পাট ক্ষেতে নিয়ে ১ম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ ; রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি

চাঁদপুর প্রতিনিধি :
চাঁদপুর সদর উপজেলার আশিকাটিতে ৮ বছরের শিশু ধর্ষণ আটক এক। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার শেষ বিকেলে চাঁদপুর সদর উপজেলার ২নং আশিকাটি ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডস্থ গাজী বাড়ির সামনে। শিশু ধর্ষণের ঘটনায় বুধবার দুপুরে চাঁদপুর মডেল থানার পুলিশ একজনকে আটক করেছে। মঙ্গলবার রাতের আঁধারে শিশুটির মা গুরুতর আহত অবস্থায় রাত ৯টায় শিশুকে গোপনে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে এনে ভর্তি করে। ধর্ষিতা শিশুটি চাঁদপুর সদর উপজেলার লালদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী। ঘটনার সময় সে স্কুল থেকে বাড়ি ফিরছিলো।
ওই এলাকার গাজী বাড়ির সামেদ আলী গাজীর ছেলে মোখলেস গাজী (৩৮) জোরপূর্বক শিশুটিকে পাট খেতে নিয়ে ধর্ষণ করে। রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে তার মা উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যায়। ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য এলাকার চিহ্নিত দালাল মৃত আলী হোসেনের ছেলে বিল্লাল খান ও ওয়ার্ড মেম্বার আলফু খান সহ কয়েকজন দফায় দফায় বৈঠক করে শিশুটিকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে বাধা দেয় বলে শিশুর অভিভাবক জানান। পরে মঙ্গলবার রাতের আঁধারে শিশুটির মা গুরুতর আহত অবস্থায় গোপনে বোরকা পরে রাত ৯টায় শিশুকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে এনে ভর্তি করেন।
খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানার ওসি নাসিম উদ্দিন হাসপাতালে গিয়ে শিশুটির খোঁজ-খবর নেন। তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে মডেল থানার এএসআই আবু হানিফকে পাঠান। পরে পুলিশ ধর্ষণকারীকে না পেয়ে এ ঘটনার সাথে জড়িত তার ভাইকে আটক করে মডেল থানায় নিয়ে আসেন।
শিশুর পরিবার জানায়, জাল টাকার মামলায় মোখলেস গাজী ১৪ বছর জেল খেটেছে। জেল থেকে বের হয়ে এসে এলাকায় বেশ ক’টি নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটিয়েছে।

শিশুটি স্কুল থেকে আসার পথে জোর করে উক্ত মোখলেছ পাট ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করেছে। এই ঘটনাটি এলাকার ওয়ার্ড মেম্বার ও দালাল চক্র ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। ধর্ষণকারী লম্পট মোখলেস গাজী বাবুরহাট বাজারের কাঁচামালের ব্যবসায়ী। সে তার জাল টাকার ব্যবসা বাজারে বসেই পরিচালনা করে। তার ও তার সহযোগীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায় এলাকাবাসী।

মডেল থানার ওসি নাসিম উদ্দিন জানান, শিশু ধর্ষণের ঘটনায় যারা জড়িত তাদের কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। প্রধান আসামীকে আটক করার চেষ্টা চলছে। এই ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *