তিতাস ঘোষের মৃত্যু: ভিআইপির তথ্যে ভুল, সোয়া ঘণ্টা আটকে ছিল ফেরি


Search and buy domains from Namecheap

উজ্জ্বল রায় নড়াইল :
নড়াইলের স্কুলছাত্র তিতাস ঘোষের মৃত্যুর: বিআইডব্লিউটিসির তদন্ত প্রতিবেদন: ভিআইপির ভুল তথ্যে সোয়া ঘণ্টা আটকে ছিল ফেরি অ্যাম্বুলেন্সে রোগী থাকার বিষয়টি রাত ১০টার পর জানান স্বজনরা সংশ্লিষ্টদের কল লিস্ট সংগ্রহ করছে নৌ মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি কিশোর তিতাস ঘোষ।

২৫ জুলাই ফেরিতে ওই কিশোরের মৃত্যুর ঘটনায় বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) তদন্ত প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে। মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ী ফেরি ঘাটে পৌঁছানোর আগে নিজ অবস্থানের ভুল তথ্য দেন ‘ভিআইপি’।

 

তার অপেক্ষায় কুমিল্লা নামক ফেরিতে গাড়ি উঠার র‌্যাম্প (পাটাতন) তুলে রাখা হয়। এ কারণে কোনো গাড়ি উঠতে পারেনি। এতেই নষ্ট হয় সোয়া ১ ঘণ্টা। আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায় জানান, ওই ভিআইপি বহনকারী গাড়ি আসার পর রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে কাঁঠালবাড়ী থেকে শিমুলিয়া (মাওয়া) রওনা হয় ফেরিটি। পথে ফেরিতে মারা যায় কিশোর তিতাস ঘোষ। ২৫ জুলাই ফেরিতে ওই কিশোরের মৃত্যুর ঘটনায় বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) তদন্ত প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

৩৭ পৃষ্ঠার ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, অ্যাম্বুলেন্সে গুরুতর অসুস্থ রোগী থাকার বিষয়টি রাত ১০টার পর জানতে পারেন স্থানীয় পুলিশ ও বিআইডব্লিউটিসির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এরপরই ফেরিতে রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স উঠানো হয়। ভিআইপি ও অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে রাত ১০টা ৪৫ মিনিটে ঘাট ছাড়ে ফেরিটি। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ভিআইপি তার লোকেশন (অবস্থান) অনুযায়ী সঠিক সময়ে পৌঁছলে বা ১ নম্বর ঘাটে কর্তব্যরত কর্মচারীরা যথাযথ কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলে এমন অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা নাও ঘটতে পারত।

 

প্রতিবেদনটি সম্প্রতি বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যানের কাছে জমা দিয়েছে তদন্ত কমিটি। এতে রাষ্ট্রীয়ভাবে স্বীকৃত ভিআইপি ছাড়া অন্য কাউকে বিশেষ সুবিধা না দেয়া ও বিআইডব্লিউটিসির নীতিমালা হালনাগাদ করার সুপারিশ করা হয়। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো এসব তথ্য জানিয়েছে।

২৫ জুলাই রাতে একজন ভিআইপির গাড়ির জন্য প্রায় ৩ ঘণ্টা অপেক্ষায় থাকায় আটকে পড়া অ্যাম্বুলেন্সে কিশোর তিতাসের মৃত্যুর অভিযোগ ওঠে। মাদারীপুরের জেলা প্রশাসকের বার্তার প্রেক্ষিতে ওই ভিআইপির (সরকারের এটুআই প্রকল্পের স্পেশালিস্ট যুগ্ম সচিব আবদুস সবুর ম-ল, জন্য ফেরিটি আটকে রাখা হয়। ওই ঘটনায় বিআইডব্লিউটিসি, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে আলাদা তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এর মধ্যে বিআইডব্লিউটিসির তদন্ত প্রতিবেদনটি জমা পড়ল। নৌ মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটিও গিগগিরই প্রতিবেদন দিতে যাচ্ছে।

 

ওই কমিটি ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের কল লিস্ট চেয়ে চিঠি দিয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের তদন্ত প্রতিবেদন সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যায়নি। তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার কথা জানিয়ে বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান প্রণয় কান্তি বিশ্বাস বলেন, আমাদের সংস্থার তদন্ত কমিটির রিপোর্ট হাতে পেয়েছি। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও নৌ মন্ত্রণালয়ের তদন্ত প্রতিবেদন জমা হওয়ার পর মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী পদক্ষেপ নেব।

তদন্ত প্রতিবেদন প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে এটুআই প্রকল্পের স্পেশালিস্ট যুগ্ম সচিব আবদুস সবুর ম-ল যুগান্তরকে বলেন, আমি চাই প্রকৃত ঘটনা বেরিয়ে আসুক। প্রকৃত তদন্ত হোক। তবে এটুকু বলতে পারি রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স আটকে থাকার বিষয়ে আমি কিছুই জানতাম না। আমার জন্য ৩ ঘণ্টা ফেরি আটকে ছিল না।

 

তদন্ত প্রতিবেদনে অ্যাম্বুলেন্সে রোগী থাকার বিষয়টি স্বজনরা রাত ১০টার পর স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও স্থানীয় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জানানো হয় বলে তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। তবে তা অস্বীকার করেছেন তিতাস ঘোষের মা সোনামণি ঘোষ।

তিনি বলেন, আমাদের অ্যাম্বুলেন্স রাত ৮টার পরপরই ফেরিঘাটে পৌঁছে। আমাদের অ্যাম্বুলেন্সের সামনে একটি গাড়ি ও আরেকটি অ্যাম্বুলেন্স ছিল। আমরা ওখানে যাদের পেয়েছি তাদের হাত-পা ধরে বলেছি, আমার বাবার (তিতাস) অপারেশনের জন্য ডাক্তারের বোর্ড ও অপারেশন থিয়েটার প্রস্তুত আছে। আমাদের শুধু পার করে দাও। তারা সাফ জানিয়েছে, ভিআইপি না আসা পর্যন্ত ফেরি ছাড়বে না।

এর মধ্যে কয়েক মিনিটে আমাদের পেছনে অনেক গাড়ি জমে যায়। আমরা অন্য ফেরিঘাটে যেতে পারিনি। কিশোরের মৃত্যুর খবর জানাজানি হওয়ার পর বিআইডব্লিউটিসির মহাব্যবস্থাপক এসএম আশিকুজ্জামানকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটি বিআইডব্লিউটিসি ও বিআইডব্লিউটিএর কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং স্থানীয় পুলিশের এক কর্মকর্তার বক্তব্য নিয়ে প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে। ওই প্রতিবেদনে এটুআই প্রকল্পের স্পেশালিস্ট যুগ্ম সচিব আবদুস সবুর ম-ল ও তিতাসের স্বজনদের বক্তব্য নেয়া হয়নি।

 

ঘটনার বিষয়ে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ভিআইপি কর্তৃক প্রদত্ত লোকেশন সঠিক ছিল না। ভিআইপি রওনা দেয়ার সময় থেকে ঘাট পর্যন্ত আসতে সময়ে সময়ে দেয়া লোকেশন অনুযায়ী যে সময় লাগার কথা তার চেয়ে অধিক বিলম্বে ঘাটে পৌঁছেন। ভিআইপি তার দেয়া লোকেশন অনুযায়ী সঠিক সময়ে ঘাটে পৌঁছলে অনেক আগেই ফেরি ঘাট ছেড়ে যেত। এতে মুমূর্ষু রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্সটির হয়তো তার নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছানো সম্ভব হতো।

এতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, ১নং ঘাটে কর্তব্যরত কর্মচারীরা অ্যাম্বুলেন্স সম্পর্কে সঠিক সময়ে যদি স্থানীয় কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে অবহিত করত তাহলে এমন অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা নাও ঘটতে পারত। প্রতিবেদন বিশ্লেষণে দেখা যায়, ওই সময়ে ওই ঘাটে কর্মরত ছিলেন বিআইডব্লিউটিসির কর্মচারী খোকন মিয়া। আর গ্রুপ লিডার ছিলেন ফিরোজ আলম। ওই ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. সালাম হোসেন ভিআইপি আসার তথ্য জানিয়ে রাত ৮টা থেকে সাড়ে ৮টার দিকে বিশ্রামে চলে যান।

ঘটনার সময়ে তিনি ওই ঘাটে উপস্থিত ছিলেন না। এর আগে মাদারীপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ঈদ উপলক্ষে এক সভায় ওই জেলার ডিসি ভিআইপি আসার বিষয়টি আবদুস সালামকে জানিয়ে বিশেষ ব্যবস্থায় পার করতে অনুরোধ জানান। এতে আরও দেখা গেছে, রাত ৯টা ২৭ মিনিটে ফেরিটি কাঁঠালবাড়ী ঘাটে পৌঁছে। এরপর ভিআইপি যাবে জানিয়ে গাড়ি ওঠার র‌্যাম্প উঠিয়ে রেখে অপেক্ষা করতে ফেরির ভারপ্রাপ্ত মাস্টার সামছুল আলমকে বলেন কর্মচারী খোকন মিয়া।

 

ওই নির্দেশনা অনুযায়ী র‌্যাম্প উঠিয়ে ফেরি অপেক্ষমাণ রাখা হয়। রাত ১০টার পর খোকন মিয়া ও পুলিশের একজন সদস্য র‌্যাম্প নামাতে বললে অ্যাম্বুলেন্স, ভিআইপি গাড়ি ও অন্যান্য গাড়ি লোড করে শিমুলিয়ার উদ্দেশে রওনা হয় ফেরিটি। কমিটির কাছে দেয়া জবানবন্দিতে বেশিরভাগ কর্মচারী ঘাটে অ্যাম্বুলেন্স অপেক্ষায় থাকার বিষয়ে জানেন না বলে কমিটিকে জানিয়েছেন।

তদন্ত কমিটির একজন সদস্য জানান, তদন্তে তারা পেয়েছেন রাত সোয়া ৮টা থেকে সাড়ে ৮টার মধ্যে ভিআইপি গোপালগঞ্জের ভাটিয়াপাড়ায় আছেন বলে নিজ অবস্থান জানান। ওই স্থান থেকে ঘাট পর্যন্ত আসতে কম-বেশি ১ ঘণ্টা অর্থাৎ রাত সাড়ে ৯টার মধ্যে আসার কথা।

কিন্তু ভিআইপি গাড়ি এসে পৌঁছে রাত ১০টা ৪০ মিনিটে। এতে নষ্ট হয় সোয়া ১ ঘণ্টা। রাত পৌনে ১১টায় ফেরিটি কাঁঠালবাড়ীর উদ্দেশে রওনা হয়। পথে তিতাস মারা গেলে তার স্বজনের কান্নার শব্দে ফেরির কর্মচারীরা এগিয়ে যান।

সময়নিউজ২৪.কম/ বি এম এম 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *