প্রচন্ড গরম, তাপদাহে হাসপাতালে বাড়ছে রোগী

সিরাজুল ইসলাম,গলাচিপা,পটুয়াখালী।
প্রচন্ড গরম পড়ছে।তাতে পুড়ছে মানুষ।বাড়ছে রোগী।নানা রোগে আক্রান্তদের ভিড় বাড়ছে হাসপাতালে।প্রচন্ড গরমের কারনে গলাচিপা উপজেলা হাসপাতালে বিভিন্ন ওয়ার্ডে রোগীর সংখ্যা বেড়েছে।হাসপাতালের ওয়ার্ডগুলো রোগীদের উপস্থিতিতে কানায় কানায় ভরে গেছে।জ্বর,টাইফয়েট,সর্দি,কাশি,হাপানী,পাতলা পায়খানা সহ নানা রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ও বাড়ছে।গরমে সতর্ক থাকার পরামর্শ চিকিৎসকদের।
শুধূ গলাচিপা নয় গত ২৫-৩০ দিন ধরে প্রচন্ড ভ্যাবসা গরম ও তাপদাহে পুড়ছে সারাদেশ। সূর্যের প্রচন্ড তাপ ও গরমে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন।দিনের প্রথম ভাগে গরীব দিনমজুর রিক্সা চালক ও বিভিন্ন নি¤œ পেশাজীবি মানুষ কাজ শুরু করলেও তাপমাত্রা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে।
দিনমজুর মোঃ জামাল মোল্লা বলেন রোজা রেখে এই গরমের মধ্যে কাম করতে পারি না।পানির পিপাসা লাগে।এত গরমে আমাগো মত গরীব বাচবে না।এই গরমে সবচেয়ে বেশী ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে শিশু ও বৃদ্ধদের।প্রচন্ড গরমের সাথে যোগ হয়েছে লোডশেডিং,পানি সংকট।একদিকে প্রচন্ড গরম অন্য দিকে উপজেলার পুকুর,খাল ডোবায় পানি শুকিয়ে যাওয়ায় সকল বয়সের মানুষ ছুটে যায মাইলে মাইল হেটে নদীতে।গভীর নলকুপের সংখ্যা কম থাকায় ভীর জমায় সকাল থেকে রাত পর্যন্ত।সূর্যের প্রচন্ড তাপ ও গরমে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন।অতিষ্ট হয়ে পড়েছে কর্মজীবি মানুষ।সঙ্গে প্রানীকূল ও একটু পানি আর ছায়ার জন্য হায় হাসফাস করছে।
আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে বাতাসে আর্দ্রতা অনেক বেশি হাওয়ায় গরমের অনভুতি অনেক বেশী।তবে বাতাসে আর্দ্রতার পরিমান কম থাকলে গরমের অনুভ’তি কিছুটা কত হতো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *