মোংলায় এই প্রথম ১৫৭জন শিশুকে সাতার শেখানো প্রশিক্ষন

মোংলা প্রতিনিধি:

বন্দর সংলগ্ন উপকুলীয় এলাকা মোংলায় এই প্রথম শিশু শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষন দিয়ে সাতার শিখিয়েছে একটি সেচ্ছাসেবী সংগঠন। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ফ্রেন্ডশীপ মোংলা উপজেলার সোনাইলতলা ইউনিয়নে ১৫৭ জন শিশুকে সাতার সেখানো প্রশিক্ষন দিয়েছে। সিআইডিআরআর-কোস্টাল প্রকল্পের আওতায় ফ্রেন্ডশীপ সাতার শেখানোর এই প্রকল্প হাতে নিয়েছে।

বাংলাদেশের প্রস্তাবনায় প্রথমবার পালিত আন্তর্জাতিক ”পানিতে ডুবে মৃত্যু প্রতিরোধ দিবস”পালন উপলক্ষে ২৫ জুলাই রবিবার দুপুরে গণমাধ্যমের কাছে ফ্রেন্ডশীপ এতথ্য প্রকাশ করে।
বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ফ্রেন্ডশীপ’র সিআইডিআরআর-কোস্টাল প্রোজেক্ট ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আউয়াল আন্তর্জাতিক ”পানিতে ডুবে মৃত্যু প্রতিরোধ দিবস” উপলক্ষে গণমাধ্যমকে জানান, ফ্রেন্ডশীপ ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট কমিটি এবং বন্যা স্বেচ্ছাসেবকদের সহায়তায় মোংলা উপজেলার সোনাইলতলা ইউনিয়নে এই প্রথম ২০২১ সালে ১৫৭ জন শিশুকে প্রশিক্ষন দিয়ে সাতার শেখানো হয়েছে। তিনি আরো জানান, সেন্টার ফর ইনজুরি প্রিভেনশন এ্যান্ড রিসার্স বাংলাদেশ’র গবেষণায় বাংলাদেশে প্রতিবছর ০-১৭ বছর বয়সের ১৪ হাজার ৫০০ শিশু পানিতে ডুবে মারা যায়। তাই ফ্রেন্ডশীপ’র উদ্যোগে মোংলার সোনাইলতলা ইউনিয়নে সিআইডিআরআর-কোস্টাল প্রকল্প’র মাধ্যমে সাতার শেখানো প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সকল ইউনিয়নে শিশুদের সাতার শেখানো কার্যক্রম চলমান থাকবে।

উপকুলীয় এলাকার শিশুদের সাঁতার শিখানোর এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন সোনাইলতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাজিনা বেগম নার্জিনাসহ গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ। তারা বলেন, মোংলা বন্দর ও উপজেলা ব্যাপি নদী সংলগ্ন হওয়ায় এ উপকুলীয় এলাকায় অনেক শিশু সাতার না জানায় পানিতে ডুবে মারা যায়। তাই ছোট ছোট শিশুদের সাঁতার শেখানোর বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ন কাজ। প্রশিক্ষণের অভাবে মোংলাসহ বাংলাদেশে প্রতিবছর হাজার হাজার শিশুর পানিতে ডুবে মৃত্যু হচ্ছে।

এ বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ফ্রেন্ডশিপের সিআইডিআরআর-কোস্টাল প্রকল্পের চলমান সাতার শেখানো কার্যক্রমে সবধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।জানা যায়, প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ভাবে পালিত হচ্ছে ”পানিতে ডুবে মৃত্যু প্রতিরোধ দিবস”। গত এপ্রিলে বাংলাদেশের প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে পানিতে ডুবে মৃত্যুকে ”নীরব মহামারি” স্বীকৃতি দিয়ে প্রতি বছর ২৫
জুলাই আন্তর্জাতিক ভাবে ”পানিতে ডুবে মৃত্যু প্রতিরোধ দিবস” পালনের সিদ্ধান্ত নেয় জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *