মোংলায় শ্বশুর বাড়িতে নববধুর অবস্থান ধর্মঘট নিয়ে হুলুস্থুল স্বীকৃতি না পেলে আত্মহতির হুমকি

 

মোংলা প্রতিনিধিঃ

ঈশিতা মন্ডল(১৮)। হাতে শাঁখা,কপালে সিদুর। পড়নো তার লাল টুকটুকে শাড়ি। বধু সাঁজেই উঠে পড়েছেন প্রেমিকার বাড়িতে। স্থানীয় মন্দরি পুরোহিতের মাধ্যমে গত দু’মাস আগে বিয়ে হয়েছিল প্রেমিক সুজিত বিশ্বাস (৩০) এর সঙ্গে।

কিন্তু প্রেমিক রুপী সুজিত তাকে নিয়ে একের পর এক প্রতারনার আশ্রয় নিলে স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে প্রেমিকার বাড়িতেই অবস্থান করছে ওই তরুনী। তার দাবী-স্ত্রী স্বীকৃতি না পেলে আর বাড়ি ফিরেবে না। তাই আত্মহতির জন্য সঙ্গে রেখেছেন দড়িও ! মোংলার চাঁদপাই উইনিয়নের কানাইনগর গ্রামে মঙ্গলবার সকাল থেকে শশুর বাড়িতে নববধুর এ অবস্থান নিয়ে হুলুস্থুল শুরু হয়েছে।

নব বধুকে দেখতে প্রতিবেশ শত শত নারী-পরুষ ভীড় করছেন ওই বাড়িতে। স্থানীয় ইউপি সদস্য সেলিম হাওলাদার জানান, প্রায় ৩ বছর আগ থেকে একই এলাকার সুপদ বিশ্বাসের ছেলে সুজিত বিশ্বাসের সঙ্গে পংকজ মন্ডলের তরুনী মেয়ে ঈশিতা মন্ডলের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পথম পর্যায় তাদের এ প্রেম প্রনয়ে দু’ পরিবারের আপত্তি ও বাধাঁ থাকলে চুটিয়ে প্রেম করতো তারা ।

এমনকি দৈহিক সম্পর্কও গড়ে ওঠে তাদের মধ্যে। এক পর্যায় গত ৩০ অক্টোবর এলাকাবাসী দু’জনকে অপত্তিকর অবস্থায় দেখে পেয়ে উভয় পরিবারবে জানালে স্থানীয় সার্বজনীন কালি মন্দিরে পুরোহিতের মাধ্যমে শাঁখা সিদুর দিয়ে সনাতন ধর্মমতে তাদের বিয়ে হয়। এর পর উভয় পরিবারে সম্মতিতে দিগরাজ এলাকায় ভাড়া বাড়িতে ঘর সংসারও শুরু করে তারা।

ঘর-সংসারের এক সপ্তাহ না যেতেই সুজিত কে ফুঁসলিয়ে আত্মগোপনে নিয়ে রাখে তার পরিবার। স্বামীর সন্ধানে অস্থির হয়ে শেষ পর্যন্ত গত মঙ্গলবার স্বামী ও শশুর বাড়িতে উঠে পড়ে নববধু ঈশিতা মন্ডল। আর তাকে দেখে বাড়ি ঘর রেখে সটকে পড়ে শশুর বাড়ির স্বজনরা। এক কাঁপড়ে,অনাহারে ওই বাড়িতে সকাল থেকে অবস্থান ধর্মঘট করছে এ তরুনী। মোংলা থানা পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এ বিষয় মিমাংসার জন্য দফায় দফায় চেষ্টা করলেও স্বামী সুজিতের পরিবার পূত্র বধুর স্বীকৃতি দিতে নারাজ।

সুজিতের চাচা তারাপদ জানান- এ বিয়ের বিষয় তাদের সম্মতি ছিল না। তাই ভাইকে ত্যাজ্য করা হয়েছে। অপর দিকে ঈশিতা পিতা পংকজ মন্ডল জানান, তার মেয়েকে ফুঁসলিয়ে বিয়ে ও ঘর ছাড়া করা হয়েছে।

এ ছাড়া শশুর বাড়িতে অবস্থানরত কন্যাকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কৌশালে ঘর থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। তবে ঈশিতা মন্ডল রাতে শশুর বাড়ির দরজায় অবস্থান করছিল বলে জানান স্থানীয়রা। এ বিষয় ঈশিতা মন্ডল জানান-স্ত্রীর মর্যদা না পেলে অত্মহত্যা করবেন। তাই সঙ্গে রখেছেন ফাঁসের দড়ি।

 

সময় নিউজ২৪.কম/এমএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *