩৫) হাসপাতালে উপস্থিত হলে প্রতিপক্ষের কয়েকজন তাঁকে মারপিট করে। এ ঘটনার পর জামাই শশুর নীজ বাড়ীতে ফিরে আসেন ও চিকিৎসা নিচ্ছেন। আহত জামাই সাদুল্যাপুর উপজেলার জানিপুর গ্রামের নইমুূদ্দিন এর পুত্র।

এ ঘটনার পর জামাই এর উপর হামলার প্রতিবাদে শুকুর আলী গং এর মেয়ে জামাই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পুত্র আবু হালিম এর বাড়ীতে হামলা করেছে বিরোধী পক্ষ। এমন হামলায় পুরুষশুন্য মুক্তিযোদ্ধা পরিবারটি আতঙ্কে আছে বলে সাংবাদিকদের জানান, কন্যা সুরভী আক্তার।এ ঘটনায় উভয়পক্ষ মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা যায়। 

এ বিষয়ে পলাশবাড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ মাসুদুর রহমান জানান,দুর্গাপুর জমিজমা সংক্রান্ত যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে সেখানে পুলিশি টহল ও গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে নজরদারীতে রাখা হয়েছে যেনো পূনরায় এমন সংঘর্ষের ঘটনা না ঘটে।
সময়নিউজ২৪.কম/ বি এম এম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *