রাজশাহীর বাগমারায় শোলাবিল ও পদ্মবিলে পানি নিস্কাশনের পথ বন্ধ করে অবৈধ পুকুর খননের অভিযোগ।

বাগমারা প্রতিনিধিঃ

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার শোলাবিল ও পদ্মবিলে পানি নিস্কাশনের পথ বন্ধ করে অবৈধ ভাবে পুকুর খনন করায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ায় কৃষকদের শত শত বিঘা জমি হুমকির মুখে পড়েছে বলে জানা গেছে। ওই সমস্ত জমিতে ফসল ফলানোর জন্য শুভডাঙ্গা ইউনিয়নের বাড়িগ্রাম ও নরদাশ ইউনিয়নের পারিলা গ্রামের কৃষকরা পানি নিস্কাশনের দাবীতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।

অভিযোগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, শোলাবিল ও পদ্মবিলের পানি নিস্কাশন পথ বন্ধ করে শালমারা গ্রামের নুরুল ইসলাম, খোরশেদ আলম, জাহাঙ্গীর আলম ও খোরশেদ আলমসহ এলাকার কিছু প্রভাবশালী ব্যাক্তি ওই দুই বিলের পানি নিস্কাশনের পথ বন্ধ করে পুকুর খনন করেন। এতে প্রায় তিনশ একর জমিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ায় বিলের চারপাশের হাজারো কৃষক ফসল ফলাতে না পেরে পরিবার পরিজন নিয়ে বেকায়দায় পড়েছেন। অনেকের শেষ সম্বল বলতে ওই বিলেই ফসলের জন্য কিছু জমি রয়েছে। জলবদ্ধতার কারনে দিশেহারা হয়ে পড়েছে তারা। কৃষকরা অতি সত্বর ওই দুই বিলের পানি নিস্কাশনের দাবী জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে পুকুর খননকারী নুরুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি পুকুর খনন করিনি। আমি পানি নিস্কাশনের পক্ষে রযেছি।

শুভডাঙ্গ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম এ বিষয়ে বলেন, এর আগে পানি নিস্কাশনের জন্য কৃষকদের পক্ষ হয়ে উদ্যোগ নিয়েছিলাম। পরবর্তীতে কোন সুরাহা না হওয়ায় কৃষকরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট আবেদন করেন।

যোগাযোগ করা হলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরীফ আহম্মেদ জানান, পানি নিস্কাশনের দাবীতে একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সময় নিউজ২৪.কম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *