//pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js


নওগাঁয় পরক্রিয়ার অভিযোগ তুলে স্ত্রীকে অমানবিক নির্যাতন,স্বামী গ্রেফতার

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন,স্টাফ রিপোর্টারঃ
নওগাঁর মান্দার ছোট-মুল্লুক আদর্শ গ্রামের নুরজাহান বেগম (২৭) নামের এক গৃহবধূকে বুধবার সকালে মাথার চুল কেটে দিয়ে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগে ঐ গৃহবধূর স্বামী আবদুল কুদ্দুসকে (৩২) কে গ্রেফতার করেছে মান্দা থানা পুলিশ।গ্রেফতারকৃত আবদুল কুদ্দুস ছোট-মুল্লুক গ্রামের মৃত বাবর আলীর ছেলে ও তার স্ত্রীর নুরজাহান বেগম নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার রামগাঁ গ্রামের জহির উদ্দিনের মেয়ে।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, স্বামী আবদুল কুদ্দস রাজধানী ঢাকা শহরে থেকে রিকসা চালিয়ে উপার্জন করেন। গত ২৫ নভেম্বর তিনি বাড়ি আসেন এবং ঐ রাতেই স্ত্রী’র পরক্রিয়া সম্পর্ক রয়েছে এমন সন্দেহ করে ‘ভিত্তিহীন’ অভিযোগ তুলে স্ত্রীকে বেদম মারধর করা হয়। একই অভিযোগে পরদিন রাতে দ্বিতীয় দফায় স্ত্রীকে মারধর করেন তার স্বামী আবদুল কুদ্দুস। এ সময় কাঁচি দিয়ে তার মাথার চুল কেটে দেওয়া হয়।
ভুক্তভোগী গৃহবধূ নুরজাহান বেগম বলেন, বুধবার সকালে আবারও মারধর করে তার গলায় ছুরি ঠেকিয়ে হত্যার চেষ্টা করলে এ সময় মেয়ে কারিমা খাতুন বাবার পা জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি শুরু করেন। এমন সুযোগে বাড়ি থেকে পালিয়ে জয়বাংলা মোড়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য (মেম্বার) বিষ্ণুপদ সাহার দোকান ঘরে আশ্রয় নিয়ে জীবন রক্ষা করেন।
কালিকাপুর ইউনিয়ন পরিষদ এর সদস্য বিষ্ণুপদ সাহা বলেন, ঘটনার বিষয়ে অবহিত হয়ে গ্রাম পুলিশের সহায়তায় আবদুল কুদ্দুসকে আটক করে ভিকটিম সহ তাকে ইউনিয়ন পরিষদে নেওয়া হয়। পরে পুলিশ এসে আবদুল কুদ্দুসকে থানায় নিয়ে যায়।
মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নূর-এ-আলম সিদ্দিকী বলেন, এঘটনায় ভিকটিম গৃহবধূ নুরজাহান বেগম বাদী হয়ে স্বামী আবদুল কুদ্দুস এর বিরুদ্ধে মামলা করলে কুদ্দুসকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


//pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js
%d bloggers like this: