নওগাঁয় হলুদের বাম্পার ফলন হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি

মো.আককাস আলী,নওগাঁ জেলা প্রতিনিধিঃ

নওগাঁর মহাদেবপুরে হলুদের বাম্পার ফলন হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি। অন্যান্য ফসলের চেয়ে অধিক লাভজনক হলুদ চাষ। এক বছর মেয়াদি ফসল হলেও অল্প জমিতে কম খরচে হলুদ চাষ করা সম্ভব। এ ফসলে গরু, ছাগল ও পোকা-মাকড়ের কোনো উপদ্রব নেই বা চুরি যাওয়ার কোনো ভয় থাকে না। অফসলি জমিতে হলুদের চাষ ভালো হয়। জানা যায়, এ বছরে প্রতি শতকে দেড় থেকে দুই মণ পর্যন্ত হলুদের ফলন হয়েছে। সূত্র মতে, এ উপজেলার ৩৮০ হেক্টর জমিতে হলুদ চাষ হয়েছে। অন্যান্য ইউনিয়নের চেয়ে এবার সফাপুর,খাজুর,হাতুড় ও ভীমপুর ইউনিয়নে হলুদের চাষ অনেক বেশি।

উপজেলার হুলুদ চাষী রাইহান জানান, বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত ৮০ শতক জমিতে হলুদ চাষ করেন। ১৫ হাজার টাকা ব্যয়ে ঐ জমিতে হলুদ ফলন হয়েছে ১৬০ মণ। বাজারে মণপ্রতি (কাঁচা হলুদ) সাড়ে ৫শ থেকে ৬শ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। তিনি হলুদ চাষ করে প্রায় ৯০ থেকে ৯৬ হাজার টাকা পান। হাতুড়ের হলুদ চাষী ইরাফিল,বানী,ওমর ফারুক জানান, কম খরচে (পরিত্যক্ত জমিতে) অন্যান্য ফসলের তুলুনায় হলুদ চাষ করে চারগুণ লাভ হয়েছে। এদিকে খাজুর ইউনিয়নের কৃষক আবেদ আলী বলেন, আমি ৬০ শতক জমিতে হলুদ চাষ করে ৯৫ মণ হলুদ পেয়েছি। উপজেলায় হলুদের বাম্পার ফলনের একই চিত্র। উপজেলা কৃষি অফিসার উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা ওসমান আলী বলেন, গত বছরের তুলনায় এবারে হলুদের ফলন হয়েছে অনেক বেশি। শুধুমাত্র হলুদ রোপণের সময় পটাশ ও ইউরিয়া পরিমাণমতো ব্যবহার করলে এ ফসল তোলা পর্যন্ত আর কোনো খরচ নেই। তবে অকৃষি জমিতে হলুদের চাষ ভালো হয়।

সময় নিউজ২৪.কম/এমএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *