দূর্গার পর এবার লক্ষ্মী প্রতিমা ভাংচুরের প্রতিযোগিতা

উজ্জ্বল রায়ঃ

সার্বজনীন দুর্গা মন্দিরে পূজার জন্যে রাখা তৈরিকৃত লক্ষ্মী প্রতিমা ভাংচুর করে নদীতে ফেলে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। রাতে কোন এক সময় এই তৈরিকৃত প্রতিমা ভাংচুর করা হয় বলে জানা গেছে। সকালে গ্রামবাসি নদীতে পড়ে থাকতে দেখতে পান। স্থানীয়রা জানান, জেলার বাঁশবাড়িয়া সার্বজনীন দুর্গা মন্দিরে দুর্গা পূজা শেষ হয়েছে অতি কষ্টে সব সময় আতঙ্কের প্রহর গুনে। একই মন্দিরে আগামী রবিবার লক্ষ্মী পূজা অনুষ্ঠিত হবে। লক্ষ্মী পূজা উপলক্ষে সকালে লক্ষ্মী প্রতিমা তৈরী করে প্রতিমা শুখানোর জন্য রাখেন মালাকর। পূজার জন্যে রাখা তৈরিকৃত লক্ষ্মী প্রতিমা গভির রাতে কোন এক সময় দুর্বৃত্তরা প্রতিমার মাথা কেটে দুখন্ড করে মন্দিরের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া বাঁশবাড়িয়া নদীতে ফেলে রেখে যায়।

মালাকররা বলেন, আমরা কল্পনা ও করতে পারিনি যে লক্ষ্মী মূর্তির উপরেও শয়তান গুলোর কোপ পড়বে। শান্তির দূতদের কি সব শয়তানে পয়দা করে অন্যের ধমের উপর অত্যাচার, ভাংচুর, লুটপাট, ধর্ষণ, দখল, হত্যা করতে। প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি সহ বড় বড় এমপি, মন্ত্রীরা দুর্গা পুজার সময় যেসব অসাম্প্রদায়িক কথা বলেছেন সেসব কি শুধুই মুখের কথা? সকালে গ্রামবাসি দেখতে পেয়ে থানায় সংবাদ দেন। বাঁশবাড়িয়া সার্বজনীন দুর্গা মন্দির কমিটির সভাপতি সুবল চন্দ্র প্রামানিক জানান, কি কারণে এইভাবে তৈরিকৃত প্রতিমা ভাংচুর করেছে তার কারণ জানা নেই।

এ ব্যাপারে থানার ওসি জহুরুল হক বলেন, সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করা হয়েছে। বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার বাঁশবাড়িয়া গ্রামবাসীরা বলেন, দিনের পর দিন এসব দেখতে দেখতে শুনতে আমাদের দেয়ালে পিঠ থেকে গেছে। খবরের কাগজ, অনলাইন পত্রিকা, ফেসবুকসহ বিভন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চোখ রাখলে রোজই কোথাও না কোথাও চোখেই পরবেই। কিন্তু প্রশাসনের কি কখনই চোখে পড়ে না এসব। সাধারন গ্রামবাসী কিন্তু ফুঁসতে শুরু করছে। বড়ো কোন অনর্থ ঘটার আগে আপনারা সজাগ হোন। এসবের প্রতিকার করুন।

সময় নিউজ২৪.কম/এমএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *