প্রবীণ জয়াবিক্রমার ঘূর্ণিতে দিশেহারা বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্কঃ

ক্যান্ডি টেস্টের দৃশ্যপটে বাংলাদেশ ক্যাম্পের হতাশার ছবি। প্রবীণ জয়াবিক্রমার ঘূর্ণিতে দিশেহারা বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে গেছে ২৫১ রানে। ফলে ফলোঅন এড়াতে পারেনি। যদিও সফরকারীদের ফলোঅন না করিয়ে ২৪২ রানে এগিয়ে থাকা শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমেছে।

শ্রীলঙ্কার করা ৪৯৩ রানের জবাবে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে বাংলাদেশ। পাল্লেকেলে ২২৪ রান তুলছে ৬ উইকেটের পতন হয়েছে সফরকারীদের। ক্রিজে রয়েছেন দুই নতুন ব্যাটার মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম।

দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনের প্রায় সবটাই দারুণ খেলেছিলো বাংলাদেশ। তবে পুরোটা নিজেদের করে নেয়ার দ্বারপ্রান্তে এসেও ব্যর্থ। তামিমের ঝড়ো অর্ধশতকের পর মধ্যাহ্ন বিরতির ঠিক আগ মুহূর্তে সাইফ হাসান (২৫) আর নাজমুল হোসেন শান্ত (০) ফিরলে অম্ল মধুর কাটল বাংলাদেশের সেশনটা।

এরপর দলীয় ১৫১ রানে তিন অঙ্ক ছুঁতে ব্যর্থ তামিম নার্ভাস নাইন্টিজে ফিরলে ক্রিজে আসেন মুশফিকুর রহিম। দারুণ সব স্ট্রোকে মোমিনুলের সঙ্গে জুটি গড়ে দলকে এগিয়ে নেয়ার পাশাপাশি নিজেও পৌঁছে গেছিলেন অর্ধশতকের দোরগোড়ায়। কিন্তু না, বিধি বাম! মুশিকে এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে চা বিরতিতে যায় শ্রীলঙ্কা।

ইনিংসের তখন ৬২ তম ওভারের খেলা চলছে। ৪০ রান নিয়ে ব্যাট করছেন মুশফিক। ওপর প্রান্তে ৪৭ রান নিয়ে ফিফটির আশায় দাঁড়িয়ে আছেন অধিনায়ক মোমিনুল হক সৌরভ। অভিষিক্ত প্রভীন জয়াবিক্রমা ব্যক্তিগত ২১তম ওভারের চতুর্থ বলটি ডেলিভারি দিলেন, দ্রুতই সেটি আঘাত হানে মুশফিকের প্যাডে। সঙ্গে সঙ্গে সমস্বরে জোরালো আবেদন।

পিছনে ব্যাটের সাপোর্ট থাকায় সে আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার। তবে রিভিউ নিয়ে উৎসবে মাতেন লঙ্কানরা। আর বিমর্ষচিত্তে মাথা নিচু করে মাঠ ছাড়েন মি. ডিপেন্ডেবল। যাতে ২১৪ রানেই চতুর্থ উইকেট হারাল বাংলাদেশ। ফেরার আগে ৬২ বলে সাতটি চারের মারে ৪০ রান করেন মুশি, সেইসঙ্গে মোমিনুলের সঙ্গে গড়েন ১১১ বলে ৬৩ রানের প্রত্যয়দীপ্ত জুটি।

এরপর মাঠে নামেন দেশের বাইরে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি করা মুমিনুল হক। এই ম্যাচের প্রথম ইনিংসেও শুরু থেকেই খেলছিলেন দায়িত্ব নিয়ে। কিন্তু এরপরই মুমিনুল হক ফিরে গেছেন সাজঘরে। রামেশ মেন্ডিসের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে। মুমিনুল ৪৯ রানে আউট হওয়ার পর ৮ রান করে সাজঘরে ফেরত গেছেন লিটন দাসও।

অর্থাৎ লঙ্কার ৪৯৩ রানের জবাবে এখন অনেকটাই ব্যাকফুটে বাংলাদেশ। টাইগারদের ৬ উইকেটের ৪টিই শিকার করেন অভিষিক্ত বাঁহাতি স্পিনার জয়াবিক্রমা।

এর আগে সকালে আগের দুই ইনিংসের মতোই আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে শুরু করেন তামিম ইকবাল। পাল্লেকেলেতে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনে ক্যারিয়ারের ৩১তম অর্ধশতক তুলে নিয়ে পৌঁছে যান শতকের দোরগোড়ায়। কিন্তু না, আবারও তিন অঙ্ক ছুঁতে ব্যর্থ তামিম ফিরলেন নার্ভাস নাইন্টিজেই।

দ্বিতীয় সেশনের প্রথম ঘণ্টার শেষ মুহূর্তেই সেই প্রভীন জয়াবিক্রমার স্পিনে স্লিপে দাঁড়ানো থিরিমান্নের হাতে ধরা পড়ে বিদায় নেন তামিম। ফেরার আগে ১৫০ বলে খেলেন ৯২ রানের আরেকটি আক্ষেপ ছড়ানো ইনিংস। যে ইনিংসে ছিল ১২টি চারের মার।

বিদায়ের আগে মোমিনুলের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে ৯৮ বলে গড়েন ৫৪ রানের জুটি। আর এরই সঙ্গে ইনিংসের ৪৪তম ওভারে গিয়ে তৃতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ, ১৫১ রানের মাথায়। একইসঙ্গে এ নিয়ে টানা তিন ইনিংসেই অর্ধশতক হাঁকালেন তামিম।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেটে ৪৯৩ রান তুলেই ইনিংস ঘোষণা করেছে শ্রীলঙ্কা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৪০ রান করেন লাহিরু থিরিমান্নে। দলনায়ক দিমুথ করুনারত্নের ব্যাট থেকে আসে ১১৮ রান। এছাড়া ওশাদা ফার্নান্ডো ৮১ ও নিরোশান ডিকওয়েলা করেন অপরাজিত ৭৭ রান।

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নিয়ে সফল বোলার ছিলেন তাসকিন আহমেদ। এছাড়া তাইজুল, শরিফুল ও মিরাজ নেন একটি করে উইকেট।

সময় নিউজ২৪.কম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *