নওগাঁয় করোনা ভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হয়নি , ৯২২ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে ও ৯১ জনমুক্ত

শহিদুল ইসলাম (জি এম মিঠন) নওগাঁ জেলা প্রতিনিধিঃ

নওগাঁয় বিদেশ থেকে আসা ৯৭৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা রয়েছে। নতুন করে যোগ হয়েছে ৩৮ জন।এদের মধ্যে আজ ৯১জনের শেষ হয়েছে। এখন রয়েছে ৯২২ জন। গত ২৪ ঘন্টায় উপজেলা ভিত্তিক নতুন করে হোম কোয়ারেনটিনে পাঠানো রানীনগর উপজেলায় ১০ জন, আত্রাই উপজেলায় ৪ জন, বদলগাছি উপজেলায় ২ জন, পত্নিতলা উপজেলায় ১ জন, ধামইরহাট উপজেলায় ৮ জন, নিয়ামতপুর উপজেলায় ৬ জন, সাপাহার উপজেলায় ১ জন এবং পোরশা উপজেলায় ৬ জন। হোম কোয়রেনটিন থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন নওগাঁ সদর উপজেলায় ১৫ জন, রানীনগর উপজেলায় ৯ জন, আত্রাই উপজেলায় ৯ জন, মহাদেবপুর উপজেলায় ১৭ জন, মান্দা উপজেলায় ৮ জন, বদলগাছি উপজেলায় ১৫ জন, পত্নিতলায়  উপজেলায় ৯ জন, নিয়ামতপুর উপজেলায় ২ জন, সাপাহার উপজেলায় ৬ জন এবং পোরশা উপজেলায় ১ জন।

বুধবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন নওগাঁ সিভিল সার্জন ডাঃ এস,এম আখতারুজ্জামান আলাল।

তিনি জানান, নওগাঁয় এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হননি। করোনা রোগিদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা এবং সেবা প্রদানের জন্য চিকিৎসক ও নার্সদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তার জন্য বিভিন্ন সরঞ্জাম সরবরাহ এসেছে। এসব সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে পিপিই ৫০ সেট, ছোট গ্লোব ১০০ পিচ, মাঝারী গ্লোব ১০০ পিচ, বড় গ্লোব ১০০ পিচ, ৫০এমএল হেকসাসোল ১০০ বোতল, মাস্ক ২০০ পিচ, এমওপি ক্যাপ ৫০টি, গাউন ৫০ পিচ, সু-কভার ৫০ পিচ এবং চশমা ৫০টি। এসব সামগ্রী জেলা সদরের ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালসহ অন্য ১০টি উপজেলা হাসপাতালে বিতরন করা হয়েছে। জেলার ১০টি উপজেলার করোনা ভাইরাস রোগীদের জন্য ১৬৫টি বেড এবং নওগাঁ সদর উপজেলার জন্য ১০০টি বেড, ডাক্তার, নার্স ইতি মধ্যেই প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

অপরদিকে জেলা প্রশাসক মোঃ হারুন-অর-রশীদ জানিয়েছেন নওগাঁয় সেনা বাহিনীর প্রয়োজনীয় টীম এসেছে। সেনা সদস্যদের সাথে জেলা প্রশাসনের বৈঠক ইতিমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। সাধারন মানুষের মধ্যে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করা সহ করোনা প্রতিরোধে যা যা করনীয় তা প্রশাসনের সাথে থেকে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করবে সেনাবাহিনী।

নিজে সচেতন হোন ও অপরকে সচেতন করুন, জনসমাগম এড়িয়ে চলুন জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাহির না হওয়ার জন্য ও সর্বসাধারনকে অনুরোধ করেছেন প্রশাসন। রাতদিন জেলা ও উপজেলা প্রশাসন সহ জেলা ও থানা পুলিশ মাঠে থেকে সর্বসাধারনকে সচেতন করেই চলেছেন।

সময়নিউজ২৪.কম/বি এম এম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *