ভারতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত দুই বাংলাদেশীর মরদেহ বেনাপোলে হস্তান্তর

যশোর প্রতিনিধিঃ
ভারতের কলকাতায় চিকিৎসা নিতে যেয়ে লাশ হয়ে দেশে ফিরলো বাংলাদেশী ফারজানা ইসলাম তানিয়া ও মঈনুল হোসেন।কলকাতায় মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় তারা নিহত হন।রোববার সকাল ১০টায় বেনাপোল দিয়ে তাদের মরদেহ দেশে আনা হয়।
নিহত ফারজানা ইসলাম তানিয়া কুষ্টিয়ার খুকসা উপজেলার চান্দুর গ্রামের মুন্সি আমিনুল ইসলামের মেয়ে। তিনি বাবা মায়ের দুই মেয়ের মধ্যে বড় ছিলেন। তার মরদেহ গ্রহন করেন তার চাচাতো ভাই আবু ওবায়দা শাফিন। ফারজানা ইসলাম তানিয়া সিটি ব্যাংকের সিনিয়ার কর্মকর্তা হিসাবে ধানমন্ডি শাখায় কর্মরত ছিলেন।অপরদিকে মঈনুল হোসেন ঝিনাহদাহের বুটিয়াঘাটি গ্রামের কাজী খলিলুর রহমানের ছেলে। তিনি চাকুরী করতেন গ্রামিন ফোনের গুলশান শাখায় । তার মরদেহ গ্রহন করেন তার চাচাতো ভাই জিয়াদ আলী।
গত ১৪ আগষ্ট চিকিৎসা নিতে তারা কলকাতায় যান। ১৬ ই আগষ্ট ফারজানা,মঈনুল ও তাদের এক সহকর্মী শফিউল্লাহসহ তারা তিন জন কলকাতার সেক্সপিয়ার সরনীতে রাস্তার পাশে দাড়িয়ে সিএনজির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এমন সময় দুইদিক থেকে দ্রুত গতিতে ছুটে আসা দুটি প্রাইভেটকার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে একটি প্রাইভেটকার আছড়ে তাদের গায়ে এসে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলে নিহত হয় ফারজানা,মঈনুল। শফি উল্লাহ আহত হন।
আহত শফি উল্লাহ জানান, কপালের জোরে তিনি বেঁচে গেছেন। বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোয় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে এ দূর্ঘটনা ঘটে। এমন ঘটনার জন্য তিনি ভারত সরকারের কাছে বিচার দাবী করেন।
বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)আলমগীর হোসেন বলেন, মৃতদেহ দুটি কাগজ পত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদের পরিবারের কাছে তুলে দেওয়া হয়েছে।
সময়নিউজ২৪.কম/ বি এম এম 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *