যশোরে জলাবদ্ধতা নিরসনে স্বেচ্ছাশ্রমে খালের পলি অপসারণ

নিলয় ধর,যশোর প্রতিনিধি :
স্বেচ্ছাশ্রমে ভবদহ অঞ্চলের আমডাঙ্গা খালের পলি ও ব্লক অপসারণের কাজ অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার(১৯ নভেম্বর) দুপুরে যশোর-৪ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য রণজিতকুমার রায়সহ স্থানীয় রাজনৈতিক নেতারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, অভয়নগর ও মণিরামপুর উপজেলার প্রায় আটটি ইউনিয়নের ২০ গ্রামের পানিবন্দি মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমে খালের মধ্যে পলি ও তলিয়ে যাওয়া ব্লক অপসারণের কাজ করছে। খালের ৩ কিলোমিটার অংশে ৩৫টি দলে বিভক্ত হয়ে পলি ও ব্লক অপসারণ করা হচ্ছে। ভৈরব নদের সংযোগস্থলে একটি স্কেভেটর বসিয়ে আবর্জনা, ভেঙেপড়া গাছ ও ব্লক অপসারণ করা হচ্ছে। স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করছে ছাত্র, শিক্ষক, কৃষক, জনপ্রতিনিধি ও ব্যবসায়ীরা।
এই সময় এমপি রণজিত রায় খালের পলি ও ব্লক অপসারণের কাজ অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি পানিবন্দি মানুষের পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্তসহ সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
স্বেচ্ছাশ্রমে কর্মরত অভয়নগরের সুন্দলী ইউনিয়নের একটি দল জানান, প্রায় ৫ মাস ধরে ভবদহ অঞ্চলের লক্ষ লক্ষ মানুষ জলাবদ্ধতার শিকার হয়ে পানিবন্দি অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করছে। সরকারি বা বেসরকারিভাবে দেওয়া হয়নি কোনো ত্রাণ সহায়তা। শাপলা ও মাছ শিকার করে অর্ধাহারে-অনাহারে পরিবার নিয়ে তাদের দিন কাটাতে হচ্ছে। উপায় না পেয়ে অবশেষে স্বেচ্ছাশ্রমে খালের পলি ও ব্লক অপসারণের কাজ শুরু করা হয়েছে। কাজ সম্পন্ন হলে খাল পাড়ের ব্লক ও ভাঙনরোধে বাঁশের বল্লি বসানোর ব্যবস্থা করা হবে।
নওয়াপাড়া পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর আব্দুর রউফ মোল্যা জানিয়েছেন, ভবদহের জলাবদ্ধতা নিরসনে ইতোমধ্যে অনেক আন্দোলন-সংগ্রাম করা হচ্ছে এবং চলছে। কিন্তু সমস্যা সমাধানে (পানি উন্নয়ন বোর্ড) আন্তরিক না। তাদের অপরিকল্পিত কর্মপরিকল্পনা ভবদহের জলাবদ্ধতার সমাধান না করে সমস্যা বাড়িয়ে চলেছে। ভবদহের জলাবদ্ধতা সমাধানে আন্দোলনরত সংগঠনগুলো পাউবোর কাছে বার বার আমডাঙ্গা খাল সংস্কারের অনুরোধ করেছেন। কিন্তু পাউবো ৫৬ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সদ্য একটি খাল (ঝিকরার খাল) খননের টেন্ডার করেছে, যা ভবদহের জলাবদ্ধতা সমাধানে কোনো কাজে আসছে না বা আসবে না। বর্তমানে ওই খাল ৩ ফুট পানির নিচে। আর ওই খালের পানিও আমডাঙ্গা খাল দিয়ে বের হচ্ছে।
তিনি জানিয়েছেন, পাউবোর মনগড়া পরিকল্পনায় ভবদহের লাখ লাখ মানুষের জীবন-জীবিকা থমকে গেছে। বাধ্য হয়ে পানিবন্দি মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমে আমডাঙ্গা খালের সংস্কার কাজ শুরু করেছেন। এই খালের সংস্কার কাজ শেষ হলে অভয়নগরের প্রেমবাগ, সুন্দলী, চলিশিয়া, পায়রা ও মণিরামপুর উপজেলার কুলটিয়া, মহিষদিয়া, বাজেকুলটিয়া ও মনোহরপুর ইউনিয়নসহ নওয়াপাড়া পৌরসভার এক, দুই ও তিন নম্বর ওয়ার্ডের জলাবদ্ধতা থাকবে না। অচিরেই চাষিরা বোরো ধান ও মাছ চাষ শুরু করতে পারবেন।।
সময় নিউজ২৪.কম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *