দেশের বৃহত্তর ঈদের জামাত কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় অনুষ্ঠিত হবে

রাজিবুল হক সিদ্দিকী, কিশোরগঞ্জ:

কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে দেশের সর্ববৃহৎ ঈদ-উল-আযহার ১৯২তম জামাত অনুষ্ঠিত হবে। মূল ইমাম মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ হজ্জে থাকায় এবার ইমামতি করবেন বড় বাজার মারকাজ মসজিদের খতিব মাওলানা মোঃ হিফজুর রহমান।
জনশ্রুতি আছে যে, শোলাকিয়া ঈদগাহের প্রথমে বড় জামাতে সোয়া লাখ মুসল্লি অংশগ্রহণ করেছিলেন। উচ্চারণের বিবর্তনে সোয়ালাখিয়া থেকে বর্তমান শোলাকিয়া নামে ঈদগাহটি পরিচিতি লাভ করে। ১৮২৮ খ্রিঃ জঙ্গলবাড়ির জমিদার সাহেবও এ মাঠে নামাজ পড়তে আসতেন। তখন থেকে বড় জামাত শুরু হয়।
১৮২৮ খ্রিঃ অনুষ্ঠিত প্রথম বড় জামাতের ইমামতি করেন শোলাকিয়ার সুফি সৈয়দ আহমদ। আন্তর্জাতিক ও বরকতময় শোলাকিয়া ঈদগাহে যুগে যুগে খ্যাতনামা আলেমগণ ইমামের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ২শত ৬৫টি কাতার সংবলিত শোলাকিয়া ঈদগাহে প্রতি বছর লাখ লাখ মুসল্লির সমাবেশ ঘটে।
বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ঈদ-উল-আযহার জামাত অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ঈদ-উল-আযহার জামাত শোলাকিয়া ঈদগাহে অনুষ্ঠানের ফলে আজ এটি ঐতিহাসিক স্থানে পরিণত। এর গুরুত্ব বেড়ে গেছে বহুগুণ। তাই সবার দৃষ্টি আজ এ ময়দানের প্রতি। এ কারণে সময়ে দাবি একে আরো আকর্ষণীয় ও উপযোগী করে তোলার।এখানে একটি পাঞ্জেগানা মসজিদ ও মক্তব চালু আছে। মাঝে মাঝে ইমাম সাহেব এ মাঠে আওলিয়া সম্মেলনের আয়োজন করেন। ঈদগাহটি একটি বহুমুখী ইসলামী কার্যক্রমের কমপ্লেক্স এ পরিণত হওয়া প্রয়োজন।
শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠ পরিচালনা কমিটির সভাপতি কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসক সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী জানান, ইতিমধ্যে এই বৃহত্তম ঈদগাহ মাঠের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। ঈদের জামাতে অতিরিক্ত নিরাপত্তার জন্য বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা ও বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হবে। শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার ঘটনার পর থেকে পুলিশ, র‌্যাবের পাশাপাশি ৫ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েনসহ চার স্তরের নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে বলে পুলিশ সুপার মোঃ মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) জানান। এদিকে শোলাকিয়ায় ঈদের জামাতে অংশগ্রহনের সুবিধার্থে ভৈরব-কিশোরগঞ্জ ও ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ লাইনে ‘শোলাকিয়া এক্সপ্রেস’ নামে দুটি স্পেশাল ট্রেন চলাচল করবে।
উল্লেখ্য মসনদ-ঈ-আলা ঈশা খাঁর ৬ষ্ঠ বংশধর দেওয়ান হয়বত খানের উত্তরসূরী দেওয়ান মান্নান দাদ খান ১৯৫০ সালে ৪.৩৫ একর ভূমি শোলাকিয়া ঈদগাহকে ওয়াকফ দেন। পরবর্তীকালে ঈদগাহ পরিচালনা ও উন্নয়ন কমিটির কাছে হাতবদল করায় এ মাঠের বর্তমান জমির পরিমাণ প্রায় ৭.০০ একর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *