৪০ বছরে বিএনপি কতটা গণতন্ত্রের চর্চা করেছে ?

অনলাইন ডেস্ক:

বাংলাদেশের প্রধান একটি রাজনৈতিক দল বিএনপি প্রতিষ্ঠার ৪০ বছর পূর্ণ হলো এ মাসে।

১৯৭৮ সালের ১লা সেপ্টেম্বর তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বিভিন্ন রাজনৈতিক পথ-মতের অনুসারীদের এক প্লাটফর্মে এনে এই দল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

গত চার দশকে বাংলাদেশে এই দলটিই সবচেয়ে বেশিবার নির্বাচনে জিতে ক্ষমতায় এসেছে, সবচেয়ে বেশি সময় ধরে বাংলাদেশ শাসন করেছে।

সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম আরও বলছিলেন, ‘খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি অনেক বেশি গণতান্ত্রিক। যদিও বলা যায় না যে, গণতন্ত্রের সব শর্তই দলটি পূরণ করছে। কারণ দলটির ভিতরেই গণতান্ত্রিক চর্চা হয় না। কিন্তু খালেদা জিয়া অন্তত বহুদলীয় গণতন্ত্রের একটা সচল রূপ গ্রহণ করেছেন। আর জিয়াউর রহমানের সময় ছিল তাঁর এক ধরণের কর্তৃত্ববাদ। এধরণের শাসন ব্যবস্থায় যে লাভ হয়, অর্থ্যাৎ অর্থনীতি সচল থাকে, জন জীবনে শান্তি শৃংখলা থাকে, যেটা তাঁর অনুকুলে গিয়েছিল।’

খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানের পদে রয়েছেন। তারেক রহমান দলটির ভবিষ্যত নেতা , সে ব্যাপারে বিএনপি’র নেতাকর্মিদের মধ্যে কোন সন্দেহ নেই।

বিএনপি নেতা খন্দকার মোশারফ হোসেনের বক্তব্য হচ্ছে , কোন দেশ বা কোন দলের বিরোধিতা থেকে নয়,তাঁদের দল বিভিন্ন সময় সংকট মোকাবেলা করে ৩৪ বছরে একটি পরীক্ষিত জায়গায় এসে দাঁড়িয়েছে বলে তাঁরা মনে করেন। তিনি বলেছেন, জিয়াউর রহমানকে হত্যার ঘটনার পরেও জেনারেল এরশাদের সময়ে বিএনপিকে ভাঙ্গা হয়েছিল। আবার ২০০৭ সালে ওয়ান ইলেভেনের পরে বিএনপিতে সংস্কারপন্থী সৃষ্টি করে দলটিকে ধ্বংস করার চেষ্টা হয়েছিল। কিন্তু সব সংকট মোকাবেলা করেই বিএনপি এগিয়েছে।

এখন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন সরকারের সময়ে নির্বাচন পরিচালনার জন্য নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থার দাবিতে বিএনপি জোটবদ্ধভাবে আন্দোলন করছে। ১৮ দলীয় এই জোটে জামায়াতে ইসলামীসহ ইসলামপন্থী বিভিন্ন দল রয়েছে। এটা কোন আদর্শিক জোট নয়, এই ভোটের সুবিধার জন্যই হয়েছে বলে মনে করেন অধ্যাপক এমাজউদ্দিন আহমেদ।

তবে অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম মনে করেন,বিএনপি’র এই জোট ধর্মভিত্তিক বা চরম ডানপন্থী দলগুলোকে জায়গা করে নেবার শক্তি যোগাচ্ছে। এর থেকে বিএনপি বেরিয়ে আসতে পারবে কি না,সে ব্যাপারে তাঁর সন্দেহ রয়েছে।

বিএনপি নেতাদের অনেকেই বলেছেন, ধর্মীয় মূল্যবোধ সমুন্নত রাখাসহ কিছু বিষয়ে জোটের শরিকদের সাথে বিএনপির মিল থাকায় এটাকে তাঁরা আদর্শিক জোট হিসেবে দেখছেন। কিন্তু দলটি নিজের আদর্শ বা স্বকীয়তা বজায় রাখবে এবং চরম ডানপন্থার দিকে এগুবে না বলেই তাঁদের দাবি।


সময় নিউজ২৪.কম/এএসআর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *