চাঁদপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ডা. দীপু মনির সমর্থনে সমাবেশ

কাজী মোরশেদ আলম
চাঁদপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ডা. দীপু মনির সমর্থনে শান্তি ও সমৃদ্ধির পথে বাংলাদেশ্  শীর্ষক ব্যবসায়ী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ২৫ ডিসেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজারস্থ চেম্বার ভবন প্রাঙ্গণে চাঁদপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ডা. দীপু মনির সমর্থনে সকল শ্রেণির ব্যবসায়ী স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাখেন সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব ডা. দীপু মনি। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, সহ- সভাপতি আলহাজ্ব বিল্লাল হোসেন আখন্দ ও যুগ্ম সম্পাদক আহছান উল্লাহ আখন্দ। চাঁদপুর চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে এবং সহ-সভাপতি তমাল কুমার ঘোষের সঞ্চালনায় সমাবেশে ডা. দীপু মনি বলেন, চাঁদপুরবাসী আমাকে ভালোবাসে। এজন্যে আমি নিজেকে চাঁদপুরবাসীর সেবায় উৎসর্গ করে দিয়েছি। রাত-দিন মানুষের সেবায় তাদের পাশে থাকার চেষ্টা করছি। দলের নেতা-কর্মী এবং আমার পরিবারের লোকেরা প্রায় একটি কথা বলেন, এতো পরিশ্রম করতে তোমার কি কষ্ট হয় না? বিশ্বাস করুন, রাতে ঘুমোতে গেলে আমার শরীরের প্রতিটা হাড্ডিতে এই পরিশ্রমের কষ্ট টের পাই। কিন্তু আমি চিন্তা করে সচেতনভাবেই রাজনীতিতে ঢুকেছি। আমি একাধারে চিকিৎসক ও আইনজীবী হয়েছি বুঝে শুনে রাজনীতি করবো বলে। আর সেজন্যই জনসেবায় পরিশ্রম করতে আমার কোনো কষ্ট হয় না। দীপু মনি তাঁর বক্তব্যে এই দশ বছরে চাঁদপুর ও হাইমচরে বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর সংক্ষিপ্ত বিতরণ তুলে ধরেন। এছাড়া বাস্তবায়নাধীন উন্নয়ন কথাও তিনি তুলে ধরেন। ডা. দীপু মনি ২৪ ডিসেম্বর তার বাড়িতে হামলা প্রসঙ্গে বলেন, বিএনপি-জামাত এবং ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী নিজে নেতৃত্ব দিয়ে আমার বাড়িতে হামলা করালেন। সেখানে একটি রাজনৈতিক দলের প্রার্থী আরেকটি রাজনৈতিক দলের প্রার্থীর বাড়িতে নিজে মিছিল নিয়ে গিয়ে হামলার ঘটনা চাঁদপুরে আগে কখনো হয়নি। পরাজয় নিশ্চিত জেনে কি তিনি এটা করেছেন? চাঁদপুরের মানুষ শান্তিপ্রিয়, এ শহর সন্ত্রাস জঙ্গিবাদের জনপদ হোক এটা আমরা চাই না, সহিংসতায় বিশ্বাস করি না। রাজনৈতিক শিষ্টাচার, ভদ্রতা, সহনশীলতা এবং সহিষ্ণুতা দীপু মনির দুর্বল দিক নয়, দীপু মনির সাথে চাঁদপুরের মানুষ আছে। তাদের ইট- পাটকেল, বোমাবাজির বিরুদ্ধে জনগণ ৩০ তারিখ ব্যালটের
মাধ্যামে নৌকায় ভোট দিয়ে এই অপশক্তিকে পরাজিত করবে। ডা. দীপু মনি এমপি তাঁর বক্তব্যের শুরুতেই এমন একটি আয়োজনের জন্যে চাঁদপুর চেম্বার তথা সকল ব্যবসায়ীর প্রতি ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, গত ১০ বছরে এ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে আমার প্রতি আপনাদের সমর্থন ছিলো। এজন্যে আপনাদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শেষ করা যাবে না। তিনি বলেন, চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে আমার প্রতি আপনাদের মূল দাবি ছিলো নদী ভাঙ্গন থেকে চাঁদপুরকে রক্ষা করা। আমি মনে করি বিগত দিনে যারা এ আসনের এমপি ছিলেন তারা যদি নিজেদের দায়িত্ব পালন করতেন তবে এ অঞ্চলের শত শত পরিবার ভিটেমাটিহীন হতো না। আপনাদের দোয়ায় আমি তা করতে সক্ষম হয়েছি। আমিও যদি আমার দায়িত্ব পালন করতে না পারতাম তবে এই নদী ভাঙ্গন কোথায় গিয়ে ঠেকতো তা মহান আল্লাহ ভালো জানেন।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব মোস্তাক হায়দার চৌধুরী, বিশিষ্ট চিকিৎসক ও নাগরিক কমিটির অন্যতম সদস্য ডা. এসএম মোস্তাাফিজুর রহমান, চাঁদপুর চেম্বারের পরিচালক ও জেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক সালাহ উদ্দিন মো. বাবর, পৌর কাউন্সিলর ও জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মোহাম্মদ আলী মাঝি, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি রাধা গোবিন্দ গোপ, সিনিয়র সহ-সভাপতি নূরুল ইসলাম নূরু, পৌর প্যানেল মেয়র ছিদ্দিকুর রহমান ঢালী, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবু, চাল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব আবুল কাশেম গাজী, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল আলম পাটওয়ারী, চাঁদপুর চেম্বারের পরিচালক গোপাল চন্দ্র সাহা, জেলা মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের সভাপতি মো. জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া, পৌর আওয়ামী লীগ সদস্য মোঃ নাসির উদ্দিন খান, ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আসলাম গাজী, সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন মানিক, মেশিনারীজ ব্যবসায়ী নেতা মোঃ সফিকুর রহমান প্রমুখ।

সময়নিউজ২৪.কম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *