বিষ দিয়ে মাছ শিকার

মোংলা প্রতিনিধি:
নিষেধাঙ্গা অমান্য করে আবারো সুন্দরবনের বিভিন্ন নদী ও খালে কিটনাশক দিয়ে মাছ নিধন চলছে। বনে জেলে সেজে বিশ দিয়ে মাৎস্য আহরন বন্ধে চলতি মাসের ১ জুলাই সুন্দরবন পুর্ব ও পশ্চিম বিভাগের ৪শ টি খালে দুই মাসের জন্য মৎস্য আহরন বন্ধ ঘোষনা করে বন বিভাগ। কিন্ত থেমে নেই এসকল খালে মৎস্য নিধন। পুর্ব বিভাগে চাদঁপাই রেঞ্জের পশুর নদী সংলগ্ন হারবাড়িয়া, চড়াপুটিয়া, মরাপশুর, নন্দবালা, জোংড়া, আন্দারমানিকসহ যে সকল খালে অভয়ারন্য এলাকা ঘোষনা করা হয়েছে সে সকল এলাকায় বন বিভাগের সহায়তায় বনজ ও মৎস্য সম্পদ উজাড় করছে এক শ্রনীর অসাধু জেলেরা।

তারা ষ্টেশন থেকে পাশ-পারমিট নিয়ে বন রক্ষিদের ম্যানেজ করে নিষিদ্ধ খালে ঢুকে রাতের অন্ধকারে কিটনাশক ছিটিয়ে মাছ শিকার করছে। যা বেশ কয়েকবার চাদঁপাই রেঞ্জ কর্মকর্তা মোঃ শাহিন কবির অভিযান চালিয়ে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠালেও আইনের ফাকফোকর দিয়ে বের হয়ে পুনরায় বিশ দিয়ে মৎস্য সম্পদ আহরনে মেতে উঠছে। এমনি এক গোপন খবরে মোংলা জয়মনি চাদঁপাই ফরেষ্ট ষ্টেশনের ঘাট থেকে বিষ যুক্ত মাছসহ দুই জেলেকে আটক করেছে নৌ-পুলিশ। তাদেরকে রোবিবার গভির রাতে চাদঁপাই ফরেষ্ট ষ্টেশনের ঘাট থেকে যাওয়ার সময় একটি কাঠের তৈরী নৌকা ও মাছসহ ৩জনকে আটক করে। বন রক্ষীরা ঘটনাস্থলে পৌছানো আগেই গোপনে মুল মালিক মহিদুলকে ছেড়ে দিয়ে ২জন কর্মচারীকে নৌ-থানায় নিয়ে আটক রাখে।

নৌ-পুলিশ মোংলা জয়মনি থানার ইনচার্জ শরিফুল ইসলাম জানান, প্রজনন মৌশুমে সুন্দরবনে সকল ছোট খালে মৎস্য আহরনের নিষেধাঙ্গা চলছে। কিন্তু নিষেধাঙ্গা অমান্য করে মাছ ধরায় সোমবর ভোরে সুন্দরবনের জয়মনি থেকে জিয়াদুল (৪২) ও ফিরোজ (৩৬) দুই জেলেকে আটক করা হয়, এসময় বাকিরা পালিয়ে যায়। আটক জেলেদের বাড়ী মোংলার বৌদ্ধমারী এলাকায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *