শারদীয় দুর্গোৎসব উদযাপন মশিয়াহাটীতে

নিলয় ধর, যশোর প্রতিনিধি :
যশোর মশিয়াহাটীতে এ বছরে ২২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার শ্রী শ্রী মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে শুরু হবে ৫ দিন ব্যাপী শারদীয় পূজা উৎসব।সনাতন ধর্মের অনুসারীদের শক্তির দেবী ও বাঙালির সার্বজনীন উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা শুরু হয়েছে।এবার পুজোর থিম স্বল্প করে তৈরি করা হয়েছে ,যেতে দেখা যায় রাস্তা দিয়ে পরিবারের হেঁটে যাওয়া। কোথাও পরিযায়ী মা হয়ে উঠেছেন দেবী দুর্গা, সঙ্গে তাঁর সন্তানরা ।এভাবেই সেজে উঠেছে মশিয়াহাটীতে এলাকা।একটা সময় ছিল যখন পুজো মানেই পুজোর গান পূজার অ্যালবাম, মণ্ডপে মণ্ডপে রাস্তার মোড়ে এই গান সারাক্ষণ বেজে চলতো। এক‌ এক পুজোর আইডেন্টিটি হয়ে দাঁড়াত এই পুজোর অ্যালবাম। বর্তমানে সেই সংখ্যাটা অনেকটি কমে গিয়েছে করোনা ভাইরাসের কারণে।
মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে এ বছর সাদা-মাটা হলেও চলছে প্রস্তুতি।
এবার বর্ণাঢ্য আয়োজনে পাঁচদিন ব্যাপি শারদীয় দুর্গাপূজা উৎসব শুরু হচ্ছে মশিয়াহাটীতে। যশোরের আট উপজেলায় এবছর ৬৩২ মন্ডপে শারদীয় দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে যশোর সদর উপজেলায় ১৪৫, শার্শায় ৩০, ঝিকরগাছায় ৫৩, মণিরামপুরে ৯২, কেশবপুর ৯৩, বাঘারপাড়া ৮৯, অভয়নগরে ১২৪ ও চৌগাছায় ৪৪ টি।মহামারি করোনা ভাইরাসে এবারের দুর্গোৎসবের চির পরিচিত আমেজ থাকছে না। মহালয়া থেকে শুরু করে শারদীয় এই উৎসবের সব ক্ষেত্রেই থাকছে স্বাস্থ্যবিধির কড়া নির্দেশ। এবারের পূজা উদযাপন পরিষদের ২৬ দফার যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে তাতে বলা হয়েছে।
১-মহালয়ার আয়োজন স্বাস্থ্য বিধি মেনে সীমিত আকারে করতে হবে। ২-প্রতিমা তৈরি থেকে পূজা সমাপ্তি পর্যন্ত প্রতিটি মন্দিরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা
৩। ভক্ত-পূজারি ও দর্শনার্থীদের জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা রাখা ৪-সকলে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরা, দর্শনার্থীদের মধ্যে ন্যূনতম তিন ফুট শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা। ৫-পূজামণ্ডপে নারী-পুরুষের যাতায়াতের আলাদা ব্যবস্থা করা। ৬-বেশি সংখ্যক নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবক নারী/পুরুষ রাখা।৭- সন্দেহভাজন দর্শনার্থীদের দেহ তল্লাশির ব্যবস্থা রাখতে হবে।৮-আতসবাজি ও পটকা ফাটানো থেকে বিরত থাকতে হবে।৯-পূজামণ্ডপে সার্বক্ষণিক সিসি ক্যামেরা সংযোগ ব্যবস্থা রাখতে হবে।১০-ভক্তিমূলক সংগীত ছাড়া অন্য কোনো গান বাজানো না হয়।১১-মাইক বা পিএ সেট যেন ব্যবহার করা না হয়।১২-পূজামণ্ডপে ‘প্রয়োজনের অতিরিক্ত দীর্ঘ সময়’ কোনো দর্শনার্থী যেন না থাকে।
১৩। সন্ধ্যার আরতির পর দর্শনার্থীদের প্রবেশে যেন নিরুৎসাহিত করা হয়।১৪-সব ধরনের আলোকসজ্জা, সাজসজ্জা, মেলা, আরতি প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিহার করা।১৫-সম্ভব হলে বাসা/বাড়িতে থেকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে ভক্তদের অঞ্জলি দেওয়া।১৬-খোলা জায়গার অস্থায়ী প্যান্ডেলে স্বাস্থ্যবিধি পরিপূর্ণভাবে মেনে চলা।১৭-প্রশাসন, আইন শৃংখলা বাহিনী ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সমন্বয়ে মণ্ডপকেন্দ্রিক ‘শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটি’ গঠন।১৮-গুজবে বিভ্রান্ত না হয়ে তাৎক্ষণিক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অবহিত করা।১৯-প্রতিমা নিরঞ্জনে শোভাযাত্রা পরিহার করা।
এই বছর মহাষষ্ঠী পড়েছে ২২ অক্টোবর। বাংলা মতে তারিখটা ৫ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর সকালে ৯.২৮ মিনিটের মধ্যে সেরে ফেলতে হবে কল্পারম্ভ। বিকেলে হবে আমন্ত্রণ এবং অধিবাস। মহাষষ্ঠীর দিন সকালে সূর্যোদয় হবে ৫.৪১ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত হবে সন্ধে ৫.৩ মিনিটে। পূর্বাহ্ণ রয়েছে সকাল ৯.২৮ মিনিট পর্যন্ত। মহাষষ্ঠী পড়ছে আগের দিন বেলা ২.৪৫ মিনিটে এবং ছেড়ে যাচ্ছে সেদিন দুপুর ১.১৩ মিনিটে।
মহাসপ্তমী আগামী ২৩ অক্টোবর শুক্রবার পড়ছে মহাসপ্তমী। বলা যেতে পারে সেদিন থেকেই আসলে পুজো শুরু। বাংলা ক্যালেন্ডার দিনটা পড়েছে ৬ কার্তিক ১৪২৭। সকাল ৮.৩২ মিনিটের মধ্যে এই বছর সেরে ফেলতে হবে নবপত্রিকা স্নান। মধ্যরাতে দেবী দুর্গার পুজো হবে রাত ১০.৫৮ মিনিট থেকে রাত ১১.৪৬ মিনিট পর্যন্ত। মহাসপ্তমীতে সূর্যোদয় সকাল ৫.৪১ মিনিটে। সূর্যাস্ত হবে সন্ধে ৫.০৩ মিনিটে। পূর্বাহ্ণ থাকবে সকাল ৯.২৮ মিনিট পর্যন্ত। আগের দিন বেলা ১.১৩ মিনিট থেকে শুরু হয়ে সেদিন সকাল ১১.৫৭ মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী হবে মহাসপ্তমী।
মহাঅষ্টমী আগামী ২৪ অক্টোবর, বাংলা মতে ৭ কার্তিক ১৪২৭ অনুষ্ঠিত হবে এই বছরের দুর্গাপুজোর মহাঅষ্টমী। অষ্টমীর পুজো সকাল ৭.০৭ মিনিটে শুরু হয়ে সকাল ৯.২৮ মিনিট পর্যন্ত চলবে। বীরাষ্টমী ব্রত সাঙ্গ করতে হবে সকাল ৯.২৮ মিনিটের মধ্যে। সন্ধি পুজো শুরু হবে সকালে ১১টায়, চলবে ১১.৪৮ মিনিট পর্যন্ত। বলিদান হবে সকাল ১১.২৪ মিনিটে। মহাঅষ্টমীতে সূর্যোদয় সকাল ৫.৪২ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত হবে সন্ধে ৫.০২ মিনিটে। পূর্বাহ্ণ চলবে সকাল ৯.২৮ মিনিট পর্যন্ত। আগের দিন সকাল ১১.৫৭ মিনিটে পড়বে মহাঅষ্টমী এবং তা ছেড়ে যাবে সেদিন সকাল ১১.২৪ মিনিটে।
মহানবমী আগামী ২৫ অক্টোবর এবং বাংলা ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ৮ কার্তিক ১৪২৭ পালন হবে দুর্গাপুজোর মহানবমী। সকাল ৯.২৯ মিনিটের মধ্যে সেরে ফেলতে হবে নবমীর পুজো। মহানবমীতে সূর্যোদয় সকাল ৫.৪২ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত সন্ধে ৫.০১ মিনিটে। পূর্বাহ্ন চলবে সকাল ৯.২৯ মিনিট পর্যন্ত। আগের দিন ১১.২৪ মিনিটে পড়বে মহানবমী এবং তা ছেড়ে যাবে সেদিন সকাল ১১.১২ মিনিটে।
মহাদশমী মহাদশমী অনুষ্ঠিত হতে চলেছে আগামী ২৬ অক্টোবর। বাংলা মতে দিনটা পড়েছে ৯ কার্তিক ১৪২৭। সকাল ৯.২৯ মিনিটের মধ্যে ঘট বিসর্জন করে বিজয়াদশমী সাঙ্গ করতে হবে। মহাদশমীতে সূর্যোদয় সকাল ৫.৪৩ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত বিকেল ৫টায়। পূর্বাহ্ণ চলবে সকাল ৯.২৯ মিনিট পর্যন্ত। দশমী থাকবে আগের দিন সকাল ১১.১২ মিনিট থেকে পরের দিন সকাল ১১.৩১ মিনিট পর্যন্ত।
সময় নিউজ২৪.কম/এমএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *