দেশের শিক্ষাকার্যক্রমে প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক স্তরে বড় ধরনের পরিবর্তন আনা হচ্ছে

 joomla hosting

অনলাইন ডেস্কঃ

দেশের শিক্ষাকার্যক্রমে প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক স্তরে বড় ধরনের পরিবর্তন আনা হচ্ছে। এ লক্ষ্যে বিগত কয়েক বছর ধরে অব্যাহত কার্যক্রম চলছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) তত্ত্বাবধানে। ইতোমধ্যে সারা দেশের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কারিকুলাম বিশেষজ্ঞদের মতামত গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। এখন চলছে সমন্বয় ও নতুন কারিকুলাম প্রণয়নের কাজ।

দীর্ঘ কয়েক যুগ ধরে চলমান মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের বিভাগ নির্বাচনের ব্যবস্থা আর থাকছে না। এটি আগামীতে নির্ধারণ করতে হবে উচ্চমাধ্যমিক স্তরে গিয়ে। এ ছাড়া পাবলিক পরীক্ষার নম্বর কমিয়ে শ্রেণিকক্ষে স্কুলে বার্ষিক পরীক্ষা ও ধারাবাহিক মূল্যায়নের গুরুত্ব বাড়ানো হবে। এ ধরনের পদ্ধতি যুক্তরাষ্ট্রে চালু আছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। শিক্ষার মানোন্নয়নে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদদের নিয়ে গঠিত কমিটির সুপারিশের আলোকে এসব সিদ্ধান্ত আগামী ২০২৪ সাল থেকে বাস্তবায়ন সম্পন্ন হবে বলে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)।

বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে শিক্ষার্থীদের উৎপাদনমুখী ও বৈশ্বিক নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে এ উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। নতুন শিক্ষামন্ত্রী-শিক্ষা উপমন্ত্রী দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে বলে আসছেন, বর্তমানে যে কারিকুলামে পাঠদান হচ্ছে, তা নিয়ে শিক্ষার্থীদের আগামী দিনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব হবে না। সংশ্লিষ্টরা জানান, যদিও কারিকুলাম পরিবর্তনের কাজ শুরু হয়েছে আরো আগে থেকেই (২০১৬ সাল থেকে)। নতুন মন্ত্রী-উপমন্ত্রীর নির্দেশনা নতুন কারিকুলামে সম্পৃক্ত করার সুযোগ রয়েছে।

নতুন কারিকুলাম পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে, শুরু হবে ২০২১ সাল থেকে। ২০২৩ সালে উচ্চমাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত নতুন কারিকুলাম বাস্তবায়ন সম্পন্ন করার টার্গেট রয়েছে। সে লক্ষ্যে কর্মযজ্ঞ চলছে। কারিকুলাম বিশেষজ্ঞরা গত কয়েক বছর ধরে অব্যাহতভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। নতুন এ পরিবর্তনে নবম শ্রেণী থেকে বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক বিভাগ পছন্দের আর সুযোগ থাকবে না। ২০২৩ সাল থেকে নবম-দশম শ্রেণীর সব শিক্ষার্থী একই কারিকুলামের একই পাঠ্যবই পড়ার সুযোগ পাবে।

একাদশ শ্রেণীতে গিয়ে বিভাগ বিভাজন শুরু হবে। এতে একজন শিক্ষার্থী মাধ্যমিক স্তরে সব বিষয়ে জ্ঞান লাভ করতে পারবে। ২০২১ সালে প্রথম শ্রেণীর ও ষষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থী নতুন কারিকুলাম ও বই পাবে। যথাসময়ে বই পৌঁছানোর লক্ষ্যমাত্রা হাতে নিয়ে এ স্তরের নতুন কারিকুলাম চূড়ান্ত হবে ২০২০ সালে মাঝামাঝি সময়ে। ২০২২ সালে দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর এবং ২০২৩ সালে পঞ্চম শ্রেণীর পাঠ্যবইও পরিবর্তন করা হবে। পাশাপাশি ২০২২ সালে সপ্তম শ্রেণীর, নবম ও একাদশ শ্রেণীর পাঠ্যবই পরিবর্তন হবে। আর ২০২৩ সালে অষ্টম শ্রেণীর পাঠ্যবইয়ে পরিবর্তন আনা হবে।

কারিকুলাম পরিবর্তনের পাশাপাশি পাঠ্যবইও বদলে যাবে। এবারই প্রথমবারের মতো প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের কারিকুলাম একসাথে পরিবর্তন ও সমন্বয় করা হচ্ছে। কারিকুলাম পরিবর্তনে শিক্ষার্থীদের জ্ঞান বৃদ্ধিতে সহায়ক বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত করা হবে। পাঠ্যবইয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, জঙ্গিবাদ, নিরাপত্তা বিষয়গুলো যুক্ত করা হবে। শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের পাশাপাশি কাজটি করে দেখানোর বিষয়ে গুরুত্ব দেয়া হবে। যুক্ত থাকবে খেলাধুলাও।

কারিকুলামে দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ বিষয় পাবলিক পরীক্ষার সংখ্যা ও নম্বর কমিয়ে আনা। এর পরিবর্তে শ্রেণিকক্ষে ধারাবাহিক মূল্যায়নের পরিমাণ বাড়ানো হবে। শ্রেণিকক্ষে সব বিষয়ে ধারাবাহিক মূল্যায়নে ২০ নম্বর রাখা হবে। এতে পাবলিক পরীক্ষার নম্বর কমে যাবে। বর্তমানে গার্হস্থ্য অর্থনীতি/কৃষি শিক্ষা পরীক্ষা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ধারাবাহিকভাবে মূল্যায়ন করা হচ্ছে। এ অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে নতুন কারিকুলামে যুক্ত হবে সব বিষয়। বিশেষজ্ঞদের সুপারিশ অনুযায়ী ২০১৮ সাল থেকে চতুর্থ বিষয়ের পরীক্ষা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ধারাবাহিকভাবে মূল্যায়ন করা হচ্ছে। এ মূল্যায়নের নম্বর সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডে পাঠানো হচ্ছে প্রতিষ্ঠান থেকে। মূল মার্কশিটে এসব বিষয়ের প্রাপ্ত নম্বর উল্লেখ থাকছে। তবে পরীক্ষার ফলে কোনো প্রভাব পড়ছে না।

অপর দিকে, মাধ্যমিক স্তরে বিভাগ বিভাজনের ফলে বিজ্ঞান বিভাগ শিক্ষার্থীরা ব্যবহারিক পরীক্ষার সুযোগে বেশি নম্বর অর্জন করে থাকে। কিন্তু মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষার শিক্ষার্থীদের এ সুযোগ খুবই কম। এতে তারা এক ধরনের বৈষম্যের শিকার হচ্ছে বছরের পর বছর। এনসিটিবির বিষয় বিশেষজ্ঞরা বলেন, দেশের হাইস্কুলগুলোতে পর্যাপ্ত ল্যাবরেটরি সুবিধা নেই।

সরকারি হাইস্কুলে প্র্যাকটিক্যাল করানোর মতো পর্যাপ্ত ল্যাব বা সহকারী নেই। এরপরও বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা ১০০ নম্বর ব্যবহারিকের মধ্যে প্রায় শতভাগ নম্বর পেয়ে যায়। এতে মানবিক ও ব্যবসা শাখার শিক্ষার্থীরা ফলাফলে চরম বৈষম্যের শিকার হচ্ছে।
joomla hosting

সময় নিউজ২৪.কম/এমএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *