সৈয়দপুরে মেয়র প্রার্থী আমজাদ হোসেনের মৃত্যুতে সকল পদে নির্বাচন স্থগিত।

সুজন মহিনুল,নীলফামারী প্রতিনিধি।।
নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌর সভার বর্তমান (চলমান) মেয়র, আগামী নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী, বিএনপির কেন্দ্রীয়় কমিটির গ্রাম সরকার বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও জেলা বিএনপির আহ্বায়ক  কমিটির সদস্য সচিব অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকার ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।তার আকস্মিক মৃত্যুুুতে আগামী ১৬ জানুয়ারি সৈয়দপুর পৌরসভা নির্বাচন হবার কথা থাকলেও তা স্থগিত করা হয়েছে।গত ১৫দিন আগে তৃতীয় বারের মত করোনা পজেটিভ হয়ে বৃহস্পতিবার(১৪ জানুয়ারি)সকাল সাড়ে ৬টায় রাজধানীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেন তিনি।মৃত্যুকালে তার বসয়  হয়েছিল ৬৩ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, দুই ভাই, এক বোন সহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।
আগামী ১৬ই জানুয়ারি সৈয়দপুর এই পৌরসভার ভোটে মেয়র পদে ৫জন প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীর মধ্যে তিনিও একজন (নারিকেল গাছ) প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন।আমজাদ হোসেন সরকার তার জীবনের একবার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, চারবার সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র এবং অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।তার জন্ম ১৯৫৮ সালের ২রা ফেব্রুয়ারী ও মৃত্যু হলো ২০২১ সালের ১৪ই জানুয়ারি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফজলুল করিম জানান, ওই নির্বাচনে মেয়র পদে পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে নারিকেল গাছ প্রতিকের স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান মেয়র অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকার ঢাকার বাংলাদেশ স্পেশালাইজড  হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৬টার  দিকে ইন্তেকাল করেন। তাঁর মৃত্যুতে এই দিন দুপুরে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের নির্বাচন পরিচালনা-২ অধিশাখা স্থানীয়  সরকার (পৌরসভা) নির্বাচন বিধিমালা ২০১০ এর বিধি ২০ অনুসারে উপসচিব আতিয়ার  রহমান স্বাক্ষরিত এক পত্রে মেয়র পদের নির্বাচন বাতিল সহ অন্যান্য সকল পদের নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেন।
নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক মেয়র পদের নির্বাচন বাতিল ও সকল কাউন্সিলর পদের নির্বাচন স্থগিতের আদেশ নির্বাচনী এলাকায় জারি করা হয়েছে।পুনরায় তফসিল ঘোষনা শীঘ্রই করা হবে।নতুন করে কেউ প্রার্থী হতে চাইলে পুনরায় তফসিল ঘোষনার পর তারা মনোনয়নপত্র  দাখিল করতে পারবেন।
উল্লেখ্য: সৈয়দপুরে পৌর সভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ জন ও ১৫টি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য (কাউন্সিলর) পদে ৯৩জন এবং ৫টি সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডে ২১ জন।

বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির গ্রাম সরকার বিষয়ক সহ-সম্পাদক সৈয়দপুর বিএনপির সদস্য সচিব অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকার দলীয়ভাবে মেয়র পদে মনোনয়ন না পাওয়ায়  তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে ভোট করছিলেন নারিকেল গাছ প্রতিক নিয়ে। এ ছাড়া অন্যান্য মেয়র পদে প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগের রাফিকা আকতার জাহান বেবী (নৌকা), জাতীয় পার্টির সিদ্দিকুল আলম (লাঙ্গল), জেলা ইসলামী আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক হাফেজ নুরুল হুদা (হাতপাখা)ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ব্যবসায়ী রবিউল আউয়াল রবি (মোবাইল ফোন)।

সময় নিউজ২৪.কম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *