মোংলায় নতুন ঠিকানায় ৫০ অসহায় পরিবার

মোংলা প্রতিনিধি:

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে মোংলায় ৫০ জন আশ্রায়হীন পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সরকারি নতুন ঠিকানা ও ঘর তুলে দিলেন পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রনালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার।আজ শনিবার (২৩ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নির্মিত ঘর গুলো উদ্বোধন করার পর মোংলায় ৫০টি পরিবারের হাতে এ নতুন ঘরের চাবী ও কাগজ পত্র তুলে দেন।

মোংলা উপজেলা পরিষদ অফিসার্স ক্লাব মিলনায়তনের সামনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের
হাওলাদার, শহকারী কমিশনার (ভুমি) নয়ন কুমার রাজ বংশী, মোংলা পোর্ট পৌরসভার নব নির্বাচিত মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আঃ রহমান, মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল বাহার চৌধুরী, মোংলা সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম সরোয়ার মোংলা উপজেলার অসহায় ও গরিব আশ্রায়হীনদের এ ৫০টি ঘরের মালিকানার দলিলপত্র ও চাবি স্ব স্ব পরিবারগুলোর হাতে তুলে দেন।

এসময় উপজেলার বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের প্রধান, উপজেলা সকল ইউনিয়ন ও পৌরসভার জন প্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।‘আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’  প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় যে সকল মানুষের জমি নেই, ঘর নেই, আশ্রায়হীন ভাবে বসবাস করছে, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী তাদের পুনর্বাসনের জন্য মোংলা উপজেলার সরকারি খাস জমিতে চাদঁপাই ইউনিয়নের মাছমারা নারকেলতলা এলাকায় এই সব ঘর নির্মাণ করা হয়েছে।প্রতি পরিবারকে ২ শতক জমির মালিকানা দিয়ে এক শতকের মধ্যে ১লাখ ৭৫ হাজার টাকা ব্যয়ে উপজেলা প্রশাসনের সার্বিকতত্ত¡বাধানে নির্মাণ করা দুই কক্ষ বিশিষ্ট এ ঘর দেয়া হয়েছেমোংলা বন্দর সংলগ্ন আশ্রায়হীনদের মাঝে।মোংলা-রামপালের এমপি পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রনালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার জানায়, নির্মাণকৃত ৫০টি ঘর ভূমিহীনদেরকে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। তার পরেও বাংলাদেশ সরকারের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী এবং খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তলিুকদার আব্দুল খালেক’র নির্দেশনায় যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে, উপজেলার ইউনিয়নগুলোতে যাদের জমি নাই, ঘর নাই, আশ্রায়হীন ভাবে চলাচল করছে। স্থায়ী ভাবে বসবাস করতে পারছেনা, তাদের দ্বিতীয় পর্যায় এসকল পরিবারকে পুর্ণবাসনের জন্য ঘর নির্মাণ করে দেয়া হবে বলেও জানায় উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *