গাইবান্ধায় চাচা কর্তৃক ভাতিজি’কে ধর্ষণ।।থানায় অভিযোগ

সরকার লুৎফর রহমান,গাইবান্ধাঃ
গাইবান্ধায় চাচা কর্তৃক ধর্ষণের স্বীকার হয়েছেন ৬ষ্ঠ শ্রেণী পড়ুয়া এক কিশোরী। ঘটনাটি ঘটেছে সদর উপজেলার খামার টেংগরজানী গ্রামে।
অভিযুক্ত ধর্ষক লিয়ন মিয়া (২০) নির্যাতিতা ছাত্রীটির সম্পর্কে চাচা। স্বজনদের অভিযোগ, প্রতিবেশী সাহেব মিয়ার ছেলে বখাটে লিয়ন মিয়া সম্পর্কে চাচা হলেও দীর্ঘদিন থেকে মেয়েটিকে বিয়ের প্রলোভনে বিভিন্ন সময় অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। লম্পট লিয়নের পরিবারকে একাধিকবার এ বিষয়টি জানালেও তারা কোন ব্যবস্থা নেননি।
গত মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) রাতে মেয়েটি পাশের বাড়ীতে টেলিভিশন দেখতে যায়। রাত ৮ টার দিকে মেয়েটি প্রকৃতির ডাকে সারা দিতে ঘরের বাহিরে বের হলে আগে থেকে ওৎপেতে থাকা লম্পট লিয়ন মেয়েটির মুখ চেপে ধরে পার্শ্ববর্তী মামুন মিয়ার একটি নির্মাণাধীন ঘরে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এসময় মেয়েটি চিৎকার-চেচামেচি করতে চাইলে গামছা দিয়ে তার মুখ বেঁধে ফেলে। ধর্ষণ করার পর এ ঘটনা কাউকে না জানাতে মেয়েটিকে ভয়ভীতি ও জীবন নাশের হুমকী দিয়ে লম্পট লিয়ন পালিয়ে যায়। এরপর মেয়েটি রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়ী ফিরে কান্নাকাটি করলে ঘটনাটি জানতে পারে তার পরিবার। এসময় মারাত্বক আহত ও রক্তাক্ত অবস্থায় মেয়েটিকে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে তার পরিবার।
এ ঘটনায় নির্যাতিতা মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। এদিকে অভিযুক্ত ধর্ষক গ্রেফতার না হওয়ায় নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী মেয়ের পরিবার।
সদর থানার ওসি খান মো. শাহরিয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
সময়নিউজ২৪.কম/ বি এম এম 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *