নাটোরে অপহৃত স্কুল ছাত্রকে যে কৌশলে জীবিত উদ্ধান করলেন পুলিশ; চক্র সদস্যরা আটক

নাটোর প্রতিনিধিঃ
মোবাইল ফোনে আত্মীয়তার সম্পর্ক গড়ে নাটোরের বড়াইগ্রাম থেকে অপহরণ করা স্কুলছাত্র সজীব আহমেদ বাবুকে (১০) গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলা চরভগবানপুর গ্রাম থেকে উদ্ধার করেছে বড়াইগ্রাম থানা পুলিশ। উদ্ধারকৃত সজীব আহমেদ বাবু আগ্রাণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।
আরো পড়ুন:
বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় নাটোর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সামনে উদ্ধারকৃত বাবুকে তার বাবা-মার সামনে হাজির করা হলে এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।
এর আগে বড়াইগ্রাম থানা পুলিশ তাকে সাদুল্যাপুর উপজেলার চরভগবানপুর গ্রামের ওসমান আলীর বাড়ি থেকে উদ্ধার করে। বাবু নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার আগ্রাণ গ্রামের সেকেন্দার আলী ও শাহেদা বেগমের ছেলে। এ ঘটনায় মূল অপহরণকারীসহ আরো দুই মহিলাকে আটক করা হয়েছে।
আটককৃতরা হলো অপহরণকারী বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলার হুকুম আলী গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে ঈসান আহমেদ সোহাগ (২০), তার খালা চন্ডীপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের স্ত্রী নুরজাহান বেগম (৩৫), অপর একজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি।
পুলিশ ও অপহৃতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, মোবাইলে ধর্ম মামা আত্মীয়তার সম্পর্ক করে শিশু সজিব আহমেদ বাবুকে অপহরণ করে তিন লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছিল অপহরণকারী। এই সূত্র ধরেই পুলিশ সজীব আহম্মেদ বাবুকে জীবিত উদ্ধারের চেষ্টা চালায়। একপর্যায়ে তাকে উদ্ধারের জন্য পুলিশ প্রযুক্তির সহায়তা নেয়। অবশেষে অপহরণের চারদিন পর বুধবার রাতে বড়াইগ্রাম থানা পুলিশ তাকে সাদুল্যাপুর উপজেলার চরভগবানপুর গ্রামের ওসমান আলীর বাড়ি থেকে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় উদ্ধার করে।
সময়নিউজ২৪.কম/ এ এস আর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *