নড়াইলে ছেলে ও বউমার অত্যাচারে গোয়াল ঘরে থাকা ৯২ বছর বয়সী শাহাজাদী নিজগৃহে

উজ্জ্বল রায়,নড়াইল জেলা প্রতিনিধি:
পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপে নিজ গৃহে  ঠাঁই পেলেন ৯২ বছরের এক বৃদ্ধ মা। নড়াইলের কালিয়া উপজেলার বাবরা হাচলা ইউনিয়নের কাঞ্চনপুর গ্রামে ছেলে ও বউমার অত্যাচারে গোয়াল ঘরে থাকা ৯২ বছর বয়সী শাহাজাদী বেগমকে নিজ ঘরে তুলে দিলেন উপজেলা প্রশাসন।
বুধবার(১৯জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আরিফুল ইসলাম,উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ জহুরুল ইসলাম,উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবু রায়হান, ও কালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ কনি মিয়ার হস্তক্ষেপে তাকে নিজ ঘরে তুলে দেওয়া হয়। ঘটনা সুত্রে জানা যায়, ঐ গ্রামের মৃত আবুল হোসেন শেখের স্ত্রী শাহাজাদী বেগমের দুই ছেলে শরিফুল শেখ(৪৫)ও রফিকুল শেখ (৫০) তাদের মা সহ একটি ঘরের তিনটি রুমে আলাদা ভাবে  বসবাস করত। দুই ভাইয়ের জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে গত ৭ জানুয়ারি ছোটভাই শরিফুল শেখ ও তার বউ মিলে বৃদ্ধা শাহাজাদী বেগম ও বড় ভাই রফিকুল শেখ কে ২টি শিশু সন্তান সহ জোরপূর্বক ঘর থেকে নামিয়ে দেয়।
উপায়ন্তর না পেয়ে বৃদ্ধা মা ও শিশু সন্তানদের নিয়ে বাড়ির পাশের গোয়াল ঘরে আশ্রয় নেন ভাই রফিকুল ঘটনাটি স্হানীয়রা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিলে  রাতারাতি ভাইরাল হয়। বিষয়টি স্হানীয় গণমাধ্যমে প্রচারিত হলে প্রশাসনের চোখে পড়ে। নিজ ঘরে ঠাঁই পাওয়া বৃদ্ধা  শাহাজাদী বেগম এই প্রতিবেদককে জানান, আমার ছেলে ও বিটার বউ আমারে ও আমার ছেলে ও পুতাদের  ঘর থেকে তাড়িয়ে গুয়াল ঘরে থাকতে দিছিল। তুমরা আমারে আবারো ঘরে তাকতি দিলে আল্লাহ তোমাদের ভাল রাখুক। এ বিষয়ে কালিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আরিফুল ইসলাম জানান, ছোট ভাই শরিফুল শেখ বৃদ্ধা মা ও বড় ভাইকে ঘর থেকে নামিয়ে গোয়াল ঘরে থাকতে দিয়েছে বিষয়টি অমানবিক। আমরা বিষয়টি জানার পর আজ তাদের ঘরে বসবাসের ব্যবস্থা করে দিয়েছি। তবে দুই ভাইয়ের পারিবারিক জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় হওয়ায় আগামী রবিবার শুনানী করে স্হায়ী সমাধান করা হবে। তিনি আরো বলেন,যেখানে প্রধানমন্ত্রী গৃহহীনদের থাকার জন্য জায়গাসহ ঘর তৈরী করে দিচ্ছেন সেখানে এমন ঘটনা মেনে নেওয়া কষ্টকর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *