নুসরাতের খুনিদের বাঁচাতে কাজ করছে একটি চক্র

অনলাইন ডেস্ক:

বিভিন্ন দিক থেকে হত্যা মামলার আসামি ও তাদের দোসরদের পে একটি গ্রুপ মাঠে নেমেছে। এলাকাবাসী জানান, সোনাগাজীর সেই মাদ্রাসা শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি শাহাদাত হোসেন শামীম, যুবলীগ নেতা সাবেক ছাত্র নুর উদ্দিন, জাবেদ হোসেন, জোবায়ের আহম্মদ, হাফেজ আবদুল কাদের এবং সোনাগাজী পৌর কাউন্সিলর মকসুদুল আলম ও প্রভাষক আবছার উদ্দিনের পে সাফাই গাইতে শুরু করেছে ওই গ্রুপটি। তারা রাজনৈতিক নেতাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ধরনাও দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

পহেলা বৈশাখ নিয়ে যে মন্তব্য করে সমালোচনায় হেফাজতের আমির

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার একজন শিক জানান, আসামিপরে লোকদের তদবিরের কারণে সংশ্লিষ্ট নেতারা বলেছেন, পরিবেশ এখন ঘোলাটে। এখনই কোনো তদবির চলবে না। পরিবেশ একটু ঠান্ডা হলে তারা তদবিরে নামবে বলে জানিয়েছেন। তবে পুলিশ প্রশাসন রয়েছে কঠোর অবস্থানে। তারা নুসরাতের খুনিদের সঙ্গে কোনো ধরনের আপস-রফায় যেতে রাজি নন। 

সময় নিউজ

এদিকে আসামিদের মধ্যে এ পর্যন্ত ওই মাদ্রাসার প্রভাষক আফসার উদ্দিন, মাদ্রাসার শিার্থী আরিফুল ইসলাম,  নৈশপ্রহরী মো. মোস্তফা, পিয়ন নুরুল আমিন, আলাউদ্দিন, সাইদুল ইসলাম, জসিম উদ্দিন ও আফসার উদ্দিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে ছাত্রলীগ সভাপতিকে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। বিভিন্ন চালচাতুরি করে সে গ্রেফতার এড়িয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে ফেনীর সোনাগাজীতে মাদ্রাসাছাত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা মামলার এজাহার পরিবর্তন করা হয়েছে। শুরুতে ওই মাদ্রাসার অধ্য সিরাজ-উদদৌলাকে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাত পরিচয় চারজন ও তাদের সহযোগীকে আসামি করা হয়েছিল। এবারে অধ্যকে প্রধান আসামি রেখে আরও সাতজনের নাম উল্লেখ করে তাদের আসামি করা হয়েছে এই মামলায়।

সময়নিউজ২৪.কম/ এ এস আর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *