মোংলায় নৌ-বাহিনীতে নতুন করে যুক্ত হলো দুইটি অত্যাধুনিক যুদ্ধ জাহাজ

মোংলা প্রতিনিধি
মোংলায় নৌ-বাহিনীতে নতুন করে যুক্ত হলো চীন দেশ থেকে আনা দুইটি অত্যাধুনিক যুদ্ধ জাহাজ।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় গণচীনে নির্মিত বাংলাদেশ নৌবাহিনীর নতুন জাহাজ দুইটি বানৌজা ওমর ফারুক ও বানৌজা আবু উবায়দাহ দেশের বঙ্গোপসাগর হয়ে মোংলা বন্দরের নৌ-ঘাটিতে পৌঁছেছে।

এসময় নৌসেনাদের বাদক দল নতুন জাহাজ দু’টিতে বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে জাহাজে থাকা নাবিকদের স্বাগত জানায়।

বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারী) সকাল ১১টায় জাহাজ দুইটি মোংলা নেভাল জেটিতে পৌঁছলে খুলনা নৌ-অঞ্চলের আঞ্চলিক কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মূসা,এনপিপি, আরসিডিএস, এএফডব্লিউসি, পিএসসি, বিএন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে নতুন যুক্ত হওয়া জাহাজদয়কে স্বাগত জানান এবং গ্রহন করেন। এসময় নৌবাহিনীর উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা ও নাবিকরা উপস্থিত ছিলেন।

আধুনিক এ যুদ্ধ জাহাজ দুইটির ১১২ মিটার দৈর্ঘ্য মিটার এবং ১২.৪ মিটার প্রস্থ। জাহাজ দুটি ঘন্টায় ২৪ নটিক্যাল মাইল গতিতে চলতে সক্ষম। বিভিন্ন আধুনিক যুদ্ধ সরঞ্জজামে সুসজ্জিত।

এতে রয়েছে আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন কামান, ভূমি থেকে আকাশে এবং ভূমি থেকে ভূমিতে উৎক্ষেপন যোগ্য ক্ষেপনাস্ত্র, অত্যাধুনিক সারভাইলেন্স র‍্যাডার, ফায়ার কন্ট্রোল সিস্টেম, সাবমেরিন বিধ্বংসী রকেট, র‍্যাডার জামিং সিস্টেমসহ বিভিন্ন ধরনের যুদ্ধ সরঞ্জামাদি রয়েছে এ জাহাজে।

সার্বিকভাবে শত্রু বিমান, জাহাজ ও স্থাপনায় আঘাত হানার পূর্ণ ক্ষমতা রয়েছে এ জাহাজ দুটিতে। এছাড়াও হ্যালিকপ্টার অবতরণ ও উড্ডয়নের জন্য ডেক ল্যান্ডিং জাহাজে সমুদ্রে উদ্ধার তৎপরতা, সন্ত্রাস ও জলদস্যু দমন এবং চোরাচালান বিরোধী নানাবিধ অপারেশন পরিচালনার সক্ষমতা রয়েছে।

জাহাজ দু’টিতে দেশের জলসীমায় সার্বভৌমত্ব রক্ষার পাশাপাশি দূর্যোগকালীন সময় জরুরী উদ্ধার ও ত্রান তৎপরতা, অবৈধ মৎস্য নিধন, সমুদ্র ও উপকুলীয় এলাকায় মানব পাচার প্রতিরোধ, জেলেদের নিরাপত্তা বিধানসহ বর্তমান সরকারের ব্লু ইকোনমির বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

নতুন এ জাহাজ দু’টির নৌ-বহরে অন্তর্ভূক্তির মাধ্যমে নৌ-বাহিনীর অপারেশনাল সক্ষমতা বহুলাংশে বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করছেন নৌ-বাহিনীর কর্মকর্তারা। উল্লেখ্য, ফোর্সেস গোল ২০৩০ বাস্তবায়নের লক্ষে বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টা, আগ্রহ ও নির্দেশনায় সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নে বহুমূখী পদক্ষেপের অংশ হিসেবে ইতিমধ্যে নৌ-বহরে যুক্ত হয়েছে আধুনিক প্রযুক্তি ও যুদ্ধ সরঞ্জামে সজ্জিত আধুনিক যুদ্ধ জাহাজ, সাবমেরিন, হেলিকপ্টার ও মেরিটাইম পেট্রোল এয়ারক্রাফট।

নৌবাহিনীর আধুনিকায়ন ও নৌ-বহরের ত্রিমাত্রিক সক্ষমতা বৃদ্ধির অংশ হিসেবে নৌ-বাহিনীর জাহাজ ্য়ঁড়ঃ;ওমর ফারুক ও আবু উবায়দাহ মোংলায় বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে সংযোজন করা হয়েছে। বানৌজা ওমর ফারুক জাহাজের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন ক্যাপ্টেন এস এম আতিকুর রহমান,(জি) এনইউপি,পিএসসি, বিএন ও বানৌজা আবু উবায়দাহ’র অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন ক্যাপ্টেন এম মইনুল চৌধুরী, (সি) এএফডব্লিউসি,পিএসসি, বিএন।

চীনের সাংহাইয়ের সেনজিয়া শিপইয়ার্ড গত ১৮ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে জাহাজ দু’টি বাংলাদেশ নৌ-বাহিনীর নিকট হস্তান্তর করেন। গত ২৩ ডিসেম্বর জাহাজ দু’টি গণচীনের সাংহাই বন্দর হতে যাত্রা শুরু করে ্য়ঁড়ঃ;জানজিয়া্য়ংঁড়ঃ; বন্দর ও মালয়েশিয়ার ্য়ঁড়ঃ;ক্লা্য়ংঁড়ঃ; বন্দর হয়ে প্রায় ৮হাজার কিলোমিটার সমুদ্র পথ অতিক্রম করে বাংলাদেশের মোংলা সমুদ্র বন্দরে নৌঘাটিতে পৌঁছায় সকাল ১১টায় এসময় নৌ-বাহিনীর পদস্থ কর্মকর্তা ও নৌ- নাবিকরা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

সময় নিউজ২৪.কম/এমএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *