পুলিশ সুপারের কঠোর ভূমিকার কারনে নড়াইল ছেড়ে পালাচ্ছে চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী অপরাধী, ইয়াবা ও হেরোইন ব্যবসায়ীরা

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি:

(১১,জুন) নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম (বার)’র কঠোর অবস্থানের কারনে নড়াইল ছেড়ে পালাচ্ছে সব ধরনের। তিনি স্থানীয় প্রভাবশালীদের চাপের মুখেও অপরাধ দমনে অভিযান অব্যাহত রেখেছেন।

কুখ্যাত অপরাধী সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ইয়াবা, হেরোইন ব্যবসায়ীসহ। একই সঙ্গে গ্রেফতার করেছেন আরো অন্তত অর্দশত চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, অপরাধী ও ইয়াবা ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছেন। আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়, জানান, এরই মাঝে নড়াইল ছেড়ে পালিয়ে গেছে শীর্ষ সন্ত্রাসী অপরাধী,ইয়াবা ও হেরোইন ব্যবসায়ীরা। তাই এই পুলিশ সুপারের প্রতি নড়াইলের জনগনের আস্থা বাড়েছে। বিগত জাতীয় নির্বাচনের পর থেকে তিনি নড়াইল থেকে সন্ত্রাস চাঁদাবাজী নির্মূলে একের পর এক হুংকার ছাড়লেও সচেতন মহলে এতোদিন তার এসব হুংকার মোটেও আমলে নেন নাই।

অনেকেই মনে করেছেন এই নড়াইলে অতীতে আরো অনেক পুলিশ সুপার এসে এমনই হুংকার ছেড়েছেন। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই করতে পারেননি। বরং অনেকে আবার এই জেলা থেকে লজ্জাজনকভাবে বিদায় নিয়েছেন। আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করাতো দূরের কথা, বরং লেজেগোবরে অবস্থার সৃষ্টি করেছেন।কিন্তু এবার দেখা যাচ্ছে ব্যাতিক্রম।

বর্তমান নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম (বার)’ থেমে থেমে এই শহরের
সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ইয়াবা, হেরোইন ব্যবসায়ীসহ অপরাধীদের গ্রেফতার করা অব্যাহত রেখেছেন। গ্রেফতার করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। জনগনের মাঝে পুলিশ সুপাকে নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন ভাবনা চিন্তা। অনেকেই জানতে চাইছেন আসলে কি করতে চান নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম (বার)। তাই নড়াইলের বিভিন্ন পাড়া মহল্লার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ
এখন চোক খান খাড়া করেছেন। তারা ভাবছেন পুলিশ সুপার হয়তো সত্যিই আন্তরিকভাবে চাইছেন একটা কিছু করতে। তবে এই মুহুর্তে দমৈত নির্বিশেষে সকল মানুষই এই পুলিশ সুপারকে সমর্থন জানাচ্ছেন।

তারা মনে করেন সারা দেশে যেভাবে খুন ধর্ষন সহ নানা রকম অপরাধ বেড়ে চলেছে এবং জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে তাতে নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন,পিপিএম (বার) সন্ত্রাস, ইয়াবা, হেরোইন ব্যবসায়ীর ও সেবী দমনে এই শক্ত ভূমিকা এই নড়াইল জেলার মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরিছে।

এরই মাঝে বিভিন্ন এলাকার মানুষ পুলিশ সুপারের প্রতি তাদের সমর্থন জানিয়ে তার সাফল্য কামনা করছেন। কেউ কেউ এমন মন্তব্যও করছেন যে থাকুক নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম (বার)’র এই জেলায় আরো পাঁচ বছর থাকুক। তিনিই পারবেন নড়াইলের এই জেলাকে সন্ত্রাসী অপরাধী ও ইয়াবা ব্যবসায়ীদের হাত থেকে নড়াইল রক্ষা করতে। সমাজের সর্বত্র যেভাবে সন্ত্রাসী,ইয়াবা, হেরোইন ব্যবসায়ী, ঝেকে বসেছে এবং সাধারন মানুষের উপর নানা কায়দায় নীপিরন নির্যাতন চালিয়ে যচ্ছে তাতে দিশেহারা হয়ে পরেছিলো মানুষ। যখন প্রত্যেকটি পাড়া মহল্লায় গজিয়ে উঠা সন্ত্রাসীদের দাপটে ঘর থেকে বের হতে সাহস পাচ্ছিলো না মানুষ তখন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম (বার) তাদেরকে রুখে দাড়ানোর কারনে বদলে যাচ্ছে নড়াইলের
পরিস্থিতি। পালাতে শুরু করেছে অপরাধীরা। তাই শেষ পর্যন্ত এই পুলিশ সুপার কতোদূর যাবেন সেটাই এখন দেখার বিষয়।

এবিষয়ে নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার),আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়কে জানান, আজ থেকে ১৪/১৫শ বছর পূর্বে যেখানে জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসী ও মাদককে হারাম করা হয়েছে, এর বিরুদ্ধে ইসলামে কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করেছেন।

বর্তমান সরকারের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি, ইয়াবা, হেরোইন ব্যবসায়ী ও সেবীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করেছেন এবং তার বাস্তব দৃশ্য জনগণ দেখতে পাচ্ছেন এজন্য প্রধান মন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। একজন জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ইয়াবা, হেরোইন ব্যবসায়ীর ও সেবী পরিবার, গ্রাম, সমাজ, দেশ, জাতি তথা বিশ্বের জন্য ক্ষতিকারক। পরিবার
সমাজ, দেশ, জাতি বিশ্বকে ধ্বাংশ করছে। যেখানে খুন, হত্যা, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি সেখানে জড়িত ইয়াবা, হেরোইন, ব্যবসার কারবার যেখানে চলবে যেখানে আমাদের সাবাইকে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে, ইয়াবা, হেরোইন সেবী ও ইয়াবা, হেরোইন ব্যবসায়ীকে আইনর্শংখলা বাহনীর হাতে তুলে দিতে হবে।

জুয়া আমাদের পরিবার সমাজ দেশ ধ্বংশের অন্য একটি মাধ্যম, জুয়া খেলেন যারা তারা জুয়া খেলায় বাড়ী, গাড়ী, জমি, জায়গা, সম্পাদ হেরে যান এমন কি নিজের স্ত্রীকেও হেরে যান। এ জুয়া খেলা থেকে আমাদের বিরত থাকতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ইয়াবা, হেরোইন ব্যবসায়ী ও সেবীরা আরও একটি বড় সমস্যা। ইসলামে কোথায় বলা নাই যে, মানুষকে হত্যা করা যাবে।আমাদের দেশের যুবসমাজকে একটি কুচত্রী মহল ইসলামের ভুল ব্যখ্যা দিয়ে জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করছেন, মানুষ হত্যা করছেন আমাদের সবাইকে এ ব্যপারে সজাগ থাকতে হবে। আমার আপনার ছেলে মেয়েদের ইসলামী শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে। পবিত্র ধমর্ গ্রন্থ আল কুরআনকে ভালভাবে বুঝতে হবে।

সময়নিউজ২৪.কম/ বি এম এম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *