বাগমারায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টা

বাগমারা প্রতিনিধি:

রাজশাহীর বাগমারায় আদালতের মাধ্যমে অস্থায়ী নিষেধজ্ঞা জারি করে  জমি দখলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।
বাগমারা উপজেলার আউচপাড়া ইউনিয়নের রমপাড়া গ্রামের অাব্দুস সাত্তার দেয়ার নামের এক ব্যক্তি গত ১৯ অক্টোবর রাজশাহী অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্টট অাদালতে মামলা দায়ের করে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। কিন্তু আব্দুস সাত্তার দেয়ান অাদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গত রোববার দুপুরে তার লোকজন নিয়ে উক্ত জমিতে টিনসেটের ঘর নিমাণ ও  বাঁশের বেড়া ভেঙ্গে ফেলে জমি দখল নেয়ার চেষ্টা করতে থাকে। ওই সেফাতুল্লাহ সরদারের ছেলে কামাল হোসেন বাধা দিতে গেলে তাকে প্রাণ নাশের হুমকি দেন বলে অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে। ভুক্তভোগী কামাল হোসেন গত রোববার সন্ধায়  হাটগাঙ্গোপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ ও এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বাগমারা উপজেলার আউচপাড়া ইউনিয়নের রমপাড়া গ্রামের আব্দুস সাত্তার দেয়ান ও সেফাতুল্লাহ মধ্যে বিনিময় জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। উক্ত জমি সেফাতুল্লাহ সরদারসহ তার ওয়ারিশগন ভোগ দখল করেন। গাছপালা রক্ষার জন্য সেফাতুল্লাহ সরদারের ছেলে কালাম হোসেন বাঁশের বেড়া দিয়ে জমি ঘিরে রাখেন। কয়েকবার গ্রাম্য সালিশে সেফাতুল্লাহ সরদারের পক্ষে    রায় হয়। প্রতিবেশি আব্দুস সাত্তার দেয়ার বাদি  নারী-পুরুষকে আসামি গত ১৯ অক্টোবর আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত অস্থায়ী  নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। আসামি পক্ষের কাছে নিষেধাজ্ঞার নোটিশ দিয়েছেন বাগমারা থানার পুলিশ। গত রোববার হাট গাঙ্গোপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোস নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আইন শৃঙ্খলার অবনতি না ঘটে সেজন্য উভয় পক্ষকে নিষধ করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে চলে গেলে আব্দুস সাত্তার দেয়ার তার লোকজন নিয়ে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য জমিতে টিনসেটের ঘর নিমাণ ও বাঁশের বেড়া ভেঙ্গে ফেলে জমি দখলের চেষ্টা চালায়। এবিষয়ে ভোক্তভোগী কামাল হোসেন বাদি হয়ে রোববার সন্ধায় হাট গাঙ্গোপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে ৬ জনকে আসামি করে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

হাট গাঙ্গোপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ রফিকুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, উক্ত জমি নিয়ে আদালতের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তিনি আরো বলেন গত রোববার সন্ধায় কামাল হোসেন নামের এক ব্যক্তি ওই জমি নিয়ে অভিযোগ দায়ের করেছেন। তদন্ত করে আইন গত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সময় নিউজ২৪.কম/এমএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *