রাজশাহী পবায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার বাড়ি পাচ্ছেন ৪৭ গৃহহীন-ভূমিহীন

ইউসুফ আলী চৌধুরী-রাজশাহী প্রতিনিধিঃ

রাজশাহী জেলায় ভূমিহীন দরিদ্র পরিবারের মাঝে জমিসহ ৬৯২টি বাড়ি বিতরণ করা হবে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে সরকার এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। রাজশাহী জেলায় এই প্রকল্পে ব্যয় হচ্ছে প্রায় ১২ কোটি টাকা। ৯টি উপজেলায় ভূমিহীন পরিবারের মাঝে এই বাড়িগুলো বিতরণ করা হবে। এরই মধ্যে বাড়ি নির্মাণের অধিকাংশ কাজ শেষ হয়েছে। আগামী ২৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে সংশ্লিষ্ট দরিদ্র পরিবারগুলোর মাঝে বাড়িগুলো হস্তান্তর করবেন বলে জানা গেছে। রাজশাহীতে জমি নাই বাড়ি নাই এমন পরিবারকে এসব বাড়ি দেয়া হচ্ছে। এ জেলায় নির্মাণাধীন ৬৯২টি বাড়ির মধ্যে পবা উপজেলায় নির্মিত হচ্ছে ৪৭টি বাড়ি। যারমধ্যে হরিয়ান ইউনিয়নে ১৮টি, হরিপুর ইউনিয়নে ১৮টি ও পারিলা ইউনিয়নে ১১টি বাড়ি। জেলা প্রশাসনের দেওয়া তথ্য মতে, খাসজমির প্রাপ্যতার ওপর ভিত্তি করে সংশ্লিষ্ট উপজেলায় এই বাড়িগুলো নির্মাণ করা হচ্ছে। ২ শতক জায়গার ওপর সরকারি ভাবে নির্মিত প্রতিটি বাড়িতে থাকছে দুইটি ঘর, একটি রান্নাঘর, একটি বাথরুম এবং একটি করে টয়লেট।

ইটের দেয়াল এবং টিনের চালা দিয়ে নির্মিত এই বাড়িগুলোতে থাকছে স্বাস্থ্য সম্মত পরিবেশ। প্রতিটি বাড়ি নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। বাড়িগুলো নির্মাণে সার্বিক তদারকি করছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট উপজেলা ও ইউপি চেয়ারম্যানরা। ঠিকাদারদের মাধ্যমে বাড়ি নির্মাণের কাজ না করিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের তদারকিতে ও ব্যবস্থাপনায় এই বাড়িগুলো নির্মাণ করা হচ্ছে। উপজেলায় খাসজমির প্রাপ্যতার ওপর ভিত্তি করে বাড়িগুলো নির্মাণ করা হচ্ছে। হরিয়ান ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মফিদুল ইসলাম বাচ্চু বলেন, ২০১৫ সালে শিক্ষকগণ ইউনিয়নে যাচাই-বাছাই শেষে ২৭টি পরিবারকে নির্বাচিত করেন। যারমধ্যে ১৮টি বাড়ি নির্মাণ করা হচ্ছে। জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এসব বাড়ি উপহার দিচ্ছেন। পবা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জমি নাই বাড়ি নাই-এমন পরিবারকে এসব উপহার বাড়ি দিবেন।

জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সার্বিক তত্বাবধায়নে ও রাজশাহী জেলার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের ত্রাণ এবং পুনর্বাসন কর্মকর্তার নির্দেশনায় ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার তদারকিতে খুবই দ্রুততার সাথে নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলেছে। পবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শিমুল আকতার বলেন, ইতোমধ্যে ঘরগুলো নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। অনেক বাড়িতে ঘরে টিন বসানো হয়েছে। এছাড়া কিছু ঘরে টিন বসানো ও রংয়ের কাজ বাকি আছে। আশা করি দ্রুত ঘরগুলোর কাজ শেষ করতে পারবো। রাজশাহী জেলার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের ত্রাণ এবং পুনর্বাসন কর্মকর্তা আমিনুল হক জানান, বাড়িগুলোর নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এখন শুধু টিন লাগানো বা রংয়ের কাজ বাকি আছে। সামান্য যে কাজ বাকি আছে তাও শেষ পর্যায়ে।

সময় নিউজ২৪.কম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *