ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মামলায় গাইবান্ধার সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে

সরকার লুৎফর রহমান,গাইবান্ধাঃ
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের হওয়া মামলায় গাইবান্ধার ছয় সিপিবি নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। তারা হলেন- বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জেলা সভাপতি মিহির ঘোষ, সদর উপজেলা সিপিবি সভাপতি ছাদেকুল ইসলাম মাস্টার, পার্টির উপজেলা নেতা জাহাঙ্গীর আলম মন্ডল, দক্ষিণ গিদারীর পার্টি সদস্য আনিছুর রহমান, উত্তর গিদারীর পার্টি সদস্য নবাব আলী ও বাদশা মিয়া।রংপুর বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক ডক্টর আব্দুল মজিদের আদালত বুধবার ১৯ জানুয়ারি এ আদেশ দেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে গাইবান্ধা সদর উপজেলার গিদারী ইউনিয়নের কাউন্সিল বাজারে দক্ষিণ গিদারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটগণনাকালে সহিংসতার ঘটনায় একিট রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়ের করেন গিদারী ইউপির নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান হারুন অর রশীদ ইদু। একই ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে অপর একটি মামলা করেন গিদারী ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা আতাউর রহমান। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ওই মামলায় উল্লিখিত ছয়জনসহ ৬৯ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৩শ’ জনকে আসামি করা হয়।পরে ওই মামলায় আসামিরা হাইকোর্টে আগাম জামিন আবেদন করতে গেলে আদালত তাদের ছয় সপ্তাহ সময় দিয়ে রংপুর সাইবার ট্রাইব্যুনালে হাজির হওয়ার নির্দেশনা দেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার আসামিরা আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত আসামি সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ছয়জনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) গাইবান্ধা জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবির ছয় নেতাকর্মী বুধবার আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন। বিচারক শুনানি শেষে ওই ছয়জনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *