নওগাঁয় দুই কৃষকের সপ্ন পুড়ে দিলো দূর্বৃত্তরা.?

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠনঃ
নওগাঁর মহাদেবপুরে দরিদ্র কৃষক কাওছার আলী ওরফে কাছের ও তার ভাই মেছের আলীর সপ্ন পুড়ে দিয়েছে দূর্বৃত্তরা। যার ফলে ন্যায় বিচার পাবার আশায় পাগলের ন্যায় বিভিন্ন দপ্তরে ঘুড়ে বেড়াচ্ছেন সর্বসান্ত হওয়া এ দুই ভাই। এমনকি গ্রাম্য মাতব্বর, ইউপি মেম্বার, চেয়ারম্যান ও প্রশাসনের কর্মকর্তা সহ সাংবাদিকদের কাছেও ধর্ণা দিয়ে বেড়াচ্ছেন সর্বসান্ত হওয়া দরিদ্র এ দুই ভাই।
মহাদেবপুর উপজেলার ভীমপুর ইউনিয়নের দাশড়া গ্রামের মৃত খবির এর দুই ছেলে কাওছার আলী ওরফে কাছের (৫৫) ও
মেছের আলী (৫২)। তাদের অভাবি সংসারের কারনে
একই গ্রামের মৃত চয়েন এর ছেলে মুকুলের কাছ থেকে ১ বিঘা ও মৃত মোহাম্মদ এর ছেলে খালেক এর ১০ কাঠা মাঠের আবাদি জমি বন্দকী নিয়ে নিজেদের সহ মোট ৩ বিঘা জমিতে চিনি আতব ( চিকন) জাতের ধান চাষ করেন। সবেমাত্র সদ্যবের হওয়া ধানের শীষ গুলোতেই সপ্ন বুনছিলেন দরিদ্র এ দু ভাই। মনে আশাছিলো এবার কিছুটা হলেও সংসাসের অভাব ঘুচবে সেই সাথে তাদের বাড়িতে পালিত গবাদী পশু গরুর খাদ্য খড়ের সংকটও দূর হবে এমনই সপ্নে বিভোর ছিলেন এ দরিদ্র দুভাই।
কিন্তু সেই সপ্ন পুড়ে দিয়েছে দূর্বৃত্তরা। তাদের রোপনকৃত ৩ বিঘা জমিতে সদ্যবের হওয়া ধানের শীষ এর ক্ষেতে আগাছা নাশক হাই পাওয়ার বিষ প্রয়োগ করে জমির সব ধান পুড়িয়ে (মেরে নষ্ট) করে দিয়েছে দূর্বৃত্তরা। বিভিন্ন জন বা দপ্তরে ধর্ণা দেওয়ার ধারাবাহিকতায় বর্তমানে পাগল প্রায় এ দু ভাই ছুটে আসেন প্রতিবেদকের কাছে, এসেই কান্নাজড়ীত কন্ঠে বলেন, বাবা আমাদের মত গরীব মানুষের একটি উপকার করুন না হলে আমরা সহ আমাদের বাড়ির গবাদীপশু গরু গুলো না খেয়ে মারা যাবে বাবা।
তাদের মুখে এমন আকুতি শোনার পরই সরজমিনে বৃহস্পতিবার বিকালে দাশড়া গ্রামের মাঠে গিয়ে দেখাগেল পাশাপাশি এলাকায় মোট ৩ বিঘা জমিতে মরে পড়ে থাকা ধানের ক্ষেত।
এসময় নাম প্রকাশ না করার শর্তে দাশড়া গ্রামের কয়েকজন প্রতিবেদককে জানালেন, আসলেই ক্ষতিগ্রস্থ্য ঐ দুই ভাই নিরহ ও দরিদ্র মানুষ এবং গ্রাম বা আশেপাশে কারো সাথে তাদের বিবাদ বা দন্দও নেই জানিয়ে তারা আরো বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ্য ঐ দু ভাইয়ের সাথে তাদের অপর আপন এক ভাই ও ভাইস্তাদের চলাচলের রাস্তানিয়ে বিবাদ চলছে দীর্ঘদিন ধরে। এমনকি রাস্তানিয়ে বিবাদকে কেন্দ্র করে একাধীক মামলারও ঘটনা ঘটেছে।
এব্যাপারে ক্ষতিগ্রস্থ্য দরিদ্র ধান চাষী কৃষক মেছের আলী বলেন, আমাদের সাথে গ্রামে বা আশেপাশের লোকজন কারো সাথেই দন্দ নেই বাবা, তারপরও আমাদের সর্বশান্ত করা হলো কেন?
ক্ষতিগ্রস্থ্য অপর ভাই মেছের আলী জানান, আমরা গরিব মানুষ, আমাদের সাথে গ্রামের লোকজন কারো সাথে কোন দন্দ নেই জানিয়ে তিনি আরো বলেন, চলাচলের রাস্তানিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে আমাদের এক আপন ভাই ও ভাইস্তারা ষড়যন্ত্র মূলকভাবে একের পর এক আমাদের দু ভাই সহ পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন এবং আমাদেরকে নিস্ব করেছেন মামলার পর মামলাদিয়ে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, আমার ভাইস্তারা দাপটশীল ও ক্ষমতাশালী হওয়ার কারনে আমাদেরকে বেশ কয়েকবার মারপিটও করেছেন এবং আমাদের ঘড়ের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করেছেন জানিয়ে তিনি আরো বলেন, সম্ভাব্য গত শনিবার ভোরে আমার ছেলে প্রকৃতির ডাকে ঘড়ের বাইরে গিয়ে ফেরার পথে আধা-আলোতে (আফসা আলোতে)  পিঠে থাকা স্প্রে মেশিন সহ দুজন ও অপর একজন মোট ৩ জনকে আমার ভাই আফছার আলীর বাড়িতে ঢুকতে দাখেন। এর পরের দিন থেকে আমাদের ধান ক্ষেতে মড়ক ধরলে অপর কৃষকরা আমাদেরকে জানায় এবং আমরা সাথে সাথে ধানের ক্ষেতেগিয়ে শীষ মরার কিছু দৃশ্য দেখার পরও ভাবিনি যে আমাদের সর্বনাশ করা হয়েছে। কিন্তু ১/২ দিনের মধ্যেই ৩ বিঘা জমির সম্পূর্ন ধান মরে যায় জানিয়ে তিনি ন্যায় বিচার দাবি করে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।
সময় নিউজ২৪.কম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *