জেলার কারারক্ষী কারাগারে: ভয়ে প্রিজনের স্ত্রীর মাধ্যমে রেটে বেধে ঘুষ যোগফল টাকা

 DreamHost

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

কারাগারে এক কয়েদির মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ওই সময় দায়িত্বে থাকা জেলার ও দুই কারারক্ষীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। তারা হলেন সাবেক জেলার আক্তার হোসেন ও সাবেক প্রধান কারারক্ষী আলামীন ও গঞ্জের আলী। আক্তার হোসেন বর্তমানে পিরোজপুর জেলা কারাগারে জেলার হিসেবে কর্মরত আছেন বলে জানা গেছে। আর আলামিন যশোর জেল খানায় প্রধান কারারক্ষীর দায়িত্ব পালন করছেন। অপর আসামি গঞ্জের অবসরে রয়েছেন। এ আদেশ দেন জেলা ও দায়রা জজ এসএম আব্দুস সালাম। এ দিন তারা আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন আবেদন করলে বিচারক তা নামঞ্জুর করেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ৩ অক্টোবর গাংনী উপজেলার বালিয়াঘাট গ্রামের জামিরুল ইসলামকে মাদক মামলায় কারাগারে পাঠানো হয়। এরপর ১৭ অক্টোবর জামিরুলের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী শাহীনা খাতুন বাদী হয়ে মেহেরপুর আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। পরে আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশকে তদন্ত করার নির্দেশ দেয়। তিন বছরে পুলিশ তিনবার মামলাটির তদন্ত করে আদালতে রিপোর্ট দাখিল করলেও আদালত তদন্ত রিপোর্ট গ্রহণ না করে উচ্চতর তদন্তের জন্য সিআইডিকে নির্দেশ দেয়।

সিআইডির যশোর অঞ্চলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেশমা সারমিন দীর্ঘ তদন্ত শেষে চলতি বছরের ১৯ আগস্ট আদালতে হত্যার কথা উল্লেখ করে একটি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এরপর আদালত আসামিদের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে। আজ আসামিরা আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে বিচারক তিনজনকে কারাগারে পাঠানোর নিদের্শ দেন।

চার বছর আগে মেহেরপুর কারাগারে এক কয়েদির মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলায় জেলার ও দুই কারারক্ষী কারাগারে। স্ত্রীর মাধ্যমে ঘুষ নেন ডিআইজি প্রিজন মাধ্যমে লেনদেনের তথ্য ফাঁস হয়েছে। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পাঠানো এসব টাকা তুলেছেন তার স্ত্রী রাজ্জাকুন নাহার। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ডিআইজি (প্রিজন) বজলুর রশীদের বিষয়ে খোঁজ নিতে মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন বলে জানা গেছে। এই অবৈধ উপার্জনের কথা স্বীকার করেছেন ডিআইজি প্রিজন বজলুর রশীদ- এমন একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে দৈনিকটি।

এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে বজলুর রশীদ আমাদের কাছে দাবি করেন, এসব অভিযোগ বানোয়াট। তিনি বলেন, ‘আমি দুটি দুর্নীতির তদন্ত করেছি। যারা এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত তারাই এই নিউজ করিয়েছে। সবকিছু বানোয়াট।’ তিনি প্রতিবেদনটির বিরুদ্ধে প্রতিবাদপত্র পাঠিয়েছেন বলে জানান।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘুষের টাকা লেনদেন করতে ডিআইজি প্রিজন বজলুর রশীদ প্রকৃত ঠিকানা গোপন করে স্ত্রীর নামে মোবাইল ফোনের সিম তোলেন। সরাসরি টাকা না পাঠিয়ে ঘুষ চ্যানেলের সোর্স ব্যবহার করেন তিনি। ঘুষের বিষয়ে প্রথমে অস্বীকার করলেও তার স্ত্রীর কাছে পাঠানো টাকার একাধিক মানি রিসিটের কপি দেখালে ডিআইজি প্রিজন বজলুর রশিদ অপরাধ মেনে নেন বলে প্রতিবেদনে বলা হয়। এর মধ্যে এসএ পরিবহনের মাধ্যমে ঘুষের টাকা কুরিয়ার করার ২৪টি রসিদের কথা উল্লেখ করা হয়। এসব রসিদে অঙ্কের যোগফল প্রায় কোটি টাকা।

কারা অধিদপ্তরের সূত্র উল্লেখ করে তাতে বলা হয়, কারা সদর দপ্তরে ডিআইজি পদে থাকায় বজলুর রশীদ সারা দেশের বিভিন্ন কারাগার থেকে চাঁদার নামে নির্ধারিত রেটে ঘুষ নিয়ে থাকেন। এই টাকা যেত কুমিল্লার তৌহিদ নামের এক ব্যক্তির কাছে। তিনি তা পাঠাতেন বজলুল রশিদের স্ত্রীর কাছে। তাদের যোগাযোগ হতো ভুয়া ঠিকানায় নেওয়া রেবার মোবাইল ফোনে। থেকে তৌহিদ হোসেন মিঠুর পাঠানো টাকা এসএ পরিবহনের কাকরাইলের প্রধান অফিস থেকে শুধু মোবাইলে মালিকানা নিশ্চিত করে তুলে নেয়া হয়।

এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বজলুর রশীদের স্ত্রী রাজ্জাকুন নাহারকে কুরিয়ারে টাকা পাঠানো হতো বলে প্রতিবেদনে তথ্য-প্রমাণ দিয়ে উল্লেখ করা হয়। নিয়োগ-বাণিজ্য কিছুদিন আগে কারা অধিদপ্তরে স্টোরকিপার, অফিস সহকারী, গাড়িচালক, দর্জি মাস্টারসহ বিভিন্ন পদে বেশ কিছুসংখ্যক লোক নিয়োগের ক্ষেত্রে বিপুল ঘুষ লেনদেন হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। এই নিয়োগ-বাণিজ্যের লেনদেন হয় ডিআইজি প্রিজনের স্ত্রীর মাধ্যমে। এই সূত্রে জড়িয়ে যান পদস্থ কর্মকর্তাদের স্ত্রীরাও।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘নিয়োগ-বাণিজ্যের ময়মনসিংহ কারাগারের একজন কর্মকর্তার স্ত্রীর কাছ থেকে ৫০ লাখ টাকা নেন রাজ্জাকুন নাহার। ডিআইজি প্রিজন বজলুর রশীদের সমমর্যাদার আরেক কর্মকর্তার স্ত্রীর কাছ থেকে দুই দফায় নিয়েছেন ৬ লাখ টাকা। এ ছাড়া ঢাকায় একটি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থাকা একজন কারারক্ষীর কাছ থেকে নিয়োগ-বাণিজ্যের ৫৮ লাখ টাকা নিয়ে গেছেন বজলুর রশীদ নিজেই। আরেক কারা রক্ষীর কাছ থেকে নেয়া হয়েছে ৩৮ লাখ টাকা। এমনই খবর প্রকাশ করেছে একটি জাতীয় দৈনিক। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ডিআইজি (প্রিজন) বজলুর রশীদের বিষয়ে খোঁজ নিতে মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন বলে জানা গেছে।
DreamHost

সময়নিউজ২৪.কম/ বি এম এম 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *