গো মাতা কি জয়! না বলায় ৬ মুসলিমকে সাপের মতো পিটালো হিন্দুরা

অনলাইন ডেস্ক:

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, হাঁটু গেড়ে, কান ধরে রাস্তায় সার বেঁধে বসিয়ে রাখা হয়েছে ২৪ জনকে। প্রত্যেকের হাত একে অপরের সঙ্গে দড়ি দিয়ে বাঁধা। পালিয়ে যাওয়ার উপায় নেই। মাঝে মাঝেই লোকগুলোর উপর পড়ছে এলোপাথাড়ি লাঠির বাড়ি। শোনা যাচ্ছে হুঙ্কার- ‘জয় শ্রীরাম’।

ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনুনয় করলেও ভ্রুক্ষেপ নেই তাদের ঘিরে দাঁড়ানো দলটির। উল্টে তারা প্রহৃতদের শাসাচ্ছে, ‘বল, গো মাতা কি জয়!’ ভারতে আবারও সহিংসতার শিকার হল মুসলমানরা। এবার গরু পাচার করার অভিযোগে ৬ জন মুসলিমসহ ২৪ জনকে একসঙ্গে বেঁধে, রাস্তায় হাঁটু মুড়ে, কান ধরে বসিয়ে গণপিটুনি দেয়ার অভিযোগ উঠল গোরক্ষকদের বিরুদ্ধে। রোববার মধ্যপ্রদেশের খান্ডোয়া জেলার সাভালিকেড়া গ্রামে এই সহিংসতার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গোরক্ষকদের ছেড়ে উল্টো আক্রান্তদেরকেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় হামলাকারীদের কাউকেই গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। বরং আক্রান্তদের বিরুদ্ধেই মামলা দায়ের করে তাদের সবাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশের দাবি, হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তার পর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।


জেলা পুলিশ সুপার শিবদয়াল সিংহ দাবি করেন, আক্রান্তরা মেলায় গরু নিয়ে যাওয়ার দাবি করলেও, তেমন কোনও প্রমাণ দিতে পারেননি। তিনি বলেন, ‘আক্রান্তদের কাছে কোনও বৈধ কাগজপত্র ছিল না। এবং যে গাড়ি করে গরুগুলো নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, সেটারও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাওয়া যায়নি। মধ্যপ্রদেশ গোবংশ বধ প্রতিষেধ অধিনিয়ম-এ আক্রান্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদের সবাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’


এই মধ্যপ্রদেশেই গত মে মাসে গোরুর গোশত রাখার অভিযোগে রিকশা থেকে টেনে নামিয়ে মারধর করা হয় দুই মুসলমান যুবক ও এক মুসলমান মহিলাকে। বার বার একই ঘটনা ঘটছে, তার পরেও দোষীরা কিভাবে ছাড় পেয়ে যাচ্ছে তা নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েছে রাজ্য প্রশাসন।

সময় নিউজ ২৪.কম/এএসআর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *