দিবসেমুক্ত এমপি মাশরাফির শ্রদ্ধাঞ্জলি বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালিত

Jetpack

উজজল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধিঃ
বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে নড়াইল জেলা হানাদার মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) দিনব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এর মধ্যে শহরের রূপগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের গণকবর, পুরাতন বাস টার্মিনাল এলাকায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি, স্মৃতিস্তম্ভ ও চিত্রা নদীর তীরের বধ্যভূমিতে পুস্পমাল্য অর্পণ করা হয়।
এছাড়া শোভাযাত্রা, প্রতীকি যুদ্ধ, জারিগান ও স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানের আয়োজন ছিল। জেলা প্রশাসন ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জেলা ইউনিটের উদ্যোগে এসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। 
এদিকে, নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজার পক্ষ থেকে স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়। এছাড়া জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা শিল্পকলা একাডেমি, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, নড়াইল প্রেসক্লাব, মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, চিত্রা থিয়েটারসহ বিভিন্ন সংগঠন পুষ্পমাল্য অর্পণ করে।  
অন্যদিকে এমপি মাশরাফি তার বাণীতে বলেন, ‘আজ ঐতিহাসিক ১০ ডিসেম্বর। নড়াইল জেলা শত্রুমুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এইদিনে নড়াইলের সূর্যসন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত অভিযানে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছিল পাকসেনারা। চূড়ান্ত বিজয়ের ছয়দিন আগেই শত্রুমুক্ত হয়েছিল তৎকালীন নড়াইল মহকুমা, বর্তমান নড়াইল জেলা। 
আয়তনে ছোট জেলা হলেও নড়াইল জেলা বীর মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যার ভিত্তিতে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম জেলা। এটি নড়াইল জেলার মানুষের বীরত্বগাঁথা আর দেশপ্রেমের এক অনন্য দৃষ্টান্ত…।’
মুক্তিযোদ্ধারা জানান, ১৯৭১ সালের ১০ ডিসেম্বর নড়াইল থেকে পাকবাহিনীকে সম্পূর্নরূপে বিতাড়িত করা হয়। এদিনে নড়াইল শত্রুমুক্ত হয়। ২৪ নভেম্বর কালিয়া এবং ৮ ডিসেম্বর লোহাগড়া থানা মুক্ত হওয়ার পরে  ৯ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধারা একত্রিত হয়ে নড়াইলে পাকবাহিনীর ওপর আক্রমণ শুরু করেন। 
১০ ডিসেম্বর ভোরে মুক্তিযোদ্ধারা শহরের পানি উন্নয়ন বোর্ড এলাকায় অবস্থানরত পাকবাহিনীকে ঘিরে ফেলেন। শুরু হয় তুমূল সংঘর্ষ। এ সময় পাকবাহিনীর দুই সৈনিক নিহত হলে অধিনায়ক বেলুচ কালা খান ‘সারেন্ডার সারেন্ডার’ চিৎকার শুরু করেন। এরপর বেলুচ কালা খান ২২ জন পাকসেনা ও ৪৫ জন স্থানীয় রাজাকার এবং বিপুল অস্ত্রসহ আত্মসমর্পণ করে। 
১৪ ডিসেম্বর মেজর মঞ্জুর নড়াইলে আসেন এবং মুক্তিপাগল হাজারো জনতার উপস্থিতিতে ডাকবাংলো প্রাঙ্গণে আনুষ্ঠানিক ভাবে স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করা হয়।

Jetpack

সময়নিউজ২৪.কম/ বি এম এম 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *