লাখাইয়ে স্কুল ছাত্রীর বাল্যবিবাহ বন্ধ করে দিল প্রশাসন অতঃপর জরিমানা

নিজস্ব প্রতিনিধি।।
 লাখাইয়ে জুতিয়া খাতুন (১৬) নামে এক স্কুল পড়ুয়া কিশোরীর বাল্য বিবাহ বন্ধ করেছে প্রশাসন। উপজেলার মোড়াকরি গ্রামের মোঃ আব্দুল হকের মেয়ে জুতিয়া বেগম। এসময় মোবাইল কোর্ট অভিভাবককে ৪হাজার টাকা জরিমানা ও মুছলেকা গ্রহণ করা  হয়।আজ ২০ সেপ্টেম্বর সোমবার  উপজেলার মোড়াকরি ইউনিয়নের ফুলবাড়িয়া গ্রামে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।
সূত্রে জানা যায়,  ফুলবাড়িয়া গ্রামের মোঃ আব্দুল হক তার স্কুল পড়ুয়া ১৬ বছরের কিশোরী মেয়ে মোছাঃ জুতিয়া খাতুনের বিয়ের আয়োজন করেন।খবর পেয়ে সহকারী কমিশনার ভূমি ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রুহুল আমিন একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এসময় কিশোরীর বাবা আব্দুল হক পালিয়ে যান। পরে কিশোরীর মাকে  বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন, ২০১৭ এর অধীন ৪হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং ঐ কিশোরীর বয়স ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেয়া হবে না মর্মে নির্ধারিত ফরমে মুচলেকা নেওয়া হয়।
উল্লেখ্য যে, এই কিশোরীর নামে ইউনিয়ন পরিষদ সচিব ও চেয়ারম্যান কর্তৃক যৌথ স্বাক্ষরে যে জন্ম সনদ ইস্যু করা হয়েছে তার সাথে স্কুলে সংরক্ষিত রেজিস্ট্রার এ নিবন্ধিত  জন্ম তারিখের কোন মিল পাওয়া যায়নি।
তাৎক্ষণিক সহকারী কমিশনার ভূমি ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রুহুল আমিন মোড়াকরি ইউনিয়নের  চেয়ারম্যান ফয়সাল মোল্লার সাথে যোগাযোগ করে বলেন, কোন তথ্যের ভিত্তিতে জন্ম সনদ প্রদান করা হয়েছে সে বিষয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষকে অবগত করতে।তবে এ প্রতিবেদক ইউনিয়ন পরিষদের সচিব রঞ্জন দাসের সাথে বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
 এ বিষয়ে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, ইস্যুকৃত জন্ম সনদ জালিয়াতির আশ্রয় নেওয়া হয়েছে মর্মে প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *