রাতের খাবারে কী খাবেন ? কী খাবেন না?


অনলাইন ডেস্ক:

যাদের অনিদ্রা রোগ আছে এবং নিঘুর্ম রাত কাটে, তারা শোবার আগে সামান্য খাবার খাওয়ার অভ্যাস করুন। তবে একান্তই অল্প পরিমাণে। এবং তা দুধ, মুড়ি, কলা ইত্যাদি হলেই ভালো। বেশি খেলে বদ হজম, পেটভার হয়ে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটতে পারে

চর্বিসম্বৃদ্ধ খাবার যত কম খাওয়া যায়, ততই ভালো ঘুমাবার জন্য। গবেষণায় দেখা গেছে যারা চর্বিযুক্ত খাবার বেশি খান তারা যে শুধু স্থূল হন তাই নয়, তাদের নিদ্রাচক্রও ছিন্ন বিছিন্ন হয়ে যায়। তাছাড়া শোবার আগে ভাজাভুজি হজমে ব্যাঘাত ঘটায়। ফলে নিদ্রাও হয়না।

বিকেলে বা সন্ধ্যায় এক কাপ চা বা কফি পান করলে রাতের ঘুমে ব্যাঘাত ঘটতে পারে। মাঝারি মান ক্যাফিনেও ঘুমের সমস্যা হয়। কেবল চা, কফি কেন? চকোলেট, কোলাতেও আছে ক্যাফিন। ওষুধেও থাকতে পারে ক্যাফিন। ব্যথা নাশক ওষুধ, ওজন কমানোর ওষুধ, মুত্রবর্ধক ওষুধ, ঠান্ডা-সর্দির ওষুধে থাকতে পারে ক্যাফিন। চেক করে নেয়া ভালো।

রাতে মদ্যপান করা অনুচিত, ঘুমের খুব সমস্যা হয়। এমনিতেই মদ্যপান খুব খারাপ স্বাস্থ্যের জন্য। ধূমপান আরো খারাপ। অবশ্য বর্জনীয়। এটি বড় রকমের বদভ্যাস। ধূমপান অবশ্যই শিথিল করেনা মন ও শরীর। ঘুমের বড্ড ব্যাঘাত ঘটায় ধূমপান। তাই ঘুমাবার আগে কখনই ধূমপান করা উচিত নয়।

রাতে ভরপেট খাওয়া খুব খারাপ। আর তেল-ঝাল-মসলা সম্বৃদ্ধ খাবার আরও খারাপ স্বাস্থ্যের জন্য। অস্বস্থিও হতে পারে। ঘুমের সময় পাকতন্ত্র ধীর হয়ে যায় তাই ঝাল-মসলাযুক্ত খাবার খেলে বুক জ্বলা হতে পারে। ভরপেট খাবার খেতে হলে ঘুমাবার ৪/৫ ঘন্টা আগে খাবার শেষ করা উচিত।

দিবাকালীন চলায় প্রোটিন আহার বড় প্রয়োজনীয় হলেও রাতে ঘুমের আগে খাওয়া উচিত নয়। প্রোটিন সম্বৃন্ধ খাবার হজম বড় কঠিন। রাতে তাই শোবার আগে প্রাণীজ প্রোটিন খাবার না খেয়ে একগ্লাস গরম দুধ বরং ভালো

রাতের খাবারের আদর্শ সময় হলো ঘুমের অন্তত তিন ঘণ্টা আগে রাতের খাবার খেয়ে ফেলা উচিত। রাত ১০টার আগে অবশ্যই রাতের খাবার শেষ করতে হবে। তবে ঘুমাতে যাওয়ার আগে খাবার খেলে এটি দেহে খারাপ প্রভাব ফেলে।

সময় নিউজ২৪.কম/এএসআর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *