আম্মুর কাছে খোলা চিঠি …. 

প্রিয় আম্মুঃ  কেমন আছেন আপনি? ভালো আছেন তো? আমি ভালো নেই। আমাকে কেউ আর এখন প্রতিদিন জিজ্ঞেস করে না “কি করছিস? কি খেয়েছিস?” কেউ এখন আর বলে না “একটু ঘন বিস্তারিত...

একজন মহানায়ক এবং এক মহাকাল

– মোঃ কামরুজ্জামানবাবু (এক). তিনি একজন মহানায়কঃ মহাকালের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গাল, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান,যিন জাতির জনক,তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এই একটা নামই স্বাধীন বাংলাদেশ জন্য যথেষ্ট। বিস্তারিত...

জাতির ইতিহাসে বেদনাবিধুর কালো দিন

– আশফাউর রহমান আজ ১৫ আগস্ট জাতীয় শোকের দিন। বাংলার আকাশ বাতাস নিসর্গ প্রকৃতিরও অশ্রুসিক্ত হওয়ার দিন। কেননা পঁচাত্তরের এই দিনে আগস্ট আর শ্রাবণ মিলেমিশে একাকার হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর রক্ত আর বিস্তারিত...

মানচিত্রের খুন

– মোঃ সফিকুল ইসলাম শরীফ  গ্রামের দরিদ্র জেলে রহিম মিয়ার একমাত্র মেয়ে খুকি। এ বছর মেট্রিক পাশ করেছে। আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে, খুকি দরিদ্র পরিবারের জেলের মেয়ে হলেও গ্রামের প্রতিটি ঘর বিস্তারিত...

কালান্তরে বঙ্গবন্ধু-মো: রিয়াদ হোসেন

মায়ের কাছ থেকে শিখেছি— ব-তে বঙ্গবন্ধু। বাবার কাছ থেকে শুনেছি— আজন্ম সংগ্রামীচেতা; অসহায়-দুঃস্থ মানুষের আশার আলো। বাংলাদেশ মুক্তি-সংগ্রামে— অনবদ্য সাহসী; ভূমিকা বিস্ময়কর নেতা— বঙ্গবন্ধু। অখ্যাত কবির,বিখ্যাত কবিতার পঙক্তিতে লেখা; অনলবর্ষী বিস্তারিত...

প্রশ্ন ও উত্তর  মেঘবালিকাকে প্রশ্ন 

মারুফ মঞ্জুর মেঘবালিকা মেঘবালিকা কোথায় তোমার বাড়ী? না বললে খবর আছে তোমার সাথে আঁড়ি! মেঘবালিকা মেঘবালিকা উড়ে কোথায় যাও? বৃষ্টি হয়ে ঝরে তুমি বল কি সুখ পাও? মেঘবালিকা মেঘবালিকা তোমার বিস্তারিত...

ঝুম বৃষ্টি— জান্নাতুল ফেরদৌসী

বৃষ্টি ভেজা গোধূলির ব্যালকনিতে গোলাপটার মৃদু হাসিতে হিমেল হাওয়ার ছন্দে ছন্দে খুঁজছি যে বিষন্ন মনে। বসে আছি উঠনের কোনে নীল পাঞ্জাবি পরে আসবে বলে। হাতে কদম নিয়ে নীল শাড়িটা পরা বিস্তারিত...

হাতে নাটায়,উপরে উড়ছে ঘুড়ি

মোসলেম উদ্দিন,হিলি (দিনাজপুর) মুক্ত বলাকার মতো আকাশে ডানা মেলে উড়তেকে না চায়। মানুষের তা সাধ্য নাই। তাই হাতেনাটায় ধরে মনকে পেছিয়ে আকাশে উড়িয়ে দিচ্ছেঘুড়ি। এমনি দৃশ্য চোখে পড়ল দিনাজপুরেরঘোড়াঘাটের ত্রিমোহনী ঘাটে। পলিথিন, কট সুতা, কাপড়, বাঁশের কাঠি দিয়েতৈরি করছে রং বে-রঙের চিল, রকেট, চং, ঢল ওমানুষ জাতীয় বিভিন্ন প্রকার ঘুড়ি। ত্রিমোহনীঘাটের উচুঁ রাস্তার উত্তর পাশে ১৫ থেকে ২০জনের মতো শিশু, কিশোর, যুবক উড়িয়ে দিচ্ছেনানান রঙের ঘুড়ি। আর তা দেখতে রাস্তার দু’পাশেভির জমিয়েছে শত শত মানুষ। ত্রিমোহনী ঘাট এলাকার মিজানুর রহমান ঘুড়িউড়ায়তে উড়ায়তে বলেন, প্রতিবছর গরম মৌসুমে এখানে আমি নিজ হাতে তৈরিকরে ঘুড়ি উড়ায়। আমার আকাশে উড়ার খুবইশখ। কিন্তু আমার তো আর পাখির মতো ডানানেই। তাই ঘুড়ি বানিয়ে আকাশে উড়িয়ে সাধমিটাচ্ছি। কিশোর শ্রী সাধন পাল বলেন, সবাই ঘুড়ি উড়াচ্ছে, আমারও ইচ্ছে করে ঘুড়িউড়াতে। তাই বাবা কে বলে উনি আমাকে এইরকেট ঘুড়িটি বানিয়ে দিয়েছে। দুপুর থেকে মনেরসুখে ঘুড়ি উড়াচ্ছি। রাসেল আহম্মেদ বলেন, এবারআমি তিন প্রকার চিল, চল আর মানুষ ঘুড়িবানিয়েছি। তবে চিল ঘুড়ি উড়ায়তে আমার খুবভাল লাগে। এখানে যত ঘুড়ি উড়ছে তার মধ্যেআমার ঘুড়ি সবার উপড়ে অবস্থান করছে। নবম শ্রেণীতে পড়ে ঢল ঘুড়িয়ালা আকাশ বলেন, আমি আকাশ রহমান,আকাশে পাখির মতো উড়তে বড় ইচ্ছে হয়। তাতো আর হয় না, তাই মনকে বোঝ দেবার জন্যনিজে ঢল ঘুড়ি বানিয়ে আকাশে উড়িয়ে দিয়েছি।আর নিজেকে ঘুড়ির সাথে দ্বিগন্তে বিচরণকরাচ্ছি। ঘুড়ি উড়ানো দেখতে আসা ৬৫ বছরের মজিবররহমান চাচার সাথে কথা হয়, তিনি বলেন, বাবা এ্যালা (এই) ঘুড়িউড়ানো মোর শখ ছিলো। ছোট বেলায় বাপ-মাউয়ের চোখোথ  (চোখে) ফাঁকি দিয়ে কত ঘুড়িউড়িয়ে ছিনু (ছিলাম)। সারা দিন খাওয়া-দাওয়াভুলে মাঠত (মাঠ) গ্রামের ছোল-পলওর  (ছেলেদের) সাথে খেলা করে ছিনু। আজ এ্যামার(এদের) ঘুড়ি উড়ানো দেখে মোর খুব শখ হচে(হচ্ছে)। কয়েক জন দর্শকের সাথে কথা হয়, তারা বলেন, এই ত্রিমোহনী ঘাটে প্রতিবছর এই সময় এলাকার সবাই ঘুড়ি উড়ায়।আমরা বিকেল হলেই এখানে আসি ঘুড়ি উড়ানোদেখতে। এখানকার প্রাকৃতিক পরিবেশে ঘুড়িউড়ানো দেখে আমরা মুগ্ধ হয়ে যায়। সময় বিস্তারিত...

বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ

কাকলী আইচ চৈতিঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ভারতীয় উপমহাদেশের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। প্রাচীন বাঙ্গালি সভ্যতার আধুনিক স্থপতি হিসাবে শেখ মুজিবুর রহমানকে বাংলাদেশের জাতির জনক বলা হয়ে থাকে। বিস্তারিত...

বন্দী হয়ে আছি অনন্তকাল – নিগার সুলতানা

আমি হারিয়ে গিয়েছি আমার স্বপ্নরাজ্যে,  রৌদ্রস্নাত পাহাড়ি ঝর্ণার ধারে,  সাত সমুদ্র তেরো নদীর ওপারে, পূর্ণিমার আলোয় গহীন অরণ্যে, পাখির কাকলিমুখর কুঞ্জে,  পদ্মদীঘির কাক কালো জলে,  কোনো বিজন মাঠে বটের ছায়ায়,  বিস্তারিত...